‘প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় শাকসবজি থাকা বাঞ্ছনীয়’

ঢাকা, সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৮ | ৯ মাঘ ১৪২৪

‘প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় শাকসবজি থাকা বাঞ্ছনীয়’

সচিবালয় প্রতিবেদক ৫:৫০ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

print
‘প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় শাকসবজি থাকা বাঞ্ছনীয়’

নৌমন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, শাকসবজি আমাদের শরীরের জন্য প্রয়োজনীয় বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ লবণের অন্যতম প্রধান উৎস। আমাদের দেহকে কর্মক্ষম, সুস্থ রাখতে আমাদের প্রতিদিনের খাদ্য তালিকায় অন্যান্য খাবারের সাথে পর্যাপ্ত পরিমাণ শাকসবজি থাকা বাঞ্ছনীয়।

তিনি আজ রাজধানীর ফার্মগেটে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে ‘জাতীয় সবজি মেলা ২০১৮’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

সবজি মেলা উপলক্ষে কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ‘পরিবর্তিত জলবায়ুতে পুষ্টি নিরাপত্তা ও দরিদ্র বিমোচনে বছরব্যাপী নিরাপদ সবজি চাষ’ বিষয়ক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মো. হারুনর রশীদ।

মূল প্রবন্ধের ওপর আলোচনায় অংশ নেন হাজী দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপচার্য প্রফেসর ড. মো. আবুল কাসেম।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন, কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কৃষিবিদ মো. আব্দুল আজিজ।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহর সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বক্তব্য দেন।

নৌপরিবহন মন্ত্রী নিরাপদ শাকসবজি ফলমূল উৎপাদনে বিভিন্ন প্রযুক্তির ব্যবহার এবং সেই সাথে উৎপাদনকারী কৃষক, বিপণনকারী ও ভোক্তা পর্যায়েও সচেতনতা বৃদ্ধির ওপর গুরুত্বরোপ করেন।

তিনি বলেন, শাকসবজির প্রক্রিয়াজাতকরণ বিষয়ে আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখতে হবে। এতে সারা বছর পুষ্টি চাহিদা পূরণের সাথে অধিক লাভবান হওয়া সম্ভব। কৃষকের উৎপাদিত পণ্যের ন্যায্যমূল্য প্রাপ্তির জন্য সরকার সচেষ্ট রয়েছে।

শাজাহান খান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয় বর্তমান সরকারের অর্জিত বিভিন্ন সাফল্য সারা পৃথিবীর বুকে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে।

তিনি বলেন, কৃষিভিত্তিক আমাদের বাংলাদেশে সাম্প্রতিককালে কৃষির নজরকাড়া সাফল্য সরকারের উন্নয়নের অন্যতম প্রধান নিয়ামক। কৃষি উন্নয়নের এই জয়যাত্রা অব্যাহত থাকবে।

তিন দিনব্যাপি এবারের সবজি মেলায় প্রায় ১০০ এর অধিক রকমের সবজি প্রদর্শিত হচ্ছে। এতে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৮০টি স্টল ও ৪টি প্যাভেলিয়ন স্থান পায়। সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য মেলা উন্মুক্ত থাকবে। এবারের মেলার প্রতিপাদ্য ‘সারা বছর সবজি চাষে, পুষ্টি-স্বাস্থ্য-অর্থ আসে’।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের পাশাপাশি র্যা লি, সেমিনার, জাতীয় দৈনিক পত্রিকায় বিশেষ ক্রেড়পত্র প্রকাশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়েছে।

তৃতীয়বারের মত এ মেলার আয়োজন করেছে কৃষি মন্ত্রণালয়। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে চাষ করা হরেক রকমের সবজি দেখার পাশাপাশি এ বিষয়ে বিস্তারিত তথ্য জানতে পারবেন মেলায় আসা দর্শনার্থীরা। বাংলাদেশে চাষ হয় এমন ১৫৬ ধরনের সবজি সনাক্ত করা হয়েছে।

এ মেলার উদ্দেশ্য হলো দেশে উৎপাদিত বিভিন্ন প্রকার ও জাতের শাকসবজির সাথে সাধারণ মানুষের পরিচিতকরণ, ভবিষ্যৎ সবজি উৎপাদনে প্রেরণা প্রদান, সবজি উৎপাদনের আধুনিক প্রযুক্তিসহ বিভিন্ন প্রকার উৎপাদন প্রযুক্তি ও কলাকৌশল প্রদর্শন।

এসএস/এসবি

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad