ঝরা ফুলের মতো নুইয়ে পড়েছে রাইসা
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ১০ এপ্রিল ২০২০ | ২৬ চৈত্র ১৪২৬

ঝরা ফুলের মতো নুইয়ে পড়েছে রাইসা

যশোর ব্যুরো ৬:০১ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২০

ঝরা ফুলের মতো নুইয়ে পড়েছে রাইসা

যে বয়সে রাইসার দুরন্তপনায় মেতে থাকার কথা, সেই বয়সে শিশুটি নুইয়ে পড়েছে ঝরা ফুলের মতো। কঠিন রোগে আক্রান্ত রাইসার বেদনার্ত চোখে বাঁচার আকুতি। সকলের সহযোগিতায় প্রাণ ফিরে পেতে পারে ফুটফুটে শিশুটি। সন্তানকে বাঁচাতে আঁচল পেতেছেন মা রেবেকা।

সাতক্ষীরার তালা উপজেলার পাটকেলঘাটা মির্জাপুর গ্রামের মশিয়ার রহমান ও রেবেকা বেগম দম্পতির একমাত্র সন্তান রাইসা খাতুন (৭)। বর্তমানে তারা যশোর শহরের কারবালা বামনপাড়া এলাকায় একটি বাড়িতে ভাড়া থাকেন।

জীবিকার তাগিদে রাইসার বাবা মশিয়ার একটি দোকানের বিক্রয়কর্মী। মা রেবেকা বেগম ছাত্রদের মেসে রান্না করেন।

রাইসার মা রেবেকা বেগম জানান, একমাত্র সন্তান রাইসাকে নিয়ে তাদের সংসার ভালোই চলছিলো। রাইসার বয়স যখন ৩ বছর তখনই জানা জানা যায় তার শরীরে বাসা বেঁধেছে নানান সংক্রামণ রোগ। প্রথম দিকে খুলনা মেডিকেল কলেজে চিকিৎসায় করালেও মেয়েকে পুরোপুরি সুস্থ করা যায়নি। মাত্র সাত বছর বয়সেই তার লিভার নষ্ট, মুত্রনালিতে সংক্রামন।

খুলনার চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, লিভার প্রতিস্থাপন ছাড়া রাইসাকে বাঁচানোর অন্য কোনো উপায় নেই। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে ভারতে নিয়ে যেতে হবে। তার চিকিৎসার জন্য ৬/৭ লাখ টাকা প্রয়োজন। কিন্তু দরিদ্র পিতা-মাতার পক্ষে এতো টাকা জোগাড় কোনোভাবেই সম্ভব নয়। রাইসার চোখেও তাই শূন্যদৃষ্টি। যেন মৃত্যুর জন্য অপেক্ষা।

রেবেকা বেগম আরও জানান, রাইসা মির্জাপুরে একটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রথম শ্রেণিতে পড়াশোনা করতো। অসুস্থ হওয়াতে একমাত্র মেয়েকে নিয়ে চিকিৎসা ও জীবিকার তাগিদে তারা এখন যশোর শহরে ভাড়া থাকেন। মেয়েকে বাঁচাতে এখন টাকা দরকার। তাই একমাত্র মেয়ের চিকিৎসার জন্য দেশের বিত্তবান, হৃদয়বান ব্যক্তিবর্গসহ সকল স্তরের মানুষের কাছে আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়িয়েছেন তিনি।

মানুষ মানুষের জন্য-সেই অর্থে রাইসাকে বাঁচাতে হবে। সামর্থানুযায়ী এগিয়ে আসা প্রয়োজন এক্ষুণি। তা না হলে সত্যিই একটা সম্ভাবনা চিরতরে হারিয়ে যাবে। সাহায্য পাঠানোর ঠিকানা-রাইসার বাবা মশিয়ার রহমান। নিজস্ব বিকাশ নাম্বার ০১৭৫৪-৪৩১৩৫৬।

আইআর/এএসটি

 

সমগ্রবাংলা: আরও পড়ুন

আরও