বাগেরহাট-৪ উপনির্বাচনে আ’লীগের প্রার্থী কে?

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৪ ফাল্গুন ১৪২৬

বাগেরহাট-৪ উপনির্বাচনে আ’লীগের প্রার্থী কে?

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ৬:৪৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২০

বাগেরহাট-৪ উপনির্বাচনে আ’লীগের প্রার্থী কে?

১০ জানুয়ারি মারা গেছেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও বাগেরহাট-৪ আসনের সংসদ সদস্য ডা. মোজাম্মেল হোসেন। তার ‍মৃত্যুতে শূণ্য আসনে নির্বাচনে কে হচ্ছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী? এ নিয়ে শুরু হয়েছে জল্পনা-কল্পনা। ডা. মোজাম্মেলের ছেলে? নাকি অন্য কেউ? এসব প্রশ্ন ঘুরে ফিরে সবার মুখে।

দীর্ঘ ৫ দশক ধরে ডা. মোজাম্মেল বাগেরহাট তথা গোটা দক্ষিণাঞ্চলে আওয়ামী লীগকে সুসংগঠিত করেছেন। ১৯৯৬ সালে ডাক্তার মোজাম্মেলকে নারী-শিশু ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাগেরহাটে আওয়ামী লীগের দুর্দিনে ডাক্তার সাহেবের বাড়িতে আশ্রয় নিতেন নিপীড়িত নেতাকর্মীরা। তিনি বিনা পয়সায় বহু রোগীকে চিকিৎসাসেবা দিয়েছেন।

মোজাম্মেলের বিয়োগে আওয়ামী লীগ তার একজন ত্যাগি নেতা হারিয়েছে, এলাকাবাসী হারিয়েছে একজন সেবক। এই শূণ্যতা পূরণে কে আসছেন বাগেরহাট-৪ আসনের অভিভাবক হিসেবে? এ প্রশ্ন সবার।

এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর এবং আওয়ামী লীগের সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছেন অনেকে। এরই মধ্যে আলোচনায় নাম ওঠ এসেছে, প্রয়াত ডা. মোজাম্মেল হোসেনের ছেলে ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মাহমুদ হোসেন, ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগ, ডা. মোজাম্মেল হোসেনের নাতি আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ কমিটির সদস্য অধ্যাপক. ড. আব্দুল্লাহ শেখ মোহাম্মদ বায়েজীদ-উল হাসান, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও মোরেলগঞ্জ উপজেলা সভাপতি অ্যাড. আমিরুল আলম মিলন, সাবেক ডিআইজি আবদুর রহীম খান, আওয়ামী লীগের জনশক্তি ও শ্রম বিষয়ক কেন্দ্রীয় উপ কমিটির সদস্য মো. জামিল হোসাইন।

তবে বাগেরহাট-৪ এর এমপি ডা. মোজাম্মেলের অনুসারীরা চায়, মোজাম্মেল হোসেনের ছেলে ও খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. মাহমুদ হোসেনকে। তারা মনে করেন, প্রয়াত নেতার অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করে ও মোরেলগঞ্জ-শরণখোলার নেতাকর্মী ও জনসাধারণের মন জয় করে সেই নির্বাচিত হতে পারবে সহজে।

আওয়ামী লীগ সূত্র জানিয়েছে, নানাজন নানা সময়ে শেখ হাসিনার কাছে যাওয়ার চেষ্টা করছেন। নিজেকে যোগ্য প্রার্থী হিসেবে উপস্থাপন করছেন।

তবে এখনো এ নিয়ে ভাবছে না আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড। তারা বলছেন, একে একে চারজন এমপি মারা গেলেন। এ শোক কাটিয়ে উঠতে একটু সময় লাগবে। নির্বাচন কমিশিন তফশিল ঘোষণা করলে তারা বিষয়টি নিয়ে কথা বলবেন।

এসইউজে/এএসটি

 

রাজনীতি: আরও পড়ুন

আরও