ফাইনাল আমরা খেলবোই : আশরাফুল

ঢাকা, সোমবার, ২৬ জুন ২০১৭ | ১২ আষাঢ় ১৪২৪

আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি

ফাইনাল আমরা খেলবোই : আশরাফুল

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৬:৩২ অপরাহ্ণ, জুন ১৪, ২০১৭

print
ফাইনাল আমরা খেলবোই : আশরাফুল

শুরুটা ভালো ছিল না। বড় রান করেও হার। দ্বিতীয় ম্যাচে বৃষ্টি এসে বাঁচিয়ে দেয়। ওখান থেকে ভাগ্যটাকে সাথে পায় টাইগাররা। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে দুর্দান্ত জয় তুলে নেওয়ায় ভাগ্যের চেয়ে বেশি অবদান অবশ্য ক্রিকেটীয় কৌশলের, নৈপুণ্যের। তবে ওই জয়ের পরও আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমি-ফাইনালে খেলতে ভাগ্যটা খুব দরকার ছিল।  অস্ট্রেলিয়ার বিদায়ে সেই অংকও মিলে যায়। এতো চড়াই উৎড়াই পেরিয়ে বৃহস্পতিবার স্বপ্নেরও ওপারের সেমি-ফাইনাল। সামনে ইতিহাসের আরেক হাতছানির ফাইনাল। বাংলাদেশের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল কোন এক বিশ্বাসে বলে ফেলেন, 'ফাইনাল আমরা খেলবোই।'

গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচে কিউইদের বিপক্ষে মাত্র ৩৩ রানে ৪ উইকেট হারিয়েছিল বাংলাদেশ। ভক্তদেরও বুক ভাঙে তখন। অনেকে মুখ ঘুরিয়ে নিলেন। কিন্তু নাটকের কতো বাকি! সাকিব আল হাসান ও মাহমুদউল্লাহ রেকর্ডভাঙা জুটি গড়লেন। দুজনই খেললেন মহাকাব্যিক সেঞ্চুরি ইনিংস। আরাধ্য জয় এসেছে। সব বাধা যেভাবে মাশরাফির দল দুরে ঠেলে এতোটা পথ এসেছে সেটাই আশার বীজ বুনে দিয়েছে আশরাফুলের বুকে। সবচেয়ে বড় স্বপ্নটার কথা যদিও বলছেন না এখনই। তবে তার ঠিক কাছে পৌঁছে যাচ্ছেন। 

বুধবার দুপুরে মুঠোফোনে আশরাফুলের সাথে যোগাযোগ করা হলো যখন ১০ মাসের মেয়ে আরিবাকে নিয়ে খুব ব্যস্ত তখন। মেয়ের বায়না মেটাতে তখন আর বাবা আশরাফুলের কথা বলা হয় না। কথা হয় আরো কিছুক্ষণ পর। অমিত প্রতিভাবান ক্রিকেটার তখন প্রবল ধী শক্তির বিশ্লেষক। আশরাফুল মনের বিশ্বাসটা টেনে আনেন কণ্ঠে, 'আমরা যেভাবে ক্রিকেট খেলছি সেভাবে খেললেই হবে। শেষ ম্যাচে জেতার পর আমাদের সব বাধা পার হয়ে গেছে। এখন কোন বাধাই আর আটকাতে পারবেনা। ফাইনাল আমরা খেলবোই।'

ফাইনালে খেলার বিশ্বাসটা এমনি এমনি তো আর জন্মায়নি। আশরাফুল যুক্তিটাও দিয়েছেন অকাট্য। তার দাবি, সেমি-ফাইনালে চাপে থাকবে ভারত। কারণ দলটি বর্তমান চ্যাম্পিয়ন। পাশাপাশি তাদের উপর প্রত্যাশার চাপও অনেক। অন্যদিকে এ ম্যাচে বাংলাদেশের কোনো কিছুই হারানোর নেই। যা পাবে তাই যোগ হবে প্রাপ্তির খাতায়। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাজে অবস্থা থেকে জয় পাওয়ার পর আত্মবিশ্বাসটা আরও বেড়েছে বলে মনে করেন আশরাফুল, 'যেভাবে আমাদের দল খেলছে... বিশেষ করে শেষ ম্যাচের পর আমার মনে হয় আমাদেরই জেতার সুযোগ বেশি। আর এই ম্যাচে ভারতই চাপ থাকবে। কারণ ওদের হারানোর অনেক কিছুই আছে। আর যা পাবো তাই আমাদের প্রাপ্তি।'

তবে জয়ের জন্য সেমির শুরু থেকেই আক্রমণাত্মক ক্রিকেট খেলার ওপর জোর দিলেন আশরাফুল। বোলিংয়ে শুরুতে তাসকিন আহমেদের সঙ্গে রুবেল হোসেনকে দেখতে চান। দুজনই ঘণ্টায় ১৪০ কিলোমিটার বেগে স্বাভাবিক বোলিংয়ে আতঙ্ক ছড়াতে জানেন। আর আগ্রাসী উইকেট নেওয়া বোলারও তারা। শুরুতেই তাই প্রতিপক্ষের উইকেট তুলে নিতে পারলে কাজটা পরে সহজ হবে বলে আশরাফুলের বিশ্লেষণ। তার ভাষায়, 'আমার মনে হয় কাল শুরু থেকেই একটু আক্রমণাত্মক হতে হবে। নতুন বলে যদি রুবেল আর তাসকিন বোলিং করে তাহলে খুব ভালো হয়। ওরা দুই জনই ১৪০ এর বেশি গতি দিয়ে বল করে। শুরুতে নতুন বলে যদি এমন জোরে দুইটা বোলার দিয়ে বল করানো যায়, যদি প্রথম ১০ ওভারে দুই তিনটা উইকেট নিতে পারে, তাহলে আমাদের জন্য সহজ হবে। শুরুতেই ওদের কোমর ভেঙে দিতে হবে।'

ব্যাটিংটা আগের মতোই চান আশরাফুল। কমপক্ষে দুইজন ব্যাটসম্যানকে বড় ইনিংস খেলতে হবে। তামিম ইকবালের সঙ্গে সাকিব-মাহমুদউল্লাহরা ফর্মে ফেরায় খুশি তিনি। পাশাপাশি তরুণরা এগিয়ে আসলে জয় বাংলাদেশেরই হবে, বিশ্বাস আশরাফুলের। তবে ওপেনিংয়ে সৌম্য সরকারের জায়গায় ইমরুল কায়েসকে খেলানোর পক্ষে সাবেক এ অধিনায়ক, 'ব্যাটিং আমাদের ভালো হচ্ছে। তামিম প্রথম থেকেই ভালো খেলছে। সাকিব-রিয়াদও ফর্মে এসেছে। মুশফিকও প্রথম ম্যাচ ভালো খেলেছে। ব্যাটিং ঠিক আছে। তবে তরুণ যারা আছে তারা ভালো খেললে কাজটা আরও সহজ হবে। আর সৌম্য ফর্মে নেই, ওর জায়গায় ইমরুলকে খেলালে ভালো হয়।'

গ্রুপপর্বের শেষ ম্যাচের আগে পরিবর্তনের কাছে আশরাফুল বলেছিলেন, এবার চার পেসার নেওয়া হোক। চার পেসার নিয়ে বাংলাদেশ দারুণ সাফল্যই পেয়েছে কার্ডিফে। সেমিপূর্ব এই বিশ্লেষণে আশরাফুল যে পরিবর্তনের কথা বলছেন তাও তো খুব যৌক্তিক। সেসব অদল বদল হোক চাই না হোক, শেষ পর্যন্ত আশরাফুলের বিশ্বাসকে সত্যি করে বাংলাদেশ দল ফাইনালে উঠলেই তো উন্মাতাল হবে ১৬ কোটি মানুষের এই ভূখণ্ড।

আরটি/ক্যাট

print
 

আলোচিত সংবাদ