ঝাঁকে ঝাঁকে ধরা পড়ছে ইলিশ (ভিডিও)

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ আগস্ট ২০১৭ | ৬ ভাদ্র ১৪২৪

ঝাঁকে ঝাঁকে ধরা পড়ছে ইলিশ (ভিডিও)

এ এম জসিম উদ্দিন, বরিশাল ব্যুরো ৭:২৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০১৭

print
ঝাঁকে ঝাঁকে ধরা পড়ছে ইলিশ (ভিডিও)

গভীর সমুদ্র এবং সমুদ্রের তীরবর্তী এলাকাসহ স্থানীয় নদীগুলোতে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে। অথচ দুইদিন আগেও সমুদ্রের তীরবর্তী এলাকাসহ স্থানীয় নদীগুলো ছিল একবারেই ইলিশশূণ্য। তবে এখন সর্বত্র ইলিশ ধরা পড়ায় জেলে ও ইলিশ ব্যবসায়ীদের মাঝে বইছে আনন্দের বন্যা। তেমনি কম দামে ইলিশ কিনতে পেরে খুশি ক্রেতারাও।

বরিশাল পোর্ট রোড মৎস আড়ৎ ঘুরে জানা গেছে, গত একমাস ধরে গভীর সমুদ্রে রুপালী ইলিশ ধরা পড়লেও স্থানীয় নদীগুলোতে ধরা পড়ছিল না। তবে দুই-তিন দিন ধরে সমুদ্রের তীরবর্তী এলাকাসহ স্থানীয় নদীগুলোতে প্রচুর ইলিশ ধরা পড়ছে। এখন গড়ে প্রতিদিন প্রায় হাজার মণ ইলিশ ক্রয়-বিক্রয় হচ্ছে।

কয়েকদিন ধরে আবহাওয়া অনুকুলে না থাকায় ফিসিং বোটগুলো মাছ বিক্রি করে ফের গভীর সমুদ্রে যেতে পারছে না। যেগুলো গভীর সমুদ্রে রয়েছে সেগুলোও ইলিশ ধরা বন্ধ করে উপকূল এলাকা মহিপুর, পাথরঘাটা ও চরফ্যাসন বেল্টে চলে আসতে শুরু করেছে। এতে বাজারে সমুদ্রের ইলিশের সংখ্যা কিছুটা কমে গেছে। ফলে মণপ্রতি ইলিশের দর ২-৩ হাজার টাকা বেড়েছে। তবে স্থানীয় নদীগুলোতে ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করলে আর ফিসিং বোটগুলো গভীর সমুদ্রে যেতে পারলে ইলিশের দাম কমবে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

বর্তমানে পোর্ট রোড ইলিশ মোকামে গোটলা (২৫০-৩০০ গ্রাম) সাইজের ইলিশ বিক্রি হচ্ছে মণপ্রতি ১৬ হাজার টাকায়, ভেলকা (৪০০-৫০০ গ্রাম) ইলিশ ২৪-২৫ হাজার টাকা, এলসি ( ৬০০-৯০০ গ্রাম) ইলিশ প্রতি মণ ৩৬ হাজার টাকা, ১ কেজি ২০০ গ্রামের ইলশের মণ প্রতি দর ৬৫ হাজার টাকা এবং দেড় কেজি ওজনের প্রতি মণ ইলিশ বিক্রি হচ্ছে ৯০ হাজার টাকায়।

গভীর সমুদ্র থেকে ইলিশ ধরে নিয়ে আসা ফিসিং বোটের জেলে মো. হানিফ শনিবার পরিবর্তন ডটকমকে জানান, সমূদ্রের তীর থেকে ১২-১৪ ঘন্টা ফিসিং বোট চালিয়ে সোনারচর ও বাইলারচর পেরিয়ে গভীর সমুদ্রে ঝাঁকে ঝাঁকে জালে ইলিশ ধরা পড়ছে। সেখানে হাজার হাজার বাংলাদেশি ও ভারতীয় ফিসিং বোট অবস্থান করে ইলিশ আহরণ করছে। তারা মোট ২২ জন জেলে চারদিন ধরে প্রায় ১শ মণ ইলিশ ধরে বরিশাল পোর্ট রোড মৎস বাজারে নিয়ে এসেছেন। ইলিশ বিক্রি বাবদ জনপ্রতি অন্তত ২০-২৫ হাজার টাকা করে পাবেন তারা।

সমুদ্র তীরবর্তী এলাকা থেকে ইলিশ ধরে নিয়ে আসা সোনারতরী ফিসিং বোটের মাঝি জয়নাল আবেদিন পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, বেশি ইলিশ ধরা পড়ছে গভীর সমুদ্রে। তবে সমুদ্রের তীরবর্তী এলাকায়ও ইলিশ ধরা পড়তে শুরু করেছে। গত ৪ দিনে তারা ১২ জন জেলে মিলে ২৫ মণ ইলিশ শিকার করতে পেরেছেন।

স্থানীয় মেঘনায় নদীতে ইলিশ শিকার করা জেলে রমিজ উদ্দিন জানান, গেল দুই মাস মেঘনা নদীসহ অন্যান্য নদীগুলোতে ইলিশ ধরা পড়ছিল না। তবে গত দুইদিন যাবত সব নদীতে ইলিশ পাওয়া যাচ্ছে।

নগরীর পোর্টরোড বাজারে ইলিশ ক্রয় করতে আসা মো. আরমান বলেন, কিছুদিন আগেও ইলিশের দাম করতে সাহস হতো না। এখন কম দামে ইলিশ কিনতে পেরে ভাল লাগছে।

বরিশাল পোর্ট রোড মৎস আড়ৎদার মো. বাদশা মিয়া জানান, স্থানীয় নদীর ইলিশ গত দুইদিন ধরে বাজারে আসতে শুরু করেছে। তবে সাগরের ইলিশ বাজারে কমে যাওয়ায় মণপ্রতি ২-৩ হাজার টাকা দাম বেড়েছে।

বরিশাল মৎস আড়ৎদার সভাপতি অজিত কুমার দাস বলেন, আবহাওয়া অনুকুলে না থাকায় গভীর সমুদ্রে ইলিশ ধরা বন্ধ করে জেলেরা উপকূলের দিকে আসতে শুরু করেছে। ফলে স্থানীয় নদীতে ইলিশ ধরা পড়লেও এই মূহুর্তে দাম আর কমবে না।

এএমজেইউ/এসআই/এএসটি

print
 
nilsagor ad

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad