ইসরাইলি সুন্দরীর সাথে ছবি তুলে ফের বিতর্কিত ইরাকি সুন্দরী

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ | ৫ আষাঢ় ১৪২৫

ইসরাইলি সুন্দরীর সাথে ছবি তুলে ফের বিতর্কিত ইরাকি সুন্দরী

পরিবর্তন ডেস্ক ২:৫২ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৪, ২০১৮

print
ইসরাইলি সুন্দরীর সাথে ছবি তুলে ফের বিতর্কিত ইরাকি সুন্দরী

ইসরাইলি সুন্দরীর সাথে ছবি তুলে রীতিমত মৃত্যুর হুমকি পেয়েছিলেন ইরাকি সুন্দরি, প্রাণের ভয়ে দেশও ছাড়েন। এ ঘটনার ছয় মাস পার না হতেই আবারও দুই সুন্দরীর যুগল ছবি দেখে ক্রুদ্ধ ইরাকবাসী। বিবিসির সংবাদ।

২০১৭ সালের নভেম্বরে যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে মিস ইউনিভার্স সুন্দরী প্রতিযোগীতায় ইরাকের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করেন সারাহ ইদান।

সেখানেই তিনি মিস ইসরাইল আদার গ্যান্ডেলসম্যানের সাথে সেলফি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ করেন। সেইসাথে সারাহ ক্যাপশান হিসেবে লিখেন: মিস ইরাক ও ইসরাইলের পক্ষ থেকে শান্তি ও ভালোবাসার বার্তা।

এমন ঘটনায় ইরাকের জনগণ ক্রুদ্ধ হয়ে সারাহ ইদানকে মৃত্যুর হুমকিও দেয়। ইরাকের সাথে ইসরাইলের কোন কূটনৈতিক সম্পর্ক নেই। দুই সুন্দরীর যুগল ছবিকে দুই দেশের মধ্যে সম্পর্ক স্থাপনের চেষ্টা এবং ফিলিস্তিনিদের প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা হিসেবে দেখে ইরাকিরা।

এমন পরিস্থিতিতে সপরিবারে সারাহ যুক্তরাষ্ট্রে পাড়ি দেন। সেখানে গত সোমবার ইসরাইলি সুন্দরী আদারের সাথে দেখা করেন সারাহ।

ছবি আদান প্রদান করার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টগ্রামে আদারের সাথে তোলা একটি ছবি ও একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। সেখানে ক্যাপশানে লিখেন: বোনদের পুনর্মিলন।

ইদানের এমন কর্মকাণ্ডে ইরাকিদের ক্ষুব্ধ করলেও ইসরাইলি টিভি চ্যানেল টু নিউজে বলেন, আমি মনে করি না ইরাক ও ইসরাইল পরষ্পরে শত্রু। হয়তো দুই দেশের সরকার একে ওপরের শত্রু হতে পারে কিন্তু ইরাকি জনগণের বিশাল একটি অংশের ইসরাইলিদের সাথে কোন ধরণের ঝামেলা নেই।

বর্তমানে ইদান জেরুজালেমে ভ্রমণে আছেন। সেখানে তাকে ইসরাইলি প্রধানমন্ত্রীর মুখপাত্র ওফির গ্যান্ডেলম্যান তাকে স্বাগত জানান।

উল্লেখ, সারাহ ইদান গত ৪৫ বছরের মধ্যে ইরাকের হয়ে প্রথম মিস ইউনিভার্স প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণের সুযোগ পান।

আরজি/

 
.




আলোচিত সংবাদ