কামরাঙ্গীরচরে শিশু গণধর্ষণ, হোতা গ্রেফতার

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৪ ফাল্গুন ১৪২৬

কামরাঙ্গীরচরে শিশু গণধর্ষণ, হোতা গ্রেফতার

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১:৪২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২০

কামরাঙ্গীরচরে শিশু গণধর্ষণ, হোতা গ্রেফতার

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে ১৩ বছরের শিশু গণধর্ষণের মামলার প্রধান আসামি রতনকে (১৮) গ্রেফতার করেছে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব-১০)।

শনিবার ভোরে সাভার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয় বলে জানিয়েছেন র‍্যাব-১০ এর কোম্পানি কমান্ডার (সিপিসি-৩) মেজর মোহাম্মদ আনিসুজ্জামান।

তিনি জানান, ওই ঘটনায় জড়িত আসামিদের এরই মধ্যে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। তবে ঘটনার পর থেকেই, মূল আসামি রতন আত্মগোপনে চলে যায়। আজ ভোরে তাকে সাভার থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পেশায় গাড়িচালক রতন কামরাঙ্গীরচরে ওই কিশোরীর পাশের বাসায়ই থাকতেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার কামরাঙ্গীরচরে ১৩ বছরের এক শিশুকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠে। ওই ঘটনায় ছয় জনের নাম উল্লেখ করে শিশুটির মা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেছেন।

শুক্রবার দুপুরে কামরাঙ্গীরচর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এবিএম মশিউর রহমান বলেন, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টা থেকে রাত ৮টার মধ্যে কামরাঙ্গীরচরের পূর্ব রসুলপুর এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবনের দ্বিতীয় তলায় ১৩ বছরের ওই শিশুকে গণধর্ষণ করা হয়। খবর পেয়ে পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে শিশুটিকে নিয়ে থানায় আসে।

ওসি মশিউর বলেন, শিশুটির শারীরিকভাবে প্রচন্ড অসুস্থ থাকায় তাকে দ্রুত ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়। পরে শিশুটির মা বাদী হয়ে ৬ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা করে। তাদের মধ্যে ৫ জন ওই ঘটনা ঘটিয়েছে। ওই ৫ জন ছাড়া অপর আসামি করা হয়েছে শিশুটির বান্ধবীকে। কারণ ওই মেয়ের মাধ্যমেই ওই ৫ জন ছেলের সাথে পরিচয় হয়েছিল ভিকটিমের।

এর আগে কামরাঙ্গীর চরে গণধর্ষণের ঘটনায় আরো ৫ জনকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।

গ্রেফতাররা হলেন- মোঃ হাসান (১৮), সিফাত (১৮), সবুজ (১৮), রনি (১৮) ও ভিকটিমের বান্ধবী (অপ্রাপ্ত বয়স হওয়ায় নাম প্রকাশ হলো না)।

পিএসএস/

 

আইন ও অপরাধ: আরও পড়ুন

আরও