আপন জুয়েলার্সের মালিকদের দুদকে তলব

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২১ নভেম্বর ২০১৭ | ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

আপন জুয়েলার্সের মালিকদের দুদকে তলব

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:০৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৬, ২০১৭

print
আপন জুয়েলার্সের মালিকদের দুদকে তলব

অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদ সেলিম, গুলজার আহমেদ ও আজাদ আহমেদকে তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক।

.

সোমবার দুদকের প্রধান কার্যালয় থেকে তাদেরকে তলবের চিঠি দেওয়া হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। 

এর ফলে চোরাচালানের মাধ‌্যমে প্রায় ১৫ মণ স্বর্ণালঙ্কার ও ডায়মন্ড আটকের ঘটনার পর এবার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দুদকের মুখোমুখি হতে হবে তাদের।

অনুসন্ধান কর্মকর্তা ও দুদক উপপরিচালক এসএম আখতার হামিদ ভূঞা সই করা চিঠিতে তাদেরকে আগামী ১৮ অক্টোবর দুদকে হাজির হতে বলা হয়েছে। এর আগে গত ৯ অক্টোবর তাদের বিরুদ্ধে সম্পদ বিবরণী নোটিস জারি করেছিল দুদক।

আপন জুয়েলার্সের মালিকদের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট অবৈধ সম্পদের অভিযোগের ভিত্তিতে কমিশন থেকে সম্প্রতি সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। একই সঙ্গে দুদকের উপপরিচালক এসএম আখতার হামিদ ভূঞাকে অনুসন্ধান কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়।

সম্প্রতি আপন জুয়েলার্সের স্বর্ণ কেলেঙ্কারির ঘটনার পর প্রতিষ্ঠানটির মালিকদের বিরুদ্ধে জ্ঞাতআয় বহির্ভূতভাবে সম্পদ অর্জনে দুর্নীতির বিষয়ে আইনি ব্যবস্থা নিতে শুল্ক গোয়েন্দা থেকে দুদকের কাছে চিঠি পাঠানোর পর দুদক কার্যক্রম শুরু করে।

গত ৮ জুন ও ১২ আগস্ট যথাক্রমে আপন জুয়েলার্সের বিরুদ্ধে দ্য কাস্টমস অ্যাক্ট-১৯৬৯ ও মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে ১০টি মামলা দায়ের করে শুল্ক গোয়েন্দা। চোরাচালানের মাধ্যমে প্রায় ১৫ মণ স্বর্ণালঙ্কার ও ডায়মন্ড আটকের পর কর নথিতে অপ্রদর্শিত ও গোপন রাখায় মামলাগুলো দায়ের করা হয়েছিল।

বনানীর একটি হোটেলে দিলদার হোসেন সেলিমের ছেলে সাফাত আহমেদ কর্তৃক বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রীকে ধর্ষণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে আপন জুয়েলার্সের পাঁচটি শোরুম থেকে প্রায় ১৫ মণ স্বর্ণ ও ডায়মন্ডের অলঙ্কার উদ্ধার করে। পরে এসব অলঙ্কার বাংলাদেশ ব্যাংকে জমা দেওয়া হয়।

এফএ/এমএসআই

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad