অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

ঢাকা, শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

যশোর ব্যুরো ৭:১৭ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৮

print
অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

যশোরের চৌগাছায় অবসরপ্রাপ্ত এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রথম শ্রেণিতে পড়া এক ছাত্রীকে (৭) যৌন হয়রানি করার অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার দুপুরে অভিযুক্ত শিক্ষক আবদুল মজিদের বিরুদ্ধে চৌগাছা থানায় অভিযোগ দিয়েছেন ভিকটিমের বাবা।

অভিযুক্ত আব্দুল মুজিদ উপজেলা দূর্গাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত সহকারী শিক্ষক ও বর্ণি গ্রামের বাসিন্দা।

ভিকটিমের বাবা লিখিত অভিযোগে জানান, “আমার মেয়ে এলাকার একটি প্রি-ক্যাডেট স্কুলের প্রথম শ্রেণির ছাত্রী। অভিযুক্ত আব্দুল মুজিদ প্রায়’ই আমার বাড়িতে আসত মেয়েটিকে পড়ানোর উদ্দেশ্যে। কিন্তু অসৎ চরিত্রের হওয়ায় আমি তার কাছে প্রাইভেট পড়াতে দেইনি। সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার সময় আমি বাড়ি না থাকার সুযোগে বাড়িতে ঢুকে আমার স্ত্রীকে বলেন তোমার মেয়েকে পড়াতে এসেছি। তিনি না করে দিলেও ‘আমি দুই-তিন মিনিট পড়া দেখিয়ে দিয়ে চলে যাব’ বলে বাচ্চার পড়ার ঘরে গিয়ে পড়াতে থাকেন আবদুল মুজিদ।”

এক পর্যায়ে আমার স্ত্রীর বাবার বাড়ি থেকে ফোন আসলে তিনি বাইরে বের হন। কিছুক্ষণের মধ্যেই আমার মেয়ের চিৎকার শুনে ঘরে গিয়ে দেখেন আব্দুল মুজিদ ঘরে নেই এবং আমার মেয়ে কান্নাকাটি করছে। মেয়ের কাছে কান্নার কারন জানতে চাইলে সে বলে, ‘স্যার আমার গোপনাঙ্গে হাত দিয়েছে, আমি চিৎকার করলে স্যার আমার গলা চেপে ধরে এবং বলে এ বিষয়ে তোর বাবা-মাকে বললে তোকে মেরে ফেলব।’

ঘটনায় অভিযুক্ত আব্দুল মুজিদ অভিযোগ অস্বীকার করে বলেছেন, ‘তারা প্রাইভেট পড়াতে বলায় আমি প্রাইভেট পড়াতে যাই। তাদের সাথে পূর্ব বিরোধের জেরে আমাকে ফাঁসানো হচ্ছে। আমার মানহানি করা হচ্ছে। আমি কোর্টে এসেছি। এবিষয়ে আইনী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।’

এ বিষয়ে চৌগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার শামীম উদ্দিন বলেন, ‘আমি ভিকটিমের সাথে কথা বলেছি। গায়ে হাত দেয়ার সত্যতা পাওয়া গেছে। এ বিষয়ে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।’

আইআর/এফবি/এএসটি

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad