বিটকয়েন ফিউচার্স-এ বিনিয়োগ চালু করতে যাচ্ছে নাসডাক

ঢাকা, রবিবার, ২২ এপ্রিল ২০১৮ | ৯ বৈশাখ ১৪২৫

বিটকয়েন ফিউচার্স-এ বিনিয়োগ চালু করতে যাচ্ছে নাসডাক

পরিবর্তন ডেস্ক ৭:৫২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ৩০, ২০১৭

print
বিটকয়েন ফিউচার্স-এ বিনিয়োগ চালু করতে যাচ্ছে নাসডাক

আগামী বছর নাসডাক এক্সচেঞ্জ বিট কয়েনের মূল্যের উঠানামা নিয়ে ব্যবসায়ীদের বাজি ধরার ব্যবস্থা চালু করতে যাচ্ছে। নাসডাক ইনকর্পোরেটেড ও ক্যান্টর ফিটজেরাল্ড একসাথে ওয়াল স্ট্রিটে বিট কয়েনের মূল্য নিয়ে ব্যবসায় যোগ দিবে। বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্টক এক্সচেঞ্জ নাসডাক ২০১৮ সালের প্রথম ছয় মাসের মধ্যে বিটকয়েন ফিউচার্স-এ বিনিয়োগের সুবিধা চালু করার পরিকল্পনা করেছে।

গত বুধবার বিট কয়েনের বাজারমূল্য সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যায়। বিটকয়েনের এক্সচেঞ্জ রেট বা বিনিময় মূল্য এ বছরের শুরুতে যা ছিল নভেম্বরের শেষ নাগাদ তার চেয়ে দশগুণ বৃদ্ধি পায়। একেকটি বিট কয়েনের মূল্য ১১ হাজার ৩৭৭ ডলার পর্যন্ত পৌঁছয়।

ক্রিপ্টোকারেন্সি বা ডিজিটাল অর্থ ব্যবস্থা চালু করা দশ বছরও হয়নি। এখনই বিট কয়েন ফিউচার্স-এর মূল্য নিয়ে জল্পনা-কল্পনার সুযোগ ক্রিপ্টোকারেন্সির জন্য একটি মাইলফলক হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।  

ফিউচার্স মার্কেট বলতে কোনো জিনিসের মূল্য, সেটি থেকে পাওয়া আয় বা সুদের পরিমাণ বিশ্লেষণ করে সেখানে বিনিয়োগ বুঝায়। এভাবে সম্পূর্ণ অলিক কোনো জিনিসেরও চাহিদা বেড়ে যাবে মনে করলে ওই মার্কেটে বিনিয়োগ করা যায়।

বিট কয়েনের দাম আরও বাড়বে নাকি কমে যাবে তা নির্ভর করবে ব্যবসায়ীরা বিট কয়েনের উপর ভরসা করবেন কিনা তার উপর। তবে বিট কয়েন চালু করা হলে ভবিষ্যতে বড় ব্যাঙ্ক থেকে শুরু করে ছোট ব্যবসায়ীরা সবাই বিট কয়েনে অর্থ আদান প্রদান করবেন।

নাসডাক-এর বিট কয়েন চুক্তি শুরু করা হবে নাসডাক ফিউচার্স-এর কার্যালয়ে। নিউ ইয়র্ক ভিত্তিক অর্থ ও শেয়ার লেনদেন সংস্থাটি ২০১৫ সালে নাসডাক ফিউচার্স গঠন করে। এখন পর্যন্ত নাসডাক ফিউচার্স বিভিন্ন ধরনের জ্বালানির ব্যবসায় মনোযোগ দিয়ে আসছিল।

একটি সূত্র জানিয়েছে নাসডাক শিকাগোর দুটি এক্সচেঞ্জ গ্রুপের চেয়ে এগিয়ে থাকতে চাইছে। নিউ ইয়র্কের সিএমই গ্রুপ ও সিবিওই গ্লোবাল মার্কেট সম্প্রতি বিট কয়েনে বিনিয়োগের ব্যবস্থা চালু করবে বলে ঘোষণা দেয়। নাসডাক ফিউচার্স চাইছে বিশ্বব্যাপী বিট কয়েনের মূল্য বিশ্লেষণ করে ব্যবসায়ীদের সাথে তাদের চুক্তিগুলো করতে।

বিশ্বের প্রথম স্টক মার্কেটের সূচনা হয়েছিল টিউলিপ ফুলের সম্ভাব্য দাম নিয়ে বাজি ধরার কারনে। এরপর কয়েক শতাব্দী ধরে স্টক মার্কেটে বিভিন্ন পণ্যের সাথে সাথে অনেক অদ্ভুত জিনিসের ওপর বাজি ধরে নিজের শেষ সম্বল বিনিয়োগ করেছেন ব্যবসায়ীর। লেনদেন ব্যবস্থা হিসেবে বিট কয়েনের ভবিষ্যৎ কী তা নির্ভর করবে ব্যবসায়ীদের মেজাজের উপর।

ফিটজেরাল্ড ক্যান্টর চাইছে বিট কয়েন সোয়াপ চালু করতে। এর ফলে বিনিয়োগকারীরা তিন মাসের জন্য বিট কয়েনের মূল্যের উপর বাজি ধরতে পারবেন। ওই সময় বিট কয়েনের দাম ১৫ হাজার ডলার ছাড়িয়ে গেলে বা ৫ হাজার ডলারের নিচে নেমে আসলে ব্যবসায়ীরা যেন ক্ষতিগ্রস্ত না হন সেই পদক্ষেপও নেবে ক্যান্টর।

প্রতিষ্ঠানটি আশা করছে শুরুতে খুচরো ব্যবসায়ীরা তাদের সাথে চুক্তিতে আসবে। তবে ভবিষ্যতে বড় বড় ব্যাঙ্ক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোও নাসডাক ফিউচার্সের সাথে চুক্তি করবে বলে তারা আশা করছে।

এমআর/এএসটি

 
.




আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad