মাকে আর কোনোদিন ফোন দেবে না আলিফ

ঢাকা, সোমবার, ২৫ জুন ২০১৮ | ১১ আষাঢ় ১৪২৫

মাকে আর কোনোদিন ফোন দেবে না আলিফ

মো. জামাল হোসেন, খুলনা ৪:১৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ১৩, ২০১৮

print
মাকে আর কোনোদিন ফোন দেবে না আলিফ

নেপালের কাঠমান্ডুতে পৌঁছে মাকে ফোন দেয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু কাঠমান্ডুতে পৌঁছে মাটি স্পর্শ করার আগেই উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে না ফেরার দেশে চলে গেলেন খুলনার আলিফুজ্জামান আলিফ।

ছেলের মৃত্যুর খবর পাওয়ার পর থেকে মা মনিকা পারভীন বিলাপ করছেন। আর কোনোদিন তাকে মা বলে ডাকবে না।

‘কাঠমান্ডুতে পৌঁছে আমাকে ফোন দেয়ার কথা ছিল,’- এই বলেই মূর্ছা যাচ্ছেন ষাটোর্ধ্ব মনিকা

মঙ্গলবার সকালে খুলনার আলিফুজ্জামান আলিফের (৩০) রূপসার বাড়িতে গিয়ে দেখা যায়, স্বজনদের আহাজারিতে আশপাশের বাতাস ভারি হয়ে উঠেছে।

নিহতের বড় ভাই মো. আশিকুর রহমান হামিম বলেন, কেউই আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেনি। শুধুমাত্র খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুজ্জামান মনি সকালে বাড়িতে এসে আমাদের সান্ত্বনা দিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে আলিফের মৃতদেহ ফেরত চাই।

এ ব্যাপারে তিনি সরকারের জোরালো পদক্ষেপের দাবি জানান।

আলিফুজ্জামান আলিফ খুলনার রূপসা উপজেলার আইচগাতি গ্রামের বারোপূর্ণের মোড় সংলগ্ন জিরোপয়েন্ট মসজিদের বিপরীতে (আইচগাতি স্কুল রোড) মোল্লা মো. আক্তারুজ্জামানের ছেলে।

তিনি খুলনা বিএল কলেজ থেকে এবার মাস্টার্স পরীক্ষা দিয়েছেন। একইসঙ্গে তিনি বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদ কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি এবং মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড খুলনা জেলা শাখার তথ্য ও প্রচার সম্পাদক ছিলেন। পাশাপাশি তিনি ঠিকাদারী ব্যবসার সঙ্গেও সম্পৃক্ত ছিলেন।

৩তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় পরিবারের সঙ্গেই থাকতেন অবিবাহিত আলিফ। ঘরে ঢুকতেই চোখ পড়ে আলিফের ছোট চাচা মো. বাবর আলীর দিকে। আদরের ভাইপোর শোকে মূহ্যমান তিনি। একাধারে কেঁদেই চলেছেন, আর আলিফের সঙ্গে তার বিভিন্ন স্মৃতির কথা আওড়াচ্ছেন।

তিনি বলেন, ‘আমাকে আর কে চাচা বলে ডাকবে, আমার বুকের মানিক তুই কেন নেপালে গেলি।

আলিফের খালাতো বোন রাহিমা আক্তার শান্ত জানান, মঙ্গলবার সকাল ৮টার ফ্লাইটে তার খালু শাহাবুর রহমান নেপালের উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছেন। তিনি পৌঁছানোর পরই তারা সঠিক তথ্য জানতে পারবেন।

তিনি জানান, বিমান দুর্ঘটনার খবর শোনার পর আলিফের অসুস্থ বাবা আরও অসুস্থ হয়ে পড়েছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, আলিফ স্থানীয় বেলফুলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে এসএসসি এবং খুলনার আহসান উল্লাহ কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষা পাস করেন।

এরপর ২০০৭ সালে তিনি কাজের সন্ধানে সৌদিতে যান। সেখান থেকে ২০১০ সালে ফিরে ফের খুলনা সিটি কলেজে ভর্তি হয়ে ডিগ্রি পরীক্ষা দেন। সর্বশেষ তিনি খুলনার বিএল কলেজ থেকে মাস্টার্স পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছিলেন।

আলিফের বড় ভাই মো. আশিকুর রহমান হামিম বলেন, আলিফের বন্ধুরা নেপালে চলমান বাণিজ্য মেলায় স্টল দিয়েছে। সেখানে বেড়াতে যাওয়ার জন্যই আলিফ ৪ দিনের সফরে নেপাল যায়। কিন্তু দুর্ঘটনার পর থেকে তাদের সুখের সংসারে অমানিশার অন্ধকার নেমে এসেছে।

উল্লেখ্য, সোমবার ১২টা ৫০ মিনিটে ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ইউএস-বাংলার উড়োজাহাজ কাঠমান্ডুর উদ্দেশে রওনা হয়।

এরপর বিমানটি কাঠমান্ডুর ত্রিভুবন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিধ্বস্ত হয়। এতে চার ক্রুসহ ৭১ জন আরোহী ছিলেন। এরমধ্যে কমপক্ষে ৫০ জন আরোহী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ২১ জন।

এসবি

আরো পড়ুন...
বিধ্বস্ত বিমানের যাত্রী রুয়েটের শিক্ষিকা, স্বামী হাসপাতালে
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্ত, বহু হতাহতের আশঙ্কা
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা ফ্লাইটে আগুন
যান্ত্রিক ক্রুটিতেই ইউএস বাংলা বিমান দুর্ঘটনা
কাঠমান্ডুতে ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্ত, নিহত ৭
বিধ্বস্ত বিমানের ৩৮ আরোহী নিহত: এএফপি
প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায় ইউএস-বাংলা বিমান বিধ্বস্তের মুহূর্ত
বিধ্বস্ত বিমানে ছিলেন রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজের অনেক শিক্ষার্থী
বিমানের জানালা ভেঙে প্রাণে বাঁচলেন যে যাত্রী
‘মা জেনে যাবে, তাই বাসার ডিশ লাইন কেটে দিয়েছি’
‘মানুষ পুড়ছে, আর্তনাদের সঙ্গে সঙ্গে মেঝেতে পড়ে যাচ্ছিল’
এবার আর সূর্যোদয় দেখা হলো না সাংবাদিক ফয়সালের
পলাশের ভাগ্যে কী হয়েছে এখনো জানে না পরিবার
‘রানার কর্মকর্তা রিমন আর নেই, জানেন না বাবা’

 
.




আলোচিত সংবাদ