নড়াইলে ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে পানিতে ডুবে বোনেরও মৃত্যু
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৬ মে ২০২০ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

নড়াইলে ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে পানিতে ডুবে বোনেরও মৃত্যু

নড়াইল প্রতিনিধি ৭:৪৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৮, ২০১৯

নড়াইলে ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে পানিতে ডুবে বোনেরও মৃত্যু

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের বেলটিয়া  গ্রামে গোসল করতে গিয়ে পানিতে ডুবে ছোট ভাইকে বাঁচাতে গিয়ে বড়বোনেরও মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। মৃত দুজন আপন চাচাতো ভাইবোন বলে জানা গিয়েছে।

পুলিশ ও পরিবারের সদস্যরা জানিয়েছেন, শুক্রবার দুপুর ২টার দিকে সবার অজান্তে চাচাতো বোন তাবাসসুম(১৩) শিশু রাহাতকে (৭) নিয়ে বাড়ির পাশের পুকুরে গোসল করতে যায়। গোসলের সময় শিশু রাহাত পুকুরের পাড়ে বসা ছিল। হঠাৎ করে রাহাত পানিতে পড়ে যায়। সাথে সাথেই তাবাসসুম রাহাতকে উদ্ধার করতে যায়। এসময় রাহাত তাবাসসুমের গলা জড়িয়ে ধরলে দুজনই পানিতে তলিয়ে যায়।

দুজনের বাড়ি ফিরতে দেরী হওয়ায় তাদের খোঁজে পুকুর পাড়ে স্বজনরা জুতা দেখতে পায়। এরপর পানিতে খোঁজাখুজি করে দুজনের নিথর দেহ উদ্ধার করে। পরে লোহাগড়া উপজেলা শহরে একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে অনেক আগেই তাদের মৃত্যু হয়েছে বলে জানান চিকিৎসক বৈদ্যনাথ সাহা।

লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোকাররম হোসেন, জানান, ঘটনাটি শোনার পর আমি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পানিতে ডুবে মৃত্যুর ঘটনার সত্যতা যাচাই করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

নিহতরা বেলটিয়া গ্রামের শিক্ষক অহিদুর রহমানের কন্যা তাবাসসুম ও শিক্ষক আব্দুল হান্নানের ছেলে রাহাত। রাহাত স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিশু শ্রেণীর ছাত্র এবং তাবাসসুম চাঁচাই-ধানাইড় মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রী ছিল। তাদের মৃত্যুতে পরিবার, আত্মীয় স্বজন ও সহপাঠীসহ এলাকাবাসীর মাঝে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

এমকে/ এএস

 

: আরও পড়ুন

আরও