আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে থাকছে ‘চমক’

ঢাকা, রবিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২০ | ১৩ মাঘ ১৪২৬

আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে থাকছে ‘চমক’

সালাহ উদ্দিন জসিম ৭:৪৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১১, ২০১৯

আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে থাকছে ‘চমক’

কে হচ্ছেন আওয়ামী লীগের পরবর্তী সাধারণ সম্পাদক? এ প্রশ্ন সর্বত্র। দলীয় অফিস, সভানেত্রীর কার্যালয়সহ সব জায়গায় আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু এটিই। আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের গণ্ডি ছাপিয়ে এ প্রশ্ন জনমনেও। কারণ ক্ষমতাসীনে এ দলটির সম্মেলনে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ এ একটি পদেই চমক থাকে সব সময়।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ২১তম জাতীয় সম্মেলন ২০-২১ ডিসেম্বর। ইতিমধ্যে ১১টি উপ-কমিটি সম্মেলন সফল করতে তাদের সব আয়োজন শেষ করেছে। গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্র প্রণয়ন, পোস্টার ও দাওয়াত কার্ড তৈরি, দেশি ও বিদেশি অতিথিদের দাওয়াত দেয়া, এমনকি রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে পাল তোলা নৌকায় সভামঞ্চ করারও প্রস্তুতি শেষ।

এবারের সম্মেলনের স্লোগান- ‘শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণে গড়তে সোনার দেশ, এগিয়ে চলেছি দুর্বার, আমরাই তো বাংলাদেশ।’

দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন, ‘এবারে আওয়ামী লীগের সম্মেলন হবে সাদামাটা।’ আর এই সাদামাটা প্রস্তুতি সহজেই সম্পন্ন করেছে ক্ষমতাসীন দলটি। তবে সাদামাটা এ সম্মেলনে আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্র, ঘোষণাপত্রসহ নানা বিষয়ে তেমন কোনো পরিবর্তন না আসলেও বেশ পরিবর্তন আসবে নেতৃত্বে। প্রমোশন-ডিমোশন ও যোজন-বিয়োজন হবে অনেক। এমনকি দলের সাধারণ সম্পাদক পদেও থাকছে চমক।

এবারে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে আলোচনায় আছেন দলের ডজনখানেক নেতা। এরমধ্যে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আবদুর রাজ্জাক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ, ডা. দীপু মনি, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদসহ আরও অনেকে আলোচনায়।

এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে খোদ ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘একটা পদে কোনো কোনো পরিবর্তন আসবে না। সেটা হলো সভাপতির পদ। আমাদের সভাপতি শেখ হাসিনা। তিনিই এই দলে একমাত্র অপরিহার্য। আর কেউ অপরিহার্য নয়।’

নিজের সাধারণ সম্পাদক থাকার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের কাউন্সিলররা দলীয় সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। তিনি যাকে দায়িত্ব দেবেন, সেই থাকবে। পরিবর্তন হলে স্বাগত জানাবো। আর যদি রাখেন সেটাও তার ইচ্ছা।’

তবে আওয়ামী লীগের সিনিয়র একাধিক নেতা পরিবর্তন ডটকমকে জানিয়েছেন, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে কে আসবে বা কে হচ্ছেন শেখ হাসিনার পরবর্তী রানিংমেট? এটা তিনি নিজেই ঠিক করবেন। আওয়ামী লীগে স্থায়ী নেতৃত্ব শেখ হাসিনা, আর কোনো পদই স্থায়ী না। সভাপতি যাকে যেখানে প্রয়োজন মনে করবেন, পদায়ন করবেন। সারাদেশের কাউন্সিলররা তাকে সেই ক্ষমতা দেয়ার রেওয়াজ আছে।

তবে আওয়ামী লীগের অতীত তুলে ধরে একাধিক নেতা জানিয়েছেন, ‘এই দলে অধিকাংশ সাধারণ সম্পাদকই দুই বা ততোধিকবার দায়িত্ব পালন করেছেন। সে ঐতিহ্যের ধারাবাহিকতায় বলা যায়, ওবায়দুল কাদেরই থাকছেন সাধারণ সম্পাদক। বাকিটা নির্ভর করছে শেখ হাসিনার ইচ্ছা আর ওবায়দুল কাদেরের শারীরিক অবস্থার ওপর।’

তবে গত তিন বছর কমিটি নয়, ‘কথনে’ ব্যস্ত কাদের! ৩০ দিন যাবত সম্মেলনে ব্যস্ত সময় পার করছেন। করছেন নানা জেলা ও উপজেলার কমিটি। দলীয় বিবেচনায় পারফর্মেন্স শূণ্যের কোঠায় থাকলেও সেটা ওভারকাম করেছেন। দিনরাত পরিশ্রম করে জেলা সম্মেলনে অংশগ্রহণ দেখিয়ে প্রমাণ করেছেন তিনি পূর্ণ সুস্থ ও দল গোছাতে সক্ষম। দায়িত্ব দিলে পালনেও পারঙ্গম।

দলীয় সূত্র বলছে, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পদে পাঁচবার দায়িত্ব পালন করেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। তিনবার এ পদে তাজউদ্দীন আহমদ, চারবার জিল্লুর রহমান ছিলেন। এছাড়া আব্দুর রাজ্জাক দুবার, সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী দুবার ও সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম দুবার সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। এর বাইরে প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক, আবদুল জলিল একবার করে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ভাগ্যে কী আছে, তার জন্য অপেক্ষা করতে হবে ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। তবে সড়কে ফাটাকেষ্ট খ্যাত ওবায়দুল কাদের ফের আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হলেও দল ও দেশের জন্য হবে বড় চমক।

এসইউজে/

 

পরিবর্তন বিশেষ: আরও পড়ুন

আরও