‘মামলা মোকাবেলার ভয়ে লন্ডনে খালেদা’

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৭ | ৩ কার্তিক ১৪২৪

‘মামলা মোকাবেলার ভয়ে লন্ডনে খালেদা’

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৮:২২ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৭, ২০১৭

print
 ‘মামলা মোকাবেলার ভয়ে লন্ডনে খালেদা’

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, শেখ হাসিনা নিজের মামলা মোকাবিলা করেছেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা মোকাবিলার ভয়ে তিনি লন্ডনে গিয়ে উঠেছেন। বিএনপি অচিরেই আস্তাকুড়ে নিক্ষেপ হতে চলেছে।

 

রোববার বিকালে বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস উপলক্ষে ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

মতিয়া চৌধুরী বলেন, দেশে গণতন্ত্রের নির্যাস ধরে রেখেছে আওয়ামী লীগ। কাটা তুলে গণতন্ত্রের রাস্তা বার বার আওয়ামী লীগই পরিস্কার করেছে। দলের দু:সময়ে সিনিয়র নেতারা যখন পিছিয়ে গেছে তখন তৃনমূলের নেতারা আওয়ামী লীগকে রক্ষা করেছে। নেতারা বিভিন্ন সময় ষড়যন্ত্রকারিদের সাথে হাত মিলিয়েছে, কিন্তু কর্মীরা সব সময় সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

শেখ হাসিনার প্রশংসা করে তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নই শুধু নয়, জঙ্গীবাদও সফলভাবে মোকাবেলা করেছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার। সারা বিশ্বে আজ শেখ হাসিনার জঙ্গিবাদ নির্মূলের মডেল প্রশংসিত হয়েছে। তিনি যখন দেশে জঙ্গীদের কাবু করেছেন তখন সারা পৃথিবীতেও জঙ্গীরা পিছু হঠতে শুরু করেছে।

এসময় ড. কামাল হোসেনের সমালোচনা করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, যারা ধমক খেয়ে লেজ গুটিয়ে দেশ থেকে পালিয়ে যায় তাদের হাতে বাংলাদেশের রাজনীতি থাকা সম্ভব না।
অনুষ্ঠানে খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেন, বিএনপি নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার ও লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড প্রতিষ্ঠার কথা বলে ধোঁয়াশা তৈরি করতে চায়। কিন্তু সংবিধানে নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার বলে কিছু নেই, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনকালীন সরকারই নির্বাচন সহায়ক সরকার হিসেবে দায়িত্ব পালন করবে। আর নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে।

তিনি বিএনপির দাবির বিষয়ে বলেন, সুষ্ঠু, অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচন চাইলে সন্ত্রাসীদের জেল থেকে ছাড়ার কোন সুযোগ নেই। যে সন্ত্রাসীরা বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল বানিয়েছে এবং আইন যাদের ধাওয়া করে বেড়াচ্ছে তাদের ছেড়ে দিয়ে কখনো সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়।
সভায় সভাপতিত্ব করেন মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী আবুল হাসনাত।

এলআর/এএস

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad