খুনের পর সেলফি পোস্টেই আটক তরুণী!

ঢাকা, সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৪

খুনের পর সেলফি পোস্টেই আটক তরুণী!

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:১৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৮, ২০১৮

print
খুনের পর সেলফি পোস্টেই আটক তরুণী!

আজ থেকে দু’বছর আগে অর্থাৎ ২০১৫ সালের মার্চে খুন হন কানাডার তরুণী ব্রিটনি গারগল। খুনের অস্ত্র পাওয়া গেলেও যাচ্ছিল না খুনির সন্ধান। কিন্তু অপকর্মের দু’বছর বাদে ছোট্ট ভুলের কারণে খুনি নিজেই নিজেকে চিনিয়ে দিল। গারগলের খুনের মোটিভ নিয়ে কানাডার পুলিশ দীর্ঘদিন ধরেই পেরেশান ছিল। তবে সব রহস্যের সমাধান হয়ে গেছে ফেসবুকের একটি মাত্র ছবি থেকেই।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে জানায়, খুনের অভিযোগে ব্রিটনি গারগলের বন্ধু চেইনি রোজকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সম্প্রতি ফেসবুকে তার প্রকাশিত একটি ছবি থেকেই সব রহস্যের সমাধান হয়ে যায়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ১৮ বছরের ব্রিটনিকে কানাডার সাস্কাটচেওয়ানের সাস্কাটুন শহরে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। পুলিশ তদন্ত প্রতিবেদনে জানায়, কেউ বা কারা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করেছে। হত্যায় ব্যবহৃত একটি বেল্টও পাওয়া যায় গারগলের মরদেহের পাশেই।

কিন্তু খুনের অস্ত্র মিললেও খোঁজ মিলছিল না খুনির। আর সবার মতো সন্দেহের তীর গারগলের ঘনিষ্ট বান্ধবী চেইনি’র দিকে থাকলেও প্রমাণের অভাবে কিছুই করা যাচ্ছিল না।

কিন্তু ঘটনার দু’বছর পর নিজের অজান্তেই গারগলের সঙ্গে তোলা একটি সেলফি ফেসবুকে পোস্ট করেন চেইনি। ছবিটি গারগল খুন হওয়ার  কিছুক্ষণ আগেই তোলা হয়েছিল। আর সেই ছবিতে খুনের অস্ত্র হিসেবে ব্যবহৃত বেল্টটিও চেইনিকে পরে থাকতে দেখা যায়।

ফলে সব রহস্যের সমাধান হয়ে যায় এক নিমিষেই। পুলিশ ভালো করে জিজ্ঞাসাবাদ করলে খুনের কথা স্বীকারও করে ২১ বছর বয়সী চেইনি। জানায়, ব্রিটনিকে হত্যার রাতে তার সঙ্গেই ছিল চেইনি। একসঙ্গে তারা মদ পান করেন। সেই সময় দু’জনে তর্কে জড়িয়ে পড়লে একপর্যায়ে ব্রিটনিকে গলা টিপে হত্যা করে চেইনি।

হত্যার দায় স্বীকার করায় চেইনকে ৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। আর এরই মধ্য দিয়ে শেষ হল, অষ্টাদশী তরুণীর মৃত্যু রহস্যের!

কেবিএ

 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad