নয় কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র জালিয়াতি, দম্পতি গ্রেফতার

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৪ ফাল্গুন ১৪২৬

নয় কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র জালিয়াতি, দম্পতি গ্রেফতার

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১:৩৮ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২০

নয় কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র জালিয়াতি, দম্পতি গ্রেফতার

প্রায় নয় কোটি টাকার সঞ্চয়পত্র জালিয়াতির অভিযোগে এক দম্পতিকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গ্রেফতাররা হলেন- এইচএমএ বারিক ওরফে বাদল ওরফে বাদল হাওলাদার ওরফে মোস্তাক আহমেদ ও তার স্ত্রী মুরশিদা আফরীন।

শনিবার সিআইডির প্রধান কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলেন এ তথ্য জানানো হয়।

এতে জানানো হয়, গত ৭ জানুয়ারি খুলনার খালিশপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই দম্পতিকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের জালিয়াতি চক্রে ২১ জন সদস্য রয়েছে। তারা দীর্ঘদিন ধরে জালিয়াতির মাধ্যমে ঢাকার কয়েকটি ব্যাংকে একই ব্যক্তির একাধিক নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে বিভিন্ন নাম-সর্বস্ব প্রতিষ্ঠান খোলেন। পরে ভুয়া সঞ্চয়পত্র ও এফডিআরের বিপরীতে নামে-বেনামে ঋণ নিয়ে ৮ কোটি ৬৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেন।  

সিআইডির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ফারুক হোসেন জানান, গ্রেফতার বারিক ও তার স্ত্রীর বিভিন্ন ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জালিয়াতির মাধ্যমে হাতিয়ে নেওয়া ২ কোটি টাকার সন্ধান পাওয়া গেছে।  এছাড়া তাদের নামে ঢাকার গুলশান-২ এ ১০০ কোটি টাকা মূল্যের একটি নয়তলা বাড়ি, উত্তরায় শত কোটি টাকা মূল্যের একটি ৬ তলা বাড়ি, উত্তরখান এলাকায় কোটি টাকা মূল্যের একটি দোতলা বাড়ি, একাধিক ফ্ল্যাট, গাড়ি ও জমির তথ্য পেয়েছে সিআইডি। গ্রেফতার মোস্তাক হাওলাদার একটি মামলায় আদালতের সাজা পরোয়ানাভুক্ত হয়ে ১৬ বছর পলাতক ছিল।

সিআইডি আরো জানায়, অভিযুক্ত মোস্তাক তার স্থায়ী ঠিকানার বসতবাড়ি বিক্রি করে কিছুদিন ভারত ও মালয়েশিয়াতে আত্মগোপন করেছিলেন। তিনি ২০১১ সালে দেশে ফিরে আবারও প্রতারণা শুরু করেন। ভুয়া সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে দুদক তার ও স্ত্রীর বিরুদ্ধে ২০০৪, ২০১১ ও ২০১৬ সালে ঢাকার গুলশান, ধানমণ্ডি, উত্তরা পশ্চিম ও মোহাম্মদপুর থানায় ৭টি মামলা দায়ের করে। সিআইডি মামলাগুলোর তদন্তভার গ্রহণ করে।

পিএসএস

 

আইন ও অপরাধ: আরও পড়ুন

আরও