ঠাণ্ডায় ফাটছে থার্মোমিটার

ঢাকা, সোমবার, ২১ মে ২০১৮ | ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

ঠাণ্ডায় ফাটছে থার্মোমিটার

পরিবর্তন ডেস্ক ১:০৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৮, ২০১৮

print
ঠাণ্ডায় ফাটছে থার্মোমিটার

এই বছর ঠাণ্ডার পরিমাণ এতটাই বেড়ে গেছে যে মাপ দেখাতে গিয়ে থার্মোমিটারের কাঁটাই ভেঙে বেড়িয়ে যাচ্ছে। সম্প্রতি রাশিয়ার ইয়াকুতিয়ায় তাপমাত্রা মাইনাস ৬৭ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে নেমে গেছে। এমন অবস্থায় বিজ্ঞানীদের তৈরি থার্মোমিটার আর হিসেব নিতে পারছে না বলে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ‘টাইম’ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মস্কো শহর থেকে ৫ হাজার ৩শ’ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত এলাকাটি ভুতুরে শহরে পরিণত হয়েছে। বন্ধ হয়ে গেছে স্কুল-কলেজ, অফিস-আদালত।

গত ক’দিন আগেও মাইনাস ৪০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে ঠাণ্ডাকে উপেক্ষা করে কাজ চালিয়ে গেছে শহরের মানুষ। শিক্ষার্থীরাও পড়াশোনা চালিয়ে গেছেন। কিন্তু তাপমাত্রা ক্রমেই নামতে থাকায় প্রশাসন আর ঝুঁকি নিতে চাননি।

ফলে গত মঙ্গলবার থেকেই স্কুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে প্রশাসন। স্থানটি অবশ্য বিশ্বের শীতলতম সাইবেরিয়ার খুব কাছেই অবস্থিত। সম্প্রতি আনাস্তাসিয়া গ্রুজদেভ নামের সেখানকার এক কলেজ শিক্ষার্থীর ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রকাশ পেলে তা ভাইরাল হয়। ছবিতে দেখা যায় প্রচণ্ড ঠান্ডায় তার ভ্রু, চোখের পাতা সব বরফে জমে গেছে।

অবশ্য এমন পরিস্থিতি ইয়াকুতিয়ায় একবার ঘটেছিল। ২০১৩ সালে সেখানে তাপমাত্রা মাইনাস ৭১ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে নেমে যায়। সেকারণে কর্তৃপক্ষ স্থানটিতে ইলেক্ট্রনিক থার্মোমিটার বসায়। সেটি স্থাপনের আরও একটি উদ্দেশ্য ছিল। পর্যটকদের কাছে তাপমাত্রার কারণেই যাতে ওই এলাকাটি আকর্ষণীয় হয়।

কিন্তু থার্মোমিটারটি সর্বোচ্চ মাইনাস ৬২ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড পর্যন্ত তাপমাত্রা মাপতে সক্ষম। ফলে আর মাপ নিতে না পেরে যন্ত্রটিই বিস্ফোরণের মাধ্যমে ভেঙে গেছে। এমন অবস্থায় স্থানীয়দের আশঙ্কা, ভবিষ্যতে হয়তো আরও খারাপ পরিস্থিতি মুখোমুখি হবেন তারা।

কেবিএ

 
.




আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad