ঐতিহাসিক স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবস আজ

ঢাকা, শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

ঐতিহাসিক স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবস আজ

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ১:১৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৮

print
ঐতিহাসিক স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবস আজ

আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি। ঐতিহাসিক স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবস। ১৯৮৩ সালের এই দিনে বৈষম্যমূলক শিক্ষানীতি বাতিল ও গণতান্ত্রিক অধিকার পুনঃপ্রতিষ্ঠায় তৎকালীন স্বৈরাচারী সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামা ছাত্র-জনতার রক্তে লাল হয়েছিল ঢাকার রাজপথ।

গণগ্রেফতারে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছিলেন দেড় হাজারেরও বেশি শিক্ষার্থী। এ ঘটনা পরবর্তী সময়ে রাজনৈতিক দলগুলোকে ঐক্যবদ্ধ করে স্বৈরাচারী এরশাদের পতন অনিবার্য করে তোলে। শুরুর দিকে যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন করা হলেও জাতীয় ইতিহাসের গুরুত্ববহ এই দিনটি সময়ের বিবর্তনে এখন সবাই ভুলতে বসেছে।

গণ-আন্দোলনের মুখে ১৯৯০ সালে এরশাদের স্বৈরাচারী যুগের অবসান হলেও এর বীজ বপন হয়েছিলো তারও ৭ বছর আগে। সামরিক সরকারের রক্তচক্ষুকে উপেক্ষা করে ১৯৮৩ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি রাজপথে নামেন স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া হাজার হাজার শিক্ষার্থী।

মজিদ খান শিক্ষানীতি বাতিলসহ ৩ দফা দাবিতে এই দিনে সকাল ১১টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বের হয়ে শিক্ষার্থীদের বিশাল মিছিল যায় সচিবালয়ের দিকে। মিছিলটি কার্জন হল সংলগ্ন হাইকোর্ট মোড়ে পৌঁছানো মাত্রই পুলিশ বাহিনী আকস্মিকভাবেই শিক্ষার্থীদের ওপর হামলা চালায়।

কিছু বুঝে ওঠার আগেই টিয়ারশেল, জলকামান আর লাঠিপেটার পাশাপাশি মুর্হূমুহূ চলতে থাকে গুলি। এ ঘটনায় একাধিক নিহতের খবর পাওয়া গেলেও ছাত্রনেতা জয়নাল ছাড়া আর কারো লাশের হদিস পাওয়া যায়নি।

দিনটিকে 'স্বৈরাচার প্রতিরোধ দিবস' ঘোষণা করে পরের বছর থেকেই বিশেষ গুরুত্বের সাথে পালন শুরু করে দেশের রাজনৈতিক সব দল। কিন্তু সময়ের বিবর্তনে দিনটি এখন অনেকেই ভুলতে বসেছেন।

কেইবিডি/আরপি

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad