সোয়া লাখ হাজির অগ্রিম ইমিগ্রেশন নিশ্চয়তা চেয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৬

সোয়া লাখ হাজির অগ্রিম ইমিগ্রেশন নিশ্চয়তা চেয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

সৌদি আরব প্রতিনিধি ১১:২৭ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ০৯, ২০২০

সোয়া লাখ হাজির অগ্রিম ইমিগ্রেশন নিশ্চয়তা চেয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী

বাংলাদেশ থেকে ঢাকায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে কমপক্ষে এক লাখ ২৫ হাজার হাজির অগ্রিম ইমিগ্রেশনের নিশ্চয়তা চেয়েছেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।

সৌদি সরকারের হজ ও উমরা বিষয়ক ডেপুটি মন্ত্রী ড. হোসাইন নাসের আল শরীফের সঙ্গে বৈঠকে ‘রুট টু মক্কা ইনিশিয়েটিভ’র আওতায় অগ্রিম ইমিগ্রেশন পাওয়া হাজির সংখ্যা ৫৫ হাজার থেকে বাড়ানোর বিষয়ে এ নিশ্চয়তা চান তিনি।

শনিবার এ বৈঠকে বাংলাদেশ সরকারের পক্ষে নেতৃত্ব দেন ধর্ম সচিব নুরুল ইসলাম।

এছাড়া অন্যদের মধ্যে বৈঠকে হজ বিষয়ে সার্বিক ব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন বিষয়ে কথা বলেন যুগ্ম সচিব হজ আমিন উল্লাহ নূরী ও মক্কা বাংলাদেশ হজ মিশনের কাউন্সিলর মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান।

বৈঠকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম শতবার্ষিকী উপলক্ষে উন্নত ও শ্রেষ্ঠ হজ ব্যবস্থাপনা উপহার দেয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন ধর্ম সচিব নুরুল ইসলাম।

বাংলাদেশ থেকে জেদ্দা সফরে যাওয়া ধর্ম প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহর নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলটি সৌদি সরকারের হজ বিষয়ক উচ্চ পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের মধ্য দিয়ে ব্যস্ত সময় পার করেন।

প্রতিনিধি দলটি ডেপুটি হজ মন্ত্রী ছাড়াও বৈঠক করেন জেদ্দার কিং আবদুল আজিজ ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট’র ডিজি মিস্টার মারওয়ান এবং ইউনাইটেড এজেন্ট অফিসের চেয়ারম্যান সাহার আল মাতারের সাথে।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে ধর্ম সচিব মুজিববর্ষ উপলক্ষে উন্নত ও শ্রেষ্ঠ হজ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিতকরণে বাংলাদেশি হাজিদের ফেরার পথে জেদ্দা বিমানবন্দরে হাজিদের কষ্ট লাঘবে অপেক্ষকাল কমিয়ে আনার জন্য বিমানবন্দর ব্যবস্থাপনায় সর্বোচ্চ সংখ্যক লোকবল নিয়োগের পরামর্শ দেন।

এছাড়া মক্কা-মদিনা শহর থেকে সিটি চেক-ইনের মাধ্যমে হাজিদের লাগেজ বুঝে নেয়া, ঢাকা বিমানবন্দরে থেকে সব হাজির ইমিগ্রেশন নিশ্চিত করতে ৭২ ঘণ্টা আগেই অনলাইনে হাজিদের তথ্যাদি সৌদি আরবে পাঠানো বাধ্যতামূলক করা, সৌদি সরকার কর্তৃক এ বছর নতুনভাবে প্রবর্তন করা হাজিদের জন্য ইনস্যুরেন্সের খরচ কমানো বিষয়েও আলোচনা হয় বৈঠকে।

ধর্ম সচিব আশা করেন, এর মাধ্যমে বাংলাদেশের হজ ব্যবস্থাপনা দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে সর্বাত্মকভাবে কাজ করবে।

সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সৌদি সরকারের সঙ্গে হজ বিষয়ে অংশগ্রহণমূলক কার্যক্রমের নিশ্চয়তার মাধ্যমে উন্নত ও সুষ্ঠু হজ ব্যবস্থাপনা উপহার দেয়া সম্ভব বলে তিনি মন্তব্য করে।

এইচআর

 

প্রবাস: আরও পড়ুন

আরও