বাড়তি সময় পেয়ে উচ্ছ্বসিত বিক্রেতা, ছাড়ে খুশি ক্রেতারা

ঢাকা, শনিবার, ২৬ মে ২০১৮ | ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫

বাড়তি সময় পেয়ে উচ্ছ্বসিত বিক্রেতা, ছাড়ে খুশি ক্রেতারা

কামরুল হিরন ৮:৫৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৩০, ২০১৮

print
বাড়তি সময় পেয়ে উচ্ছ্বসিত বিক্রেতা, ছাড়ে খুশি ক্রেতারা

বাড়তি সময় পেয়ে উচ্ছ্বসিত বাণিজ্য মেলায় অংশ নেয়া বিক্রেতারা। আর শেষ সময়ে তাদের দেয়া বাড়তি ছাড়ে আনন্দিত ক্রেতারাও। তাই মঙ্গলবার প্রায় প্রতিটি স্টলেই উপচেপড়া ক্রেতার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

তীব্র শীতের কারণে মেলার শুরুতে ক্রেতা-দর্শনার্থী কম হওয়ায়, ব্যবসায়ীদের আবেদনের প্রেক্ষিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় মেলার সময় বাড়িয়েছে চার দিন। অর্থাৎ চার ফেব্রুয়ারি রোববার পর্যন্ত চলবে এই মেলা। যার মাঝে রয়েছে দুই দিন সাপ্তাহিক ছুটি।

এতে উচ্ছ্বসিত বিক্রেতারা বলছেন, মেলার প্রথমার্ধে বেচাবিক্রিতে যে মন্দাভাব ছিল, তা এই বাড়তি সময়ে কাটিয়ে ওঠা সম্ভব হবে।

শেষ সময়ে তাই বেচাকেনা বাড়াতে বিক্রেতারা দিচ্ছেন নানান ছাড়। এতে ক্রেতারাও তাদের প্রয়োজনীয় পণ্য অল্প দামে কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন মেলার স্টল আর প্যাভিলিয়নগুলোতে।

বাড়তি বিক্রয়কর্মী নিয়োগ দিয়েও ক্রেতার চাপে যেন দম ফেলার সময় পাচ্ছেন না বিক্রেতারা।

এমন ব্যস্ততার মাঝেই বিক্রমপুর ক্রকারিজের ব্যবস্থাপক মোবাশ্বের আলী বললেন, হাতে ৪ দিন সময় পাওয়ায় আমরা অত্যন্ত খুশি হয়েছি। কারণ প্রথম দিকে ক্রেতা সংকটে মেলায় অংশ নেয়া কোনও ব্যবসায়ীই আশানুরূপ ব্যবসা করতে পারেননি। প্রথমার্ধের পর শীতের তীব্রতা কমতে থাকলে ক্রেতা-দর্শনার্থীরাও বাড়তে থাকে, সেই সঙ্গে বাড়তে থাকে বেচাবিক্রিও। তারপরও আমরা (বিক্রেতারা) চিন্তায় ছিলাম, বিনিয়োগ উঠবে কি না এই ভেবে। কিন্তু মন্ত্রণালয় বাড়তি সময় নির্ধারণ করায় সবাই এবার লাভের মুখ দেখব বলে আশা করছি।

এ প্রসঙ্গে ইপিবি সচিব (যুগ্ম-সচিব) ও বাণিজ্য মেলার পরিচালক আবু হেনা মোরশেদ জামান পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, পহেলা ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হচ্ছে বই মেলা। সে কথা বিবেচনা করে, ব্যবসায়ীরা ১০ দিন সময় চাইলেও বাণিজ্য মন্ত্রণালয় চার দিন সময় বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মঙ্গলবার মেলা প্রাঙ্গণ ঘুরে দেখা গেছে, প্রায় সব স্টলেই চলছে শেষ মুহূর্তের ছাড়। কেউ দিচ্ছে আখেরি অফার, কেউ ধামাকা অফার, কেউ গোল্ডেন অফার, আবার কেউ দিচ্ছে কাড়াকাড়ি অফার। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত মেলার প্রচার কেন্দ্র থেকে মাইকে বিভিন্ন স্টলের অফারগুলো প্রচার করা হচ্ছে।

আজিমপুর থেকে স্বপরিবারে মেলায় আসা জাফর ইকবাল বললেন, প্রতিবারই মেলার শেষ দিকে প্রায় সব পণ্যেই ছাড় দেওয়া হয়। তাই পরিবারকে নিয়ে এলাম সংসারের প্রয়োজনীয় কিছু কেনাকাটা করতে। কিন্তু জানতে পারলাম মেলার সময় বাড়ানো হয়েছে। এতে পরে আবারো আসার সুযোগ পেলাম।

রূপ টেক্সটাইল দিচ্ছে কাড়াকাড়ি অফার। এখানে ৭৫০ টাকার থ্রি পিস দেওয়া হচ্ছে ৬৫০ টাকায়, আবার একসঙ্গে ৩টা কিনলে তা ১৫০০ টাকায় দেওয়া হচ্ছে।

আপন টেক্সটাইলের ম্যানেজার মনিরুজ্জামান বলেন, আর মাত্র পাঁচ দিন বাকি। তাই থ্রি পিসে অফার দিচ্ছি। ৬০০ টাকা দামের ২ সেট থ্রি পিস কিনলে ১ সেট ফ্রি দিচ্ছি।

টিএস ফ্যাশন স্টলে ব্লেজারে শেষ সময়ে ছাড় দেওয়া হচ্ছে। প্রথম দিকে যে ব্লেজার ২২০০ টাকা ছিল, তা এখন দিচ্ছে ১ হাজার ৬৫০ টাকায়। আর মাতৃ ফ্যাশন ৩০০ টাকা ছাড়ে বিক্রি করছে ১ হাজার ৬০০ টাকা মূল্যের ব্লেজার।

বিদেশি প্যাভিলিয়ন-৫ এ ভারতের জম্মু কাশ্মীর থেকে আসা গার্মেন্টসামগ্রী বিক্রেতা জামিল আহমেদ বলেন, মালামাল যা এনেছিলাম তার প্রায় সবই বিক্রি হয়ে গেছে। তাই অবশিষ্ট যা আছে তা একটু কম দামেই দিয়ে দিচ্ছি।

বড় প্যাভিলিয়নগুলোতেও শেষ মুহূর্তের ছাড় লিখে টানানো হয়েছে ব্যানার ও ফেস্টুন।

ডিআইটিএফ সচিব আবদুর রউফ পরিবর্তন ডটকমকে বলেন, মেলার সময় বাড়াতে বিক্রেতার সঙ্গে ক্রেতারাও অনেক খুশি হয়েছে। ক্রেতার সংখ্যাই তা বলে দিচ্ছে।

কেএইচ/এএল

 
.

Best Electronics Products



আলোচিত সংবাদ