প্রধানমন্ত্রীর বহরে মোটরসাইকেল চালিয়ে ধরা পড়া যুবক ‘কান কাটা রমজান’

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর ২০১৭ | ৩ কার্তিক ১৪২৪

প্রধানমন্ত্রীর বহরে মোটরসাইকেল চালিয়ে ধরা পড়া যুবক ‘কান কাটা রমজান’

প্রীতম সাহা সুদীপ ৫:৩১ অপরাহ্ণ, মে ১৯, ২০১৭

print
প্রধানমন্ত্রীর বহরে মোটরসাইকেল চালিয়ে ধরা পড়া যুবক ‘কান কাটা রমজান’

রাজধানীর শিক্ষাভবনের ঠিক উল্টোদিক দিয়ে গত মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গাড়িবহর যাচ্ছিল। এ সময় হঠাৎ প্রচণ্ড গতিতে মোটরবাইক চালিয়ে বহরের দিকে যাওয়ার চেষ্টা করে এক যুবক। তাকে থামানোর জন্য সার্জেন্ট সিগন্যাল দেয়। না থামায় লাথি দিয়ে ওই যুবককে বাইকসহ রাস্তায় ফেলে দিয়ে আটক করা হয়।

শাহবাগ পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে তার পরিচয় গোপন করে ভুল ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে পুলিশকে বিভ্রান্ত করতে থাকে। জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে পুলিশ জানতে পারে তার ডাক নাম নয়ন হলেও অপরাধ জগতে সে ‘কান কাটা রমজান’ নামেই পরিচিত। তার বিরুদ্ধে ডাকাতি, ছিনতাই, মাদক, অবৈধ অস্ত্র বেচা-কেনাসহ সবুজবাগ থানায় অন্তত ১২টি মামলা রয়েছে।

শাহবাগ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাফর আলী পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, রমজানকে পুলিশ দীর্ঘদিন ধরেই খুঁজছিল। ওই ঘটনার পর তার বিরুদ্ধে মামলা করে তাকে আদালতে পাঠানো হয়। আদালত তার রিমান্ড মঞ্জুর করে। কেন কি উদ্দেশে সে প্রধানমন্ত্রীর বহরের দিকে যাচ্ছিল সে বিষয়ে তাকে রিমান্ডে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

সবুজবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কুদ্দুস ফকির পরিবর্তন ডটকমকে জানান, রমজানকে শাহবাগ থানা পুলিশ গ্রেফতার করেছে। তবে তার বিরুদ্ধে আমার থানায় অন্তত ১২টি মামলা রয়েছে।

রমজানকে যখন মঙ্গলবার শাহবাগ থানায় নেয়া হয় তখন নিজের ব্যক্তিগত কাজে সেখানে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের শিক্ষা ও পাঠচক্র বিষয়ক সম্পাদক গোলাম রব্বানী। সেখানে গিয়ে তিনি রমজানকে গ্রেফতারের বিষয়ে জানতে পারেন। বৃহস্পতিবার শাহবাগ থানা পুলিশকে ধন্যবাদ জানিয়ে নিজের ফেসবুক ওয়ালে একটি স্ট্যাটাস দেন এই ছাত্রলীগ নেতা।

স্ট্যাটাসে পুরো ঘটনার বর্ণনা দেয়ার পর গোলাম রব্বানী লিখেন, 'রমজানকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শাহবাগ থানায় আনা হলে শুরু থেকেই সে পরিচয় গোপন করে ভুল ও মিথ্যা তথ্য দিয়ে পুলিশকে বিভ্রান্ত করতে থাকে। তবে শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল হাসান ভাই, ওসি (অপারেশন) আবুল কালাম আজাদ ভাই ও তরুণ সাব-ইন্সপেক্টর শাহরিয়ার ভাই এর বুদ্ধিদীপ্ত জিজ্ঞাসাবাদ ও খোঁজখবর নেয়ার এক পর্যায়ে দুর্ধর্ষ এই অপরাধীর আসল পরিচয় বেরিয়ে আসে, পরে সবুজবাগ থানা পুলিশ এসেও তাকে কান কাটা রমজান বলে শনাক্ত করে। ব্যক্তিগত কাজে ঐ সময় শাহবাগ থানায় থাকায় এটুকু তথ্য মিলেছে।'

পিএসএস/এমডি

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad