মাতৃগর্ভে শিশু গুলিবিদ্ধ: বাদি পক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণ আজ

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

মাতৃগর্ভে শিশু গুলিবিদ্ধ: বাদি পক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণ আজ

মাগুরা প্রতিনিধি ২:১৩ পূর্বাহ্ণ, জুন ২০, ২০১৭

print
মাতৃগর্ভে শিশু গুলিবিদ্ধ: বাদি পক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণ আজ

মাগুরায় মাতৃগর্ভে শিশু গুলিবিদ্ধ ও আবদুল মোমিন ভূইয়া নামে এক ব্যক্তি নিহত হওয়ার চাঞ্চল্যকর ঘটনায় দায়েরকৃত মামলাটির সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হচ্ছে ২০ জুন মঙ্গলবার। মাগুরার অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ সৈয়দ আরাফাত হোসেনের আদালতে এদিন মামলার বাদি পক্ষের সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য রয়েছে।

গত ৮ মে সোমবার দেশব্যাপি আলোচিত এই মামলার বাদি পক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীর সময়ের আবেদনের প্রেক্ষিতে ২০ জুন মামলার পরবর্তী দিন ধার্য করা হয়। 

মামলার সরকার পক্ষের আইনজীবী সৈয়দ ফিরোজুর রহমান জানান, গতদিন মামলার বাদি রুবেল ভূইয়া ছাড়াও মাতৃগর্ভে গুলিবিদ্ধ শিশু সুরাইয়া তার বাবা বাচ্চু ভুইয়া এবং মা নাজমা খাতুনের সঙ্গে আদালতে হাজির হয়েছিল। আসামিদেরও আদালতে হাজির করা হয়। কিন্তু তদন্তকারী কর্মকর্তা মামলার মূল নথির সঙ্গে সাক্ষীদের ১৬১ ধারায় দেওয়া জবানবন্দি সংযুক্ত না করায় আদালত ওইদিন বাদির সাক্ষ্যগ্রহণ না করে নতুন দিন ২০জুন ধার্য করেন।

২০১৫ সালের ২৩ জুলাই বিকালে মাগুরা শহরের দোয়ারপাড় এলাকায় টেন্ডার, চাঁদাবাজি এবং এলাকায় আধিপত্য বিস্তারের ঘটনা নিয়ে যুবলীগ কর্মী মেহেদি হাসান আজিবর এবং সাবেক ছাত্রলীগ সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল ভূইয়া সমর্থিত ক্ষমতাসীন দলের দুটি পক্ষের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। ওই সময় ওই এলাকার বাসিন্দা বাচ্চু ভূইয়ার অন্তঃস্বত্ত্বা স্ত্রী নাজমা বেগম গুলিবিদ্ধ হন। এতে নাজমার শরীর ভেদ করে সাড়ে সাত মাসের গর্ভস্থ শিশুর হাতের মুঠি, কাঁধ ছুয়ে ডান চোখের পাশে মাথায় আঘাত করে। সফল অস্ত্রপচারের মাধ্যমে মা ও শিশুকে রক্ষা করা গেলেও সে সময় গুরুতর আহত আবদুল মোমিন ভূইয়া ঘটনার একদিন পর মারা যান।

মাগুরার চাঞ্চল্যকর এই ঘটনায় জেলা ছাত্রলীগের তৎকালীন সহ-সভাপতি সেন সুমন সহ ১৬ জনকে আসামি করে ঘটনার তিনদিন পর নিহত মোমিন ভূইয়ার ছেলে রুবেল ভূইয়া মাগুরা থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

পুলিশ মামলার অভিযুক্ত সকল আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেছে। এছাড়া অভিযুক্তদের মধ্যে যুবলীগ কর্মী পরিচয়ের মেহেদি হাসান আজিবর ঘটনার পর ১৮ আগস্ট পুলিশের ক্রস ফায়ারে মারা যায়।

এবিএ/এএস

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad