খালেদার মুক্তির দাবিতে বেলজিয়াম বিএনপির গণস্বাক্ষর কর্মসূচি

ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ | ১১ আষাঢ় ১৪২৫

খালেদার মুক্তির দাবিতে বেলজিয়াম বিএনপির গণস্বাক্ষর কর্মসূচি

বিশেষ প্রতিনিধি ৫:৪৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ০২, ২০১৮

print
খালেদার মুক্তির দাবিতে বেলজিয়াম বিএনপির গণস্বাক্ষর কর্মসূচি

বেলজিয়াম বিএনপির নেতারা বলেছেন, শুধু প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে সাজানো মামলায় কারাগারে পাঠিয়েছে সরকার।

বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাতে (১ মার্চ) ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের সদর দফতর ব্রাসেলসে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি বেলজিয়াম শাখার উদ্যোগে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি উদ্বোধন উপলক্ষে এক প্রতিবাদ সভার আয়োজন করা হয়।

বেলজিয়াম বিএনপির সভাপতি আহমদ সাজা মিয়ার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন বাবুর পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন সাংগঠনিক সম্পাদক আলী নুর শামীম, যুগ্ম সম্পাদক হারুন অর রশিদ, যুগ্ম সম্পাদক তাহশিক হক ওসমান, ধর্ম সম্পাদক আব্দুল বাতেন মার্টিন, প্রবাসী কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক আশিক উদ্দিন, বিএনপি নেতা সোহেল মিয়া, যুবদলের আহ্বায়ক কাজী রহিমুল বাবু, যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফ উদ্দিন ইরানী, যুগ্ম আহ্বায়ক ইসমাইল হোসাইন ফরহাদ প্রমুখ

বেলজিয়াম বিএনপির সভাপতি আহমদ সাজা বলেন, বর্তমান সরকার চায় খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে আবারও একতরফা ভোট করতে। আর সেজন্য রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক মামলায় তাঁকে সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছে।

বেলজিয়াম বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন বাবু বক্তব্যে বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে পুরান ঢাকার পরিত্যক্ত কারাগারে রাখা হয়েছে। যেখানে কোনো কয়েদি থাকে না। অথচ খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক ও অন্যায়ভাবে কারাগারে রাখা হয়েছে সাধারণ কয়েদির মতো। সরকার খালেদা জিয়াকে কারাগারে নিয়ে তাঁকে মানসিকভাবে কষ্ট দিচ্ছে। এর মাধ্যমে তাঁর ক্ষতি করতে পারেনি বরং তাঁর অবস্থান ও জনপ্রিয়তা বাড়িয়ে দিয়েছে। তিনি এখন দেশনেত্রী থেকে দেশের মানুষের মা হয়েছেন।

‘যারা গণতন্ত্রের শত্রু তারা খালেদা জিয়াকে শত্রু মনে করেন। কারণ তিনি দেশের হারিয়ে যাওয়া গণতন্ত্র স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে লাড়াই করে ফিরিয়ে এনেছেন। আর বর্তমান একদলীয় ক্ষমতাসীন ও সাবেক স্বৈরাচারের সমন্বয়ে গঠিত সরকারে প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী খালেদা জিয়া। তাই তাঁকে মিথ্যা মামলায় সাজা দিয়ে কারাগারে পাঠিয়েছে।’

বাবু বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে জনগণের মুক্তির আন্দোলন, গণতন্ত্রের আন্দোলন এগিয়ে নেবো।

এআরপি/এএল

 
.




আলোচিত সংবাদ