কচুরিপানা খেতে বলিনি, গবেষণা করতে বলেছি: পরিকল্পনামন্ত্রী
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০ | ২৬ চৈত্র ১৪২৬

কচুরিপানা খেতে বলিনি, গবেষণা করতে বলেছি: পরিকল্পনামন্ত্রী

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:১৮ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০

কচুরিপানা খেতে বলিনি, গবেষণা করতে বলেছি: পরিকল্পনামন্ত্রী

কচুরিপানা নিয়ে গবেষণা করতে বলার বিষয়টিকে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়েছে মন্তব্য করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান।

মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) বৈঠক শেষে সাংবাকিদদের তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমি এই বাংলার মানুষ। আমি কীভাবে কচুরিপানা খাওয়ার কথা বলি! তাহলে আমি কি কচুরিপানা খাই আপনারাই বলুন!

তিনি বলেন, গবেষণা তো কত কিছু নিয়েই করা যায়। আমি শুধু কচুরিপানা নয়, কাঁঠাল ছোট করার বিষয়েও আমার গবেষকদের গবেষণা করতে বলেছি।

এমএ মান্নান বলেন, বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় রূপান্তর কৃষিতেই হয়েছে। ওখান থেকে অন্যান্য ক্ষেত্রে ছড়িয়ে পড়েছে। কৃষিসহ অন্য ক্ষেত্রে গবেষণা আরও বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছি।

এরপর হাসতে হাসতে রসিকতা করে আমি গবেষকদের বললাম, আর কচুরিপানার কিছু করা যায় কিনা দেখেন। পাশ থেকে একজন গবেষক বললেন, কচুরিপানা গরু খায় স্যার। তখন গবেষকদের কচুরিপানা নিয়ে গবেষণা করতে বলেছি। আমি আবারও বলছি, কাউকে (কচুরিপানা) খাওয়ার জন্য বলিনি, যোগ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী।

মন্ত্রী আরও বলেন, থাইল্যান্ডের মানুষ পেয়ারা থেকে বিচি উঠিয়ে দিয়েছে, আমরা খাচ্ছি না আরামছে? আমাদের এখানে তা সম্ভব না? সেই প্রেক্ষিতে আমি বলছিলাম গবেষণা আরও বেশি করে করেন। কাঁঠাল নিয়ে গবেষণা করেন।

মন্ত্রী বলেন, কচুরিপানার ফুলতো আমি নিজে খেয়েছি। বেসনে ডুবিয়ে মা ভাজতো। এগুলো খুব মিস করি।

এর আগে গতকাল সোমবার দুপুরে এনইসি-২ সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে হাস্যরস করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, কচুরিপানাকে খাওয়ার উপযোগী করা যায় কিনা, দেখেন। গরু তো খায়, গরু খেতে পারলে আমরা কেন পারবো না। গবেষণা করে তাদের জন্য হলেও পুষ্টি বাড়ানো যায় কি না, তা দেখা যাক।

ওএস/এসবি

 

জাতীয়: আরও পড়ুন

আরও