মন্ত্রী যতো বেশি মিথ্যা বলবেন, ততো পদোন্নতি: মওদুদ

ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৮ | ১৩ বৈশাখ ১৪২৫

মন্ত্রী যতো বেশি মিথ্যা বলবেন, ততো পদোন্নতি: মওদুদ

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:৫১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০১৮

print
মন্ত্রী যতো বেশি মিথ্যা বলবেন, ততো পদোন্নতি: মওদুদ

দেশে এখন অনৈতিক রাজনীতি চলছে দাবি করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেছেন, এজন্য এই সরকারের কাছ থেকে কিছু আশা করা যায় না।

তিনি বলেন, ‘অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হয়- এখন চলছে মিথ্যাচারের রাজনীতি। কোন মন্ত্রী কার চেয়ে বেশি মিথ্যা কথা বলবেন, তার মনে হয় ততো বেশি পদোন্নতি হবে।’

সাবেক এই আইনমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আমাদের বর্তমান প্রজন্মকে মিথ্যা কথা বলা শিক্ষাচ্ছি। একদিন না একদিন এর দায় তাদের (সরকার) বহন করতে হবে। এই মিথ্যাচারের মূল্য তাদেরকে দিতেই হবে।’

শুক্রবার বিকেলে ‘আমাদের সংস্কৃতি ও শহীদ জিয়া’ শীর্ষক এক আলোচনা সভা ও নতুন তারা সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৮২তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয় প্রেসক্লাবের ৩নং কনফারেন্স লাউঞ্জে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে জিয়া সাংস্কৃতিক সংগঠন (জিসাস) কেন্দ্রীয় কমিটি।

এসময় ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, ‘আমরা একদলীয় শাসন দেশে দেখতে চাই না। আমরা আমাদের গণতন্ত্র ফিরে পেতে চাই। ভোটের অধিকার ফিরে আনতে চাই। আমরা আমাদের বিচার বিভাগের স্বাধীনতা ফিরে আনতে চাই।’

তিনি বলেন, ‘সেটা ফিরে আনতেই আমাদের আন্দোলন। বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে আমাদের আন্দোলন এবং নির্বাচনের প্রস্তুতি একসঙ্গে চলবে।’

বিএনপির জ্যেষ্ঠ এ নেতা বলেন, ‘আন্দোলন এজন্য দরকার যে এই সরকার সমঝোতায় বিশ্বাস করে না। বিরোধী দলের সঙ্গে কোনো শান্তিপূর্ণ সমঝোতায় বিশ্বাস করে না। বরং বিরোধী দলকে কিভাবে নিশ্চিহ্ন করতে হবে, সেই কাজে তারা নিয়োজিত আছে। তাদের পুলিশ ও র্যাবের ট্রেনিং হলো কিভাবে বিরোধী দলকে ঘায়েল করা যাবে, নিশ্চিহ্ন করা যাবে।’

তিনি বলেন, এজন্য আন্দোলন ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প নাই। এই সরকারকে বাধ্য করা হবে দেশে একটি নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত করতে।

ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, ‘এটা একমাত্র তখনই সম্ভব, যদি জনগণের সমর্থন থাকে। কেবল জনবিস্ফোরণের মাধ্যমেই আন্দোলনে সেই আশা পূরণ করবে।’

তিনি বলেন, ‘নির্বাচন যদি অবাধ ও সুষ্ঠু হয়, তাহলে তারা (আওয়ামী লীগ) জানে এর ফলাফল কী হবে। বিপুল ভোটে তারা পরাজিত হবে। আর সেই ভয়ে তারা সুষ্ঠু নির্বাচন দিতে চায় না।’

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবুল হাশেম রানার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আবদুস সালাম, অভিনেত্রী গুলশান আরা, জিসাস ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. বোরহান উদ্দিন সরকার প্রমুখ।

এসআই/এমএসআই

 
.




আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad