ঢাকায় প্রতি বর্গমাইলে ১ লাখ ১৪ হাজার লোক!

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ | ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

ঢাকায় প্রতি বর্গমাইলে ১ লাখ ১৪ হাজার লোক!

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৯:১৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০১৭

print
ঢাকায় প্রতি বর্গমাইলে ১ লাখ ১৪ হাজার লোক!

বিশ্বের ঘনবসতিপূর্ণ শহরগুলোর মধ্যে শীর্ষে অবস্থান করছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকা। ঢাকায় প্রতি বর্গমাইলে বসবাস করে ১ লাখ ১৪ হাজার লোক। যেখানে ভারতে মুম্বাই শহরে বসবাস করছে ৮৩ হাজার ৮০০ লোক।

.

অন্যদিকে, নিউ ইয়র্ক সিটিতে প্রতি বর্গমাইলে বসবাস করে ৪৬০০ জন লোক।

এমন পরিস্থিতিতে নগরায়নে প্রযুক্তিভিত্তিক ও দক্ষ সেবা ভিত্তিক ‘স্মার্ট সিটি’ পরিকল্পনা প্রয়োজন বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

মঙ্গলবার রাজধানীর ওয়েস্টিন হোটেলে ফেডারেশন অব বাংলাদেশ চেম্বার্স অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (এফবিসিসিআই) আয়োজিত ‘বিজনেস কনসিপটিলাইজন অব স্মার্ট সিটি’স: স্টার্ট সলিউশন টু আরবান ইনফ্রাস্ট্রাকচার অ্যান্ড ট্রাফিক’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে আলোচকরা এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এফবিসিসিআইয়ের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের মাননীয় প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে গোলটেবিল বৈঠকে অংশ নেন।

গোলটেবিল বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই সহ-সভাপতি মো: মুনতাকিম আশরাফ, ফ্রেডরিখ নুউম্যান ফাউন্ডেশনের (এফএনএফ) কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. নাজমুল হোসেন, অতিরিক্ত কমিশনার (ট্রাফিক) মোসলে উদ্দিন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ড কর্মকতা সাইদ মুশফিকুর রহামনসহ অনেকে উপস্থিত ছিলেন।

গোলটেবিল বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের আরবান এন্ড রিজিওনাল প্ল্যানিং বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. আকতার মাহমুদ।

তিনি বলেন, শহরে জনগণের ঘনত্বের সাথে বাড়ছে অব্যবস্থাপনা। তাই স্মার্ট সিটি স্থাপনে যথাযথ পরিকল্পনা প্রয়োজন।

তিনি আরো বলেন, ঢাকায় যেমন একদিন পানি না থাকলে জীবন-যাপন করা দুষ্কর হয়ে পড়ে; ঠিক তেমন স্যানিটেশন ব্যবস্থায় ত্রুটি থাকায় সামান্য বৃষ্টিতে রাস্তায় জলাবদ্ধতা হয়ে আমাদের ভোগান্তির শিকার হতে হয়।

পরিবহন ব্যবস্থার দূরাবস্থার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যথাযথ পরিকল্পনার অভাবে যানজটের শহরে রূপান্তরিত হয়েছে ঢাকা। যেখানে শহরের গাড়ির গতি প্রতি ঘন্টায় ১৮ থেকে ৩০ কিলোমিটার হওয়ার কথা, সেখানে ঢাকায় প্রতি ঘন্টায় ৬.৫ কিলোমিটার যাচ্ছে।

মূল প্রবন্ধে তিনি বলেন, গণ মানুষের জন্য গণ পরিবহনের ব্যবস্থা করতে হবে। এছাড়াও তথ্য প্রযুক্তির শতভাগ ব্যবহার করতে হবে। শহরের অনেক সিটি টিভি ক্যামেরা থাকলেও তার মাধ্যমে অপরাধী শনাক্ত করা যায় না। তাই উন্নত প্রযুক্তির ক্যামেরা ব্যবহার করতে হবে।

এফবিসিসিআই’র উদ্যোগের প্রশংসা করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতীয় স্বার্থে কাজ করছে বর্তমান সরকার। প্রযুক্তির যুগে বর্তমান সরকার প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহারে কাজ করবে। বৈঠক থেকে উঠে আসা সুপারিশগুলো রাজধানীসহ অন্যান্য শহরগুলোর অবকাঠামোগত উন্নয়নে সহায়তা করবে।

এফবিসিসিআইয়ের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ ফজলে ফাহিম বলেন, প্রযুক্তিকে ব্যবহারের মাধ্যমে বিদ্যমান অবকাঠামোকে কিভাবে আরো দক্ষ করে তোলা যায় তা খুঁজে বের করতে হবে। এছাড়াও নতুন কোনো অবকাঠামো গড়ে তোলার ক্ষেত্রে পরিকল্পনা ও নকশা প্রণয়নের সাথে প্রযুক্তিকে কার্যকরভাবে ব্যবহারের উপরও গুরুত্ব দেওয়া উচিত বলে মত দেন তিনি।

আর এক্ষেত্রে ব্যবসায়ীদের শীর্ষ সংগঠন এফবিসিসিআই সহায়কের ভূমিকা পালন করবে।

জেডএস/এএসটি

print
 

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ


আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad