‘গমের পর এবার পচা চাল আমদানি’

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৭ | ৯ কার্তিক ১৪২৪

‘গমের পর এবার পচা চাল আমদানি’

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৩:০৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২২, ২০১৭

print
‘গমের পর এবার পচা চাল আমদানি’

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেছেন, সরকার পচা গমের পর এবার পচা চাল আমদানি করছে। যা দরপত্রের মাধ্যমে থাইল্যান্ড থেকে ৩২ হাজার ১৪০ টন চাল আমদানি করা হয়েছে। এসব চাল নিয়ে দুটি জাহাজ এখন চট্টগ্রাম বন্দরে অপেক্ষা করছে।

রাজধানীর নয়াপল্টনে শুক্রবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব তথ্য জানান।

রিজভী বলেন, ‘পচা গমের পর এবার আমদানি করা হয়েছে পচা চাল। থাইল্যান্ড থেকে দরপত্রের মাধ্যমে আমদানি করা প্রায় ৩২ হাজার ১৪০ টন চাল নিয়ে দুটি জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দরে আসে। এরমধ্যে এমভি থাই বিন বে নামের একটি জাহাজ ১২ হাজার ২৯০ টন চাল নিয়ে ৩১ আগস্ট এবং এমভি ডায়মন্ড-এ নামের অপর চালবাহী জাহাজ আসে চলতি মাসের এক তারিখ। এতে ১৯ হাজার ৮৫০ টন চাল রয়েছে। পচা চাল নিয়ে দেন-দরবার করতে গিয়ে গত দু’দিন আগে ফাঁস হয়ে যায় পচা চালের গোমর।

তিনি বলেন, ‘চালগুলো একেবারেই খাওয়ার অনুপযোগী এবং অত্যন্ত নিম্নমানের। ব্যবসায়ীরা এ কথা বললেও খাদ্য বিভাগ বলছে অত্যন্ত নিম্নমানের। যেহেতু পচা ঘটনা ফাঁস হয়ে গেছে তাই এখন সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে এগুলো খালাস করা যাবে না। তাই খাদ্য বিভাগ চালগুলো ফিরিয়ে নিতেও বলেছে থাইল্যান্ডের এ জাহাজ দুটিকে। কিন্তু জাহাজের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা চাল ফেরত না নিয়ে চালগুলো বেসরকারিভাবে হলেও বিক্রি করে যাবেন। তাই গত মঙ্গলবার থেকে তারা যোগাযোগ করেন চট্টগ্রামসহ দেশের বেশ কয়েকটি চাল ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে। এরপর থেকে পচা চাল নিয়ে তোলপাড় শুরু হয় চট্টগ্রামজুড়ে।’

‘প্রায় এক মাস আগে থাইল্যান্ড থেকে পচা গমের চালান আসার পরও এখনও জাহাজ দুটি চট্টগ্রাম বন্দরে খালাসের অপেক্ষায় থাকায় একটি জিনিস পরিস্কার যে, এর পিছনে সরকারের রাঘব বোয়ালরা জড়িত। তারা গত ২০ দিন ধরে পচা চাল খালাসের চেষ্টা করছেন। এ নিয়ে যেন কোনো বুমেরাং না হয় তাই গত ২০ দিন ধরে সরকারের খাদ্য বিভাগ ও চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ অনেকটা গোপনে কাজ করে গেছেন’, বলেন রিজভী।

ব্রাজিল থেকে পচা গম আমদানির কথা উল্লেখ করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘ইতোপূর্বে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের গম কেলেঙ্কারির কথা নিশ্চয়ই দেশবাসী ভুলে যায়নি। খাদ্য অধিদফতর ও ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটদের মাধ্যমে সে সময় ব্রাজিল থেকে ৪০০ কোটি টাকায় ২ লাখ ৫ হাজার ১২৮ মেট্রিক টন পচা গম আমদানি করা হয়েছিল। সেসময় পচা গম কেলেঙ্কারির ঘটনা দেশজুড়ে আলোড়ন সৃষ্টি করেছিল। বিষয়টি তখন উচ্চ আদালত পর্যন্ত গড়িয়ে ছিল। উচ্চ আদালত পচা গম কেলেঙ্কারি তদন্তের জন্য দুদককে নির্দেশনা দিলেও আজও সে তদন্ত আলোর মুখ দেখেনি।’

গতকাল আনিসুল হকের দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘‘তিনি বলেছেন, ‘বিচার বিভাগের ক্ষমতা ক্ষুণ্ন করার চিন্তা সরকারের নেই। বরং ক্ষমতা বৃদ্ধি এবং বিচার বিভাগের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। আওয়ামী লীগ আইনের শাসনে বিশ্বাসী, আমরা আইনের শাসনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল।’ আইনমন্ত্রীর এমন বক্তব্য হাস্যকর ও নির্লজ্জ মিথ্যাচার। সর্বোচ্চ আদালত কর্তৃক সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী অবৈধ ঘোষণার পর প্রধানমন্ত্রী থেকে শুরু করে মন্ত্রী, এমপি ও আওয়ামী লীগের নেতারা কিভাবে প্রধান বিচারপতিদের বিরুদ্ধে আক্রমণাত্মক বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন তা মানুষ ভুলে যায়নি। রোহিঙ্গাদের ওপর মানবতাবিরোধী রক্তাক্ত উৎপীড়নের মর্মস্পর্শী ইস্যুটি’র চেয়ে ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে খিস্তিখেউর প্রাধান্য পেলো ক্ষমতাসীনদের কাছে। এটা যেন তাদের কাছে জাতির মরা বাঁচার ব্যাপার।’’

তিনি বলেন, ‘একদলীয় শাসনের যে বিষবৃক্ষ রোপণ করা হয়েছে সেটির গোড়ায় পানি ঢেলে তরতাজা করার জন্য বিচার বিভাগের স্বাধীনতার ওপর সরকার হামলা চালাচ্ছে। আইন মন্ত্রীর বক্তব্য ধোকাবাজী ও ধাপ্পাবাজী ছাড়া আর কিছুই নয়।’

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘দেশ বর্তমানে ভয়ঙ্কর দু:সময়ের মধ্যে পতিত হয়েছে। খাদ্য নিরাপত্তা ভয়াবহ সংকট ডেকে আনতে পারে। এর উপর রোহিঙ্গা ইস্যু এক নতুন ধরনের বিপর্যয়ের মাত্রা যুক্ত হয়েছে, এটি কতদূর যাবে তা বলা মুশকিল।’

সংবাদ সম্মলনে আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, হাবিব-উন- নবী খান সোহেল, আইন বিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া প্রমুখ।

এসআই/এসবি

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad