‘বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে আরো আগে উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেত’

ঢাকা, সোমবার, ২৩ এপ্রিল ২০১৮ | ১০ বৈশাখ ১৪২৫

‘বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে আরো আগে উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেত’

পরিবর্তন প্রতিবেদক ২:৪২ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৩, ২০১৮

print
‘বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে আরো আগে উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেত’

বিএনপি ক্ষমতায় থাকলে বাংলাদেশ সাত-আট বছর আগে উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেত বলে দাবি করেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ।তিনি বলেছেন, বর্তমান সরকারের দুর্নীতি, দু:শাসন-কুশাসনের কারণে এই স্বীকৃতি লাভ করতে বিলম্বিত হয়েছে।জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে শুক্রবার দুপুরে এক প্রতিবাদী সমাবেশে তিনি এ কথা বলেছেন।

খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে করার দাবিতে এ সমাবেশের আয়োজন করে জিয়া নাগরিক ফোরাম (জিনাফ) কেন্দ্রীয় কমিটি।

মওদুদ আহমদ বলেন, যেখানে গণতন্ত্র নাই সেখানে উন্নয়নশীলতা অর্থহীন। এর কোনো অর্থ নাই বাংলাদেশের মানুষের কাছে। কারণ যে দেশে ন্যায় বিচার নাই, আইনের শাসন নাই, একটি নির্বাচিত সংসদ নাই, গণতান্ত্রিক অধিকার নাই, বৃহত্তম রাজনৈতিক দলের নেত্রীকে কারাবন্দি করে রাখা হয়, সে দেশে উন্নয়নশীলতার ব্যাপারে মানুষ মোটেও সম্পৃক্ত হতে চায় না।

তিনি বলেন, উন্নয়নশীলতার কোনো সুফল দেশের মানুষ পায় নাই এবং পাবে না। যতদিন পর্যন্ত সত্যিকার অর্থে একটি গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থা কায়েম করতে না পারবো।

বিএনপির এ নেতা বলেন, উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি লাভের জন্য যারা বেশি অবদান রেখেছেন তারা হলেন— দেশের কৃষক সমাজ, গার্মেন্টসে যে সকল নারীরা কাজ করে আর আমার ভাইয়েরা যারা বিদেশে কাজ করে দেশে টাকা পাঠান। বাংলাদেশে আমরা যতটুকু উন্নয়ন লাভ করেছি এই তিনটা গোষ্ঠির কারণেই করেছি। সরকারের এখানে কোনো ভূমিকা ছিল না।

আগামী মাসগুলো বিএনপির জন্য অত্যন্ত পরীক্ষার মাস জানিয়ে তিনি বলেন, দেশের মানুষের ধৈর্য রাখার সীমা পেরিয়ে গেছে। আমরা এখন শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন করছি। আমরা দেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করার চেষ্টা করছি। একটা সময় আসবে এই সরকার যদি সমঝোতায় না আসে, তখন আমাদের রাজপথ ছাড়া অন্য কোনো বিকল্প থাকবে না।

সুপ্রিম কোর্ট বার এসোসিয়েশনের নির্বাচন অত্যন্ত সুষ্ঠু হয়েছে দাবি করে মওদুদ বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন যদি এই রকম অবাধ সুষ্ঠু হয়, তাহলে বিএনপি এবং ২০ দলীয় জোটের সঙ্গে আওয়ামী লীগের ভোটের ব্যবধান হবে ৭৫ শতাংশ। অর্থাৎ বিএনপি ভোট পাবে ৭৫ শতাংশ, আওয়ামী লীগ ২৫ শতাংশ। এটাই হল সত্যিকারের বর্তমান জনমত।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি লায়ন মিয়া মোহাম্মাদ আনোয়ারের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুস সালাম, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবি এম মোশাররফ হোসেন, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মাদ রতমাতুল্লাহ, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মঞ্জুর হোসেন ঈশা, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ।

এসআই/এসবি

 
.




আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad