আবরার হত্যায় দড়ি সরবরাহ করে মুজাহিদ
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

আবরার হত্যায় দড়ি সরবরাহ করে মুজাহিদ

আদালত প্রতিবেদক ৯:৫২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০১৯

আবরার হত্যায় দড়ি সরবরাহ করে মুজাহিদ

বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যা মামলায় বুয়েট ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত সদস্য মুজাহিদুর রহমান আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন।

পাঁচ দিনের রিমান্ড চলাকালে রোববার মুজাহিদুর রহমান আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হন।

এদিন বিকালে তাকে আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক (নিরস্ত্র) মো. ওয়াহিদুজ্জামান। তিনি আসামির জবানবন্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন।

ঢাকা মহানগর হাকিম নিভানা খায়ের জেসী মুজাহিদুরের জবানবন্দি রেকর্ড করেন। পরে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

আদালত সূত্র জানায়, যে দড়ি দিয়ে আবরারকে নির্যাতন করা হয়েছিল, সেটি সরবরাহ করে মুজাহিদ। বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মেহেদী হাসান রবিনের নির্দেশে সেই দড়ির ব্যবস্থা করেছিল মুজাহিদ। এই দড়ি ও স্টাম্প দিয়ে আবরারকে দুই দফায় বেধড়ক পেটায় ছাত্রলীগের নেতারা। এতেই পরে মারা যায় আবরার।

এর আগে গত ৮ অক্টোবর মুজাহিদুর রহমানের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

আবরার হত্যার ঘটনায় এ নিয়ে চারজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলোক জবানবন্দি দিল।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার বুয়েট ছাত্রলীগের বহিষ্কৃত উপ-সমাজসেবা সম্পাদক ইফতি মোশাররফ সকাল, শুক্রবার বহিষ্কৃত ক্রীড়া সম্পাদক মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন এবং গতকাল শনিবার বহিষ্কৃত তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অনিক সরকার আদালতে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি দেন।

গত ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের দ্বিতীয় তলার সিঁড়ি থেকে অচেতন অবস্থায় আবরার ফাহাদকে উদ্ধার করা হয়। ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় ১৯ জনকে আসামি করে সোমবার সন্ধ্যায় চকবাজার থানায় একটি হত্যা মামলা করেন আবরারের বাবা বরকত উল্লাহ।

এমআই/এসবি

 

 

: আরও পড়ুন

আরও