ব্রিটেনের প্রথম অধিবাসীরা কৃষ্ণাঙ্গ ছিল

ঢাকা, শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

ব্রিটেনের প্রথম অধিবাসীরা কৃষ্ণাঙ্গ ছিল

মোহাম্মদ মামুনূর রশিদ ৬:০০ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ০৮, ২০১৮

print
ব্রিটেনের প্রথম অধিবাসীরা কৃষ্ণাঙ্গ ছিল

ব্রিটিশ আইল্যান্ডের প্রথম অধিবাসীদের গায়ের রং 'শ্যামবর্ণ বা কালো' ছিল। একটি যুগান্তকারী গবেষণায় ব্রিটেনে পাওয়া সবচেয়ে পুরনো পূর্ণাঙ্গ মানব কঙ্কালের ডিএনএ বিশ্লেষণ করে এই সিদ্ধান্তে উপনীত হয়েছেন বিজ্ঞানীরা।

তারা দশ হাজার বছরের পুরনো কঙ্কালের ফসিলটির নাম দিয়েছেন 'চেডার ম্যান'। ইংল্যান্ডের দক্ষিণ পশ্চিমে সামারসেট কাউন্টির একটি গুহায় এক শতাব্দীরও বেশি সময় আগে কঙ্কালটি পাওয়া গিয়েছিল।

চেডার ম্যান যেসময়ে জীবিত ছিল তার মাত্র অল্প সময় আগে শেষ বরফ যুগ বা আইস এজের অবসান হয়েছিল। ওইসময় ইউরোপের মূল ভূখণ্ড পাড়ি দিয়ে ব্রিটিশ আইল্যান্ডগুলোতে বসতি স্থাপন করে আধুনিক মানুষ।

ব্রিটেনে বর্তমানে বসবাসরত শ্বেতাঙ্গ অধিবাসীরা চেডারম্যানের সমসাময়িক মানুষের বংশধর। একারণে তার অতীত ইতিহাস নিয়ে বিজ্ঞানীরা বিশেষ আগ্রহী।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছিল চেডার ম্যানের গায়ের রং ছিল ফ্যাকাসে ও চুল সাদা। কিন্তু তার ডিএনএ বিশ্লেষণ করে ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে।

ডিএনএর তথ্য অনুযায়ী, চেডার ম্যানের চোখের মনির রং ছিল নীল। গায়ের রং ছিল গাড় বাদামি থেকে বা কালোর মধ্যে। মাথায় ছিল কালো কোঁকড়ানো চুল।

এই নতুন আবিষ্কারের ফলে, ইউরোপের জনগোষ্ঠীর গায়ের রং সাদা হওয়ার জন্য দায়ী জিন অনেক পরে সেখানকার মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে পড়েছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। তার চেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, এখন যেমন গায়ের রং দেখে কে কোন দেশ থেকে এসেছেন তা অনুমান করা যায়, আগে তেমনটি ছিল না।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিকতম গবেষণার তথ্য অনুযায়ী বিজ্ঞানীরা মনে করেন, ২ থেকে ৩ লক্ষ বছর আগে বর্তমান শারীরিক গঠনের আধুনিক মানুষ বা হোমো স্যাপিয়েন্সের উৎপত্তি হয়েছিল আফ্রিকায়। সেখান থেকে তারা ক্রমেই পৃথিবীর বিভিন্ন মহাদেশে ছড়িয়ে পড়ে বসতি স্থাপন করে।

ইউনিভার্সিটি কলেজ অফ লন্ডনের কম্পিউটেশনাল বায়োলজিস্ট ইওয়ান ডায়েকমান চেডার ম্যানের ডিএনএ থেকে তার শরীরের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য নির্ধারণের গবেষণাটি পরিচালনা করেন।

ডায়েকমান ও তার দলের সদস্যরা মনে করেন, 'ব্রিটিশ মানেই সাদা বলে যে ধারণাটি মানুষের মনে বদ্ধমূল হয়ে আছে তা চিরস্থায়ী সত্য নয়। এটা সবসময়ই বদলেছে এবং ভবিষ্যতেও বদলাবে।'

চেডারম্যানের সম্পর্কে পাওয়া নতুন তথ্যের উপর ভিত্তি করে একটি ডকুমেন্টারি শীঘ্রই বিবিসির চ্যানেল ফোর-এ সম্প্রচার করা হবে।

ডিএনএ বিশ্লেষণের জন্য বিজ্ঞানীরা প্রাচীন কঙ্কালটির খুলিতে দুই মিলিমিটার ছিদ্র করে কয়েক মিলিগ্রাম হাড়ের গুঁড়ো সংগ্রহ করেন। তা থেকেই তারা চেডার ম্যানের জিনম অর্থাৎ তার শরীরের জিনের একটি সম্পূর্ণ সেট সংগ্রহ করেন।

এই জিনম থেকে বিজ্ঞানীরা ব্রিটেনের প্রাচীন এই অধিবাসীর শারীরিক গড়ন ও জীবনযাত্রা সম্পর্কে ধারণা লাভ করতে সক্ষম হন। তারা মনে করছেন চেডার ম্যান বা তার পূর্বপুরুষরা আফ্রিকা থেকে মধ্যপ্রাচ্য হয়ে ইউরোপে প্রবেশ করেন।

এমআর/এএসটি

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ