জুমআর নামায অনাদায়ে হাদীসে যে হুঁশিয়ারি উচ্চারিত
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২ জুন ২০২০ | ১৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

জুমআর নামায অনাদায়ে হাদীসে যে হুঁশিয়ারি উচ্চারিত

পরিবর্তন ডেস্ক ৬:১৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৫, ২০১৯

জুমআর নামায অনাদায়ে হাদীসে যে হুঁশিয়ারি উচ্চারিত

জুমআর নামায অত্যধিক গুরুত্বপূর্ণ। মহানবী (সা.) বলেন, “প্রত্যেক সাবালক পুরুষের জন্য জুমআয় উপস্থিত হওয়া ওয়াজিব।” (সুনানে নাসাঈ : ১৩৭১)

হযরত ইবনে মসউদ (রা.) কর্তৃক বর্ণিত, নবী (সা.) বলেন, “আমার তো ইচ্ছা হয় যে, এক ব্যক্তিকে লোকদের ইমামতি করতে আদেশ করি আর ঐ সকল লোকদের ঘরগুলো পুড়িয়ে দিয়ে আসি, যারা জুমআতে অনুপস্থিত থাকে।” (মুসলিম : ৬৫২)

সুবহানাল্লাহ, জুমআর নামায ছেড়ে দেওয়া কত বড় অপরাধ হলে রাসুলুল্লাহ (সা.) এভাবে ধমকি বাণী উচ্চারণ করতে পারেন!

শুধু এই নয়, হাদিস শরীফে আরও ইরশাদ হয়েছে, হযরত আবূ হুরাইরা (রা.) ও ইবনে উমার (রা.) কর্তৃক বর্ণিত, আল্লাহর রসূল (সা.) তাঁর মিম্বরের কাঠের উপর বলেছেন যে, “কতক সম্প্রদায় তাদের জুমুআহ ত্যাগ করা হতে অতি অবশ্যই বিরত হোক, নতুবা আল্লাহ তাদের অন্তরে অবশ্যই মোহ্‌র মেরে দেবেন। অতঃপর তারা অবশ্যই গাফেলদের অন্তর্ভুক্ত হয়ে যাবে।” (মুসলিম : ৮৬৫)

হযরত আবুল জা’দ যামরী (রা.) হতে বর্ণিত, রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেন, “যে ব্যক্তি বিনা ওজরে তিনটি জুমুআহ ত্যাগ করবে সে ব্যক্তি মুনাফিক।” (ইবনে খুযাইমাহ্‌; সহীহ ইবনে হিব্বান; সহিহ আত-তারগিব : ৭২৬)

হযরত জাবের বিন আব্দুল্লাহ্‌ (রা.) কর্তৃক বর্ণিত, তিনি বলেন, একদা নবী কারীম (সা.) জুমআর দিন খাড়া হয়ে খুতবা দানকালে বললেন, “সম্ভবত: এমনও লোক আছে, যার নিকট জুমুআহ উপস্থিত হয়; অথচ সে মদ্বীনা থেকে মাত্র এক মাইল দূরে থাকে এবং জুমআয় হাযির হয় না।” দ্বিতীয় বারে তিনি বললেন, “সম্ভবত: এমন লোকও আছে  যার নিকট জুমুআহ উপস্থিত হয়; অথচ সে মদ্বীনা থেকে মাত্র দুই মাইল দূরে থাকে এবং জুমআয় হাজির হয় না।” অতঃপর তৃতীয়বারে তিনি বললেন, “সম্ভবত: এমন লোকও আছে যে মদ্বীনা থেকে মাত্র তিন মাইল দূরে থাকে এবং জুমআয় হাজির হয় না তার হৃদয়ে আল্লাহ মোহ্‌র মেরে দেন।” (মুসনাদে আবূ ইয়া’লা, সহিহ আত-তারগিব : ৭৩১)

হযরত ইবনে আব্বাস (রা.) বলেন, “যে ব্যক্তি পরপর ৩ টি জুমুআহ ত্যাগ করল, সে অবশ্যই ইসলামকে নিজের পিছনে ফেলে দিল।” (সহিহ আত-তারগিব : ৭৩২)

রাব্বুল আলামিন আমাদেরকে যথাযথ গুরুত্বের সাথে জুমআর নামায আদায়ের তাওফিক দা করুন। আমীন।

এমএফ/

 

: আরও পড়ুন

আরও