দৌলতদিয়ায় চাঁদাবাজি বন্ধে সবার সহযোগিতা চাইলেন নৌপরিবহন মন্ত্রী

ঢাকা, শনিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৭ | ১ পৌষ ১৪২৪

দৌলতদিয়ায় চাঁদাবাজি বন্ধে সবার সহযোগিতা চাইলেন নৌপরিবহন মন্ত্রী

সচিবালয় প্রতিবেদক ৬:৩৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৭

print
দৌলতদিয়ায় চাঁদাবাজি বন্ধে সবার সহযোগিতা চাইলেন নৌপরিবহন মন্ত্রী

নৌপরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান বলেছেন, দৌলতদিয়ায় ফেরি ও লঞ্চঘাট উন্নয়নে সরকার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। যাত্রী ও মালামাল পরিবহনে সরকার অধিক গুরুত্ব দিচ্ছে। দৌলতদিয়ায় অবৈধ চাঁদাবাজি বন্ধে মালিক, শ্রমিক, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, জেলা ও পুলিশ প্রশাসনসহ সবার সহযোগিতা কামনা করেন তিনি।

.

মন্ত্রী বলেন, পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি সুষ্ঠুভাবে চলাচলের ক্ষেত্রে সরকার আন্তরিক। ফেরিতে যাত্রী ও মালামাল পরিবহনের লক্ষ্যে সরকার ফেরি নির্মাণে গুরুত্ব দিচ্ছে। স্বাধীনতার ৩৮ বছর পর সরকারের গত মেয়াদে ১৭টি ফেরি নির্মাণ করা হয়েছে। বর্তমান মেয়াদে আরো ১২টি ফেরি নির্মাণ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তিনি বৃহস্পতিবার রাজবাড়ী জেলার দৌলতদিয়া ঘাটে জেলা পরিষদের রেস্ট হাউজ প্রাঙ্গণে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্পোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) পাটুয়ারিয়া-দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে সুষ্ঠু ও নিরাপদ গাড়ি পারাপারের লক্ষ্যে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে এক আলোচনা সভায় বক্তৃতা করেন।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য কাজী কেরামত আলী, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান ড. প্রকৌশলী জ্ঞান রঞ্জন শীল, বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর এম মোজাম্মেল হক, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ফকির আব্দুল জব্বার, জেলা ও পুলিশ প্রশাসন এবং মালিক ও শ্রমিক নেতারা।

শাজাহান খান বলেন, আগামীতে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় নদীর ওপর দ্বিতীয় পদ্মা সেতু নির্মাণ করা হবে। রাজবাড়ীর রাখালগাছি-মানিকগঞ্জের আরিচার মধ্যে নতুন ফেরিরুট চালু করা হবে। তিনি বলেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চলসহ অন্যান্য স্থানে আরো ৮ থেকে ১০টি নতুন ফেরিরুট চালু করা হবে।

এসএইচ/এএল

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad