কয়েদিদের ২০ শতাংশই মাদক আইনে গ্রেফতার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ জুলাই ২০১৭ | ১৩ শ্রাবণ ১৪২৪

কয়েদিদের ২০ শতাংশই মাদক আইনে গ্রেফতার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১১:০২ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০১৭

print
কয়েদিদের ২০ শতাংশই মাদক আইনে  গ্রেফতার: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

জেলখানার কয়েদিদের মধ্যে ২০ শতাংশই মাদক আইনে গ্রেফতার হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। শুক্রবার বিকালে পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়ার ধূপখোলা মাঠে আয়োজিত মাদক ও সন্ত্রাসবিরোধী সমাবেশে তিনি এ তথ্য জানান। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) ওয়ারি বিভাগ এই সমাবেশের আয়োজন করে।

মন্ত্রী বলেন, আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলো থেকেই এ দেশে মাদক আসে। আমরা ফেনসিডিল আনা বন্ধে ভারতের সঙ্গে আলোচনা করেছি। আশা করছি তা বন্ধ করা সম্ভব হবে। কিন্তু আরেকটি মাদক আছে যেটা কিনা এখন অহরহ পাওয়া যাচ্ছে সেই ইয়াবা আসে  মিয়ানমার থেকে। তারা তা বন্ধের আশ্বাস দিলেও প্রকৃতপক্ষে কোন শক্ত পদক্ষেপ নেয়নি। তাই বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিজেদের মধ্যে সমন্বয় করে এগুলো প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, জেলের কয়েদিদের ২০ শতাংশই মাদক আইনে গ্রেফতার। তাই আমাদের ছেলে মেয়েদের নষ্ট হতে দেয়া যাবে না। তাদের রক্ষা করতে হবে। ঐশির মতো অনেক মাদকসেবী পথ হারিয়েছে। এমন যাতে আর না হয় সেজন্য আমাদের একটি সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। 

সন্তানরা কি করে সেটি লক্ষ্য রাখার জন্য অভিভাবকের প্রতি আহবান জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা জঙ্গি পুরোপুরি দমন করতে পারিনি তবে নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি। যারা ৭৫'এর পর থেকে রগকাটার রাজনীতি করেছে তারাই বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জঙ্গি সংগঠনের জন্ম দিয়েছে। হুজি, জেএমবি, আনসারুল্লাহ বাংলাটিম, নব্য জেএমবি এগুলো সব একই সূত্রে গাঁথা। এসব জঙ্গিরা বিদেশ থেকে আসেনি, এরা আইএস না। এগুলো দেশিয় ও আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের অংশ। দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করার জন্যই এ চক্রান্ত করা হচ্ছে। 

তিনি বলেন, আমরা সারা দেশ খুঁজেও আইএস বা আল কায়দার কোনো অস্তিত্ব পাইনি। অথচ প্রতিটি ঘটনার পরই একটি বিদেশি সাইট এসব ঘটনার সঙ্গে আইএস ও আল কায়দার সংযোগ আছে বলে বিবৃতি দিচ্ছে। আসলে এটি একটি নতুন পাঁয়তারা। এখন বিশ্বের কোথাও গেলে মুসলিমদের আলাদা লাইনে দাঁড় করায়। বিশ্বে একটি প্রবাদ লক্ষ্য করা যায় 'অল হিউম্যান আর নট টেরোরিস্ট, বাট অল টেরোরিস্ট আর মুসলিম।' এটা চিন্তার বিষয়। ছোট ছেলে মেয়েরা তেমন কিছুই জানেনা কিন্তু আরেকজনের কথায় বেহেশত লাভের আশায় তারা এ ধরণের কাজ করছে।

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন পুলিশের মহাপরিদর্শক একেএম শহীদুল হক, ঢাকা-৬ আসনের সংসদ সদস্য কাজী ফিরােজ রশীদ, ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য হাবিবুর রহমান মোল্লা, ঢাকা-৪ আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসানাত ও সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ। 

পিএসএস/এমডি

print
 

আলোচিত সংবাদ