আইসল্যান্ডে আলোর খেলা

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১ পৌষ ১৪২৪

আইসল্যান্ডে আলোর খেলা

পরিবর্তন ডেস্ক ৩:০৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৬, ২০১৭

print
আইসল্যান্ডে আলোর খেলা

পৃথিবীর উত্তর প্রান্তের সুমেরুবৃত্তকে স্পর্শ করা আটলান্টিক মহাসাগরের আগ্নেয় দ্বীপ আইসল্যান্ডে রাতের আকাশে বিরল আলোর খেলা দেখতে পাওয়া যায়। উত্তর মেরুর কাছে অবস্থিত হলেও আটলান্টিক মহাসাগরের উষ্ণ উপসাগরীয় সমুদ্রস্রোতের কারণে এখানকার জলবায়ু তুলনামূলকভাবে মৃদু। আবহাওয়ার এই বিচিত্র অবস্থার কারণেই শুধু নয়, পর্যটকদের কাছে স্থানটি অরোরা বা মেরুজ্যোতির জন্য অত্যন্ত প্রিয়।

.

ছবি:

 

পৃথিবী থেকে প্রায় ৯৩ মিলিয়ন মাইল দূরে সূর্য অবস্থিত হলেও এর প্রভাব আরও বহুদূর পর্যন্ত বিস্তৃত।
সৌরঝড়ে চার্জিত কণা বা প্লাজমা মহাকাশে ছড়িয়ে পড়ে।

 

পৃথিবীতে এসব কণা এসে পৌঁছালে পৃথিবীর চৌম্বক ক্ষেত্র এবং বায়ুমণ্ডলের সঙ্গে তা প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে।
সূর্যের চার্জিত কণাগুলো যখন আমাদের পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলের অণু-পরমাণুকে আঘাত করে তখন সেই চার্জিত কণাগুলো বায়ুমণ্ডলের অণু-পরমাণুগুলোকে আন্দোলিত করে এবং উজ্জ্বল করে তোলে।

 

পরমাণু আন্দোলিত হওয়ার অর্থ হল এই যে, যেহেতু পরমাণু নিউক্লিয়াস এবং নিউক্লিয়াসকে আবর্তনকৃত ইলেক্ট্রন দ্বারা গঠিত তাই যখন সূর্য থেকে আগত চার্জিত কণা বায়ুমণ্ডলের পরমাণুকে আঘাত করে তখন ইলেক্ট্রনগুলো উচ্চ শক্তিস্তরে ঘুরতে শুরু করে।

 

তারপর যখন আবার কোনো ইলেক্ট্রন নিম্ন শক্তিস্তরে চলে আসে তখন সেটি ফোটন বা আলোতে পরিণত হয়।
বিজ্ঞান বলে, আমাদের বায়ুমণ্ডলের গ্যাসগুলিই হল আরোরার বিভিন্ন রঙের কারণ।

যেমন, আরোরার সবুজ রঙের কারণ হচ্ছে অক্সিজেন। আবার লাল এবং নীল রঙের আরোরার জন্য দায়ী নাইট্রোজেন গ্যাস।

কেবিএ

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad