৪ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৬

ঢাকা, রবিবার, ২৪ জুন ২০১৮ | ১০ আষাঢ় ১৪২৫

৪ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৬

পরিবর্তন ডেস্ক ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ, মে ২৪, ২০১৮

print
৪ জেলায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ৬

চার জেলায় পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ছয়জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে কুমিল্লায় দুইজন, ফেনীতে দুইজন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় একজন ও নারায়ণগঞ্জে একজন নিহত হয়েছেন। বুধবার গভীর রাতে ও বৃহস্পতিবার ভোরে এসব ঘটনা ঘটে।

পুলিশের দাবি, নিহতরা সবাই মাদক ব্যবসায়ী ছিলেন।

আমাদের প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

কুমিল্লা: পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আরো দুই মাদক ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন। বুধবার গভীর রাতে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের আমানগন্ডায় এবং চৌয়ারায় এ দুটি ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন— কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের বাবুল মিয়া ওরফে লম্বা বাবুল ও কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার রাজিব।

বাবুল মিয়া চৌদ্দগ্রাম উপজেলার বৈদ্দেরখিল গ্রামের মৃত হাফেজ আহাম্মদের ছেলে এবং রাজিব সদর দক্ষিণ উপজেলার কোটবাড়ি সংলগ্ন চাঙ্গিনী গ্রামের মৃত শাহ আলমের ছেলে।

পুলিশ জানায়, নিহত দুইজনই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী এবং একাধিক মামলার আসামি।

চৌদ্দগ্রাম পুলিশ জানায়, মাদকবিরোধী অভিযানের অংশ হিসেবে বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে পৌর এলাকার রামরায় এলাকা থেকে তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী বাবুল মিয়া ওরফে লম্বা বাবুলকে আটক করা হয়। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদে তিনি জানান, তার একটি মাদকের চালান উপজেলার আমানগন্ডা এলাকায় রয়েছে।

থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল ফয়সাল জানান, রাত ১টার দিকে মাদক ব্যবসায়ী বাবুল মিয়াকে নিয়ে আমানগন্ডার নতুন রাস্তার মাথার মন্তাজের বাগানে অভিযানকালে বাবুলের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়।

এ সময় পুলিশও আত্মরক্ষায় পাল্টা ২৩ রাউন্ড গুলি চালায়। উভয় পক্ষের গোলাগুলির এক পর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ী বাবুল ছাড়াও থানার এসআই মোজাহের, কনস্টেবল মিজান ও ফরিদ আহত হয়। আহত বাবুলকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পর ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি জানান, ঘটনাস্থল থেকে একটি এলজি এবং ২০০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি জানান, নিহত বাবুলের বিরুদ্ধে মাদক আইনে ৫টি মামলা রয়েছে।

অপরদিকে, কুমিল্লার সদর দক্ষিণ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. নজরুল ইসলাম জানান, মাদকবিরোধী বিশেষ অভিযান চলাকালে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে রাত সোয়া ২টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম পুরাতন ট্যাংক রোডের চৌয়ারা বাজার সংলগ্ন গোয়ালমথন এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এ সময় মাদক ব্যবসায়ীরা একটি প্রাইভেটকারে মাদকদ্রব্য নেয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছিল।

পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ী রাজিব (২৫) ও তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। এ সময় আত্মরক্ষায় পুলিশও ১৭টি রাউন্ড গুলি চালায়।

এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন মাদক ব্যবসায়ী রাজিব। পরে হাসপাতালে নেয়ার পর চিকিৎসক তকে মৃত ঘোষণা করেন।

জানা গেছে, রাত দুইটা পঞ্চান্ন মিনিটে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আনা হয় সদর দক্ষিণ উপজেলার মাদক ব্যবসায়ী রাজিবকে। তাকে নিয়ে আসেন সদর দক্ষিণ উপজেলার এসআই শাহিদুল ইসলাম ও সঙ্গীয় ফোর্স। ডাক্তার পরীক্ষা নিরীক্ষা করে নিশ্চিত হন রাজিবও মৃত।

উল্লেখ্য, মাদকবিরোধী অভিযানে এ পর্যন্ত কুমিল্লায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৫ জন নিহত হয়েছেন।

ফেনী: ফেনীর ফুলগাজীতে পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে শাহমিরন শামীম ও মনির নামে দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার ভোরে উপজেলার সীমান্তবর্তী জাম্বুড়া এলাকায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, তাদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে ফুলগাজী থানায় ১০টিরও অধিক মাদকের মামলা রয়েছে।

ফুলগাজী থানার অফিসার ইনচার্জ হুমায়ুন কবীর জানান, বৃহস্পতিবার ভোর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সীমান্তবর্তী জাম্বুড়া এলাকায় অভিযান চালায় পুলিশ। এসময় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা গুলি ছোড়ে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছুড়লে দুই মাদক ব্যবসায়ী আহত হয়।

তিনি জানান, পরে তাদের আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ফেনী আধুনিক সদর হাসপাতালে পাঠানো হলে সেখানে তাদের মৃত্যু হয়। ঘটনাস্থল থেকে ২শ’ বোতল ফেনসিডিল ও ৭শ’ পিস ইয়াবা, একটি পিস্তল ও একটি কার্তুজ উদ্ধার করা হয়।

নিহত শাহমিরন শামীম ফুলগাজীর আনন্দপুর ইউনিয়নের মাইজ গ্রামের মোহাম্মদ মোস্তফার ছেলে। আর মজনু মিয়া ওরফে মনির সদর ইউনিয়নের মনতলা গ্রামের মৃত ফটিক মিয়ার ছেলে।

ঘটনার সময় ৮ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন। এসময় মাদক ও অস্ত্র উদ্ধার করা হয় বলে দাবি করেছেন পুলিশ কর্মকর্তা হুমায়ুন কবীর।


ব্রাহ্মণবাড়িয়া:
ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে আমির খাঁ (৪০) নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বুধবার দিবাগত রাত ২টার দিকে উপেজলার ধরখার ইউনিয়নের বনগজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আমির উপজেলার উত্তর ইউনিয়নের চাঁনপুর গ্রামের এলাকার মৃত সুরুজ খাঁর ছেলে।

পুলিশের দাবি, আমিরের বিরুদ্ধে হত্যা, মাদক ও বিশেষ ক্ষমতা আইনে ১২টি মামলা রয়েছে।

কসবা-আখাউড়া সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. আব্দুল করিম জানান, পুলিশ গোপনে জানতে পারে রাতে উপজেলার বনগজ স্টিল ব্রিজ এলাকা দিয়ে একটি মাদকের চালান যাবে। এ তথ্যের ভিত্তিতে ওই এলাকায় মাদকবিরোধী অভিযান চালানো হয়।

এ সময় আগে থেকে ওৎপেতে থাকা আমির খাঁ ও তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোঁড়ে। এ সময় গুলিতে আমির খাঁর মৃত্যু হয়।

তিনি জানান, গোলাগুলিতে পুলিশের এক সহকারী উপ-পরিদর্শক ও ২ জন কনস্টেবল আহত হয়েছেন। তাদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে ১টি পাইপগান, ১টি কাতুর্জ, ১টি রামদা, ১০ কেজি গাঁজা ও ৮টি কফ সিরাপ পাওয়া গেছে।

তিনি আরো জানান, সকালে আমির খাঁর পরিবারের সদস্যরা তার লাশ সনাক্ত করেছেন। তার বিরুদ্ধে আখাউড়া থানায় ১টি হত্যা, ৯টি মাদক ও ২টি বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা রয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ: নারায়ণগঞ্জে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ফেন্সি সেলিম নামে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। বুধবার গভীর রাতে সিদ্ধিরগঞ্জের দক্ষিণ নিমাইকাসারী ক্যানেলপাড় বজলুখানের খালি জায়গায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে।

এসময় আহত হয়েছে থানা পুলিশের তিন পরিদর্শকসহ ৬ জন।

পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি একনলা বন্দুক, একটি সুইসগিয়ার, পাঁচ বোতল ফেনসিডিল, প্রায় ৫’শ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে।

পুলিশে জানায়, নিহত সেলিম নিমাইকাসারী বাঘমারা এলাকায় আবুল কাশেম ওরফে গাঞ্জা কাশেমের ছেলে। আর কাশেম এলাকায় গাজার ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ করে। সেলিমের মা মর্জিনা বেগমও মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত। সেলিমের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১৫টি মাদক মামলা রয়েছে।

আহতরা হলেন— সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুস সাত্তার, পরিদর্শক (তদন্ত) নজরুল ইসলাম, পরিদর্শক (অপারেশন) আজিজুল হক, এসআই ইব্রাহিম পাটোয়ারি, কনস্টেবল জাহাঙ্গীর ও সাইদুল।

সিদ্ধিরগঞ্জ থানার ওসি আব্দুস সাত্তার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ফেন্সি সেলিমকে মাদক বিক্রির সময় হাতেনাতে ধরতে মৌচাক এলাকায় অভিযান চালানো হয়। এসময় সেলিম ও তার সহযোগিরা পুলিশের ওপর গুলি শুরু করে। রাত আড়াইটা থেকে প্রায় ৩০ মিনিট তাদের সঙ্গে পুলিশের গুলিবিনিময় হয়। এসময় ঘটনাস্থলেই সেলিম নিহত হয় ও পুলিশের ছয়জন আহত হয়েছেন। আহত সকলেই খানপুর হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।

এসবি

আরো পড়ুন...
গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার, পাশেই পিস্তল-ফেন্সিডিল
ফেনীতে পুলিশের সাথে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ মাদক ব্যবসায়ী নিহত
কুমিল্লায় আটকের পর একজন, অভিযানে আরেকজন গুলিতে নিহত
মাগুরা ও সাতক্ষীরায় গুলিবিদ্ধ ৩ ব্যক্তির লাশ উদ্ধার
আখাউড়ায় কথিত বন্দুকযুদ্ধে নিহত ১

 
.




আলোচিত সংবাদ