সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব দখলের ঘটনায় সদর থানায় জিডি
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ৬ জুলাই ২০২০ | ২১ আষাঢ় ১৪২৭

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব দখলের ঘটনায় সদর থানায় জিডি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি ৬:৩১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৯, ২০২০

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব দখলের ঘটনায় সদর থানায় জিডি

সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সম্পদ রক্ষা ও সাংবাদিকদের নিরাপত্তা দাবি করে সদর থানায় জিডি করেছেন সভাপতি আবু আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপী।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তারা এ জিডি করেন। জিডি নং ১৫২২।

জিডিতে এ দুই সাংবাদিক নেতা উল্লেখ করেন, গত ২২ জানুয়ারি দুপুর অনুমান ১টার দিকে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের কয়েকজন বিপথগামী সদস্যের নেতৃত্বে একদল বহিরাগত সম্পূর্ণ সন্ত্রাসী স্টাইলে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাব দখল করে নিয়েছে। তারা কার্যনির্বাহী কমিটির অফিস কক্ষের দরজা ভেঙে তছনছ করে।

জিডিতে আরও উল্লেখ করেন যে, গত ৪ জানুয়ারি সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভায় প্রেসক্লাবের ৭৫ জন সাধারণ সদস্যের মধ্যে ৬৯জন উপস্থিত ছিলেন। প্রেসক্লাব সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহমেদ বাপীর নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত সভায় সর্বসম্মতিক্রমে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের গঠনতান্ত্রিক বিধান অনুয়ারী ভোটার তালিকা চুড়ান্তকরণ, খসড়া নির্বাচনী তফশিল নির্ধারণ করা হয় ও নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য জেলা প্রশাসককে অনুরোধ জানানোর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

পরবর্তীতে গত ১৪ জানুয়ারি জেলা প্রশাসক নির্বাহী ম্যাজিস্টেট দেওয়ান আকরামুল হককে প্রধান এবং জেলা নির্বাচন অফিসার ও জেলা তথ্য অফিসারকে সদস্য করে তিন সদস্যের নির্বাচন কমিশন গঠন করেন। আগামী ৬ ফেব্রুয়ারি ওই নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হয়।

এরপর কোন কারণ ছাড়াই সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের ৭৫ জন সাধারণ সদস্যের মধ্যে গুটিকতক সদস্যের উপস্থিতিতে বহিরাগতদের নিয়ে ২২ জানুয়ারি দুপুরে প্রেসক্লাবের মত একটি প্রতিষ্ঠান সম্পূর্ণ সন্ত্রাসী স্টাইলে দখল করে নেওয়া হয়। আমরা জানতে পেরেছি, দখলকারীরা ইতোমধ্যে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের অফিসে রক্ষিত সদস্যদের প্রায় কোটি টাকার কয়েক শত এফডিআর, ব্যাংকের কাগজপত্র, প্রেসক্লাবের জমির দলিলপত্র, খাতাপত্র সম্পূর্ণ আত্মসাত করেছে এবং কিছু জিনিসপত্র নষ্ট করে ফেলেছে।

বিষয়টি জানতে পেরে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ ও সাধারণ সম্পাদক মমতাজ আহমেদ পৃথকভাবে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে মোবাইলে অবহিত করেন।

এসবি

 

: আরও পড়ুন

আরও