এশিয়া কাপে ক্রীড়ালেখক সমিতির সেরা সিতুল

ঢাকা, সোমবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৮ | ৯ মাঘ ১৪২৪

এশিয়া কাপে ক্রীড়ালেখক সমিতির সেরা সিতুল

পরিবর্তন প্রতিবেদক, মওলানা ভাসানী জাতীয় হকি স্টেডিয়াম থেকে ৫:১৪ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২২, ২০১৭

print
এশিয়া কাপে ক্রীড়ালেখক সমিতির সেরা সিতুল

টানা তিনদিনের বৃষ্টির পর রোববার ঢাকার আকাশে সূর্যের দেখা মিলেছে। মওলানা ভাসানী হকি স্টেডিয়াম সেই সূর্যের আলো পেয়ে অপূর্ব রূপ ধারণ করেছে যেন। দশম এশিয়া কাপের ফাইনালের জন্য ঠিক আদর্শ এক মঞ্চ। সেই মঞ্চেই ভারত-মালয়েশিয়া ফাইনালের আগে একটি ট্রফি হাতে সবার সেলফির আবদার মিটিয়ে চলেছেন ফরহাদ আহমেদ সিতুল। বাংলাদেশ হকি দলের মিডফিল্ডারের চোখে-মুখে সুখী মানুষের প্রতিচ্ছবি। হবেই তো। বাংলাদেশ ক্রীড়া লেখক সমিতির দেওয়া টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার যে উঠেছে তার হাতে।

ক্রীড়ালেখক সমিতি বাংলাদেশে আয়োজিত যেকোন বড় আসরেই এমন পুরস্কার দিয়ে থাকে। যেকোন খেলোয়াড়ের জন্য যা পরম এক প্রাপ্তিও। রাজশাহীর ছেলে সিতুলও বেশ খুশি সমিতির ট্রফি হাতে পেয়ে, ‘আমি খুবই খুশি এরকম একটা অ্যাওয়ার্ড পেয়ে। আমার লাইফে প্রথম এই অ্যাওয়ার্ড। এটা আমি সারাজীবন মনে রাখবো। এবং যারা আমাকে এই স্বীকৃতি দিয়েছে তাদের সবাইকে ধন্যবাদ।’

ঘরের মাঠে ৩২ বছর পর আয়োজিত এশিয়া কাপে নিজেদের উজার করে দেওয়া প্রত্যয় ছিল স্বাগতিক খেলোয়াড়দের। লক্ষ্য ছিল অন্তত ষষ্ঠ হওয়ার। বাংলাদেশি খেলোয়াড়রা ষষ্ঠ স্থানে থেকেই শেষ করেছে। সেই হিসেবে সফল টিম বাংলাদেশ। তবে সার্বিকভাবে নিজেদের খেলা নিয়ে খুশি না সিতুল, ‘আমাদের টার্গেট ছিল ষষ্ঠ হওয়া। সেই লক্ষ্য পূরণ হয়েছে। তবে আমরা নিজেদের খেলা নিয়ে সন্তুষ্ট না। আমারা যে ধরণের প্রস্তুতি নিয়েছি বা যেমন খেলার ইচ্ছে ছিল সেটা পুরোপুরিভাবে করতে পারিনি। আমাদের সুযোগ ছিল জাপানের সাথে জিতে ৫ নম্বর হওয়ার। আমরা সেটাও হতে পারিনি।’

এরপরও সিতুল বলেন ষষ্ঠ হতে পেরে নিজেদের সন্তুষ্টি, ‘তবে আমরা পজিশন নিয়ে সন্তুষ্ট। কারণ অনেক সময় হয় যে আমরা একটুর জন্য ষষ্ঠ হতে পারি না। এবার সেটা পেরেছি।’ ঘরের মাঠের আসরে নিজের পারফরম্যান্স নিয়েও খুশি হতে পারছেন না সিতুল, ‘আমার নিজের পারফরম্যান্স নিয়েও আমি সন্তুষ্ট না। আমি চেষ্টা করছি দেশের জন্য খেলার। চেষ্টা করছি ভালো খেলার। তবে যতটুকু আশা ছিল ততোটুকু করতে পারিনি।’

২০১৩ সালে মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে প্রথম জাতীয় দলে অভিষেক সিতুলের। রাজশাহীর ছেলে সিতুল ২০০৭ সালে বিকেএসপিতে ভর্তি হন। ২০১৩ সালে বিকেএসপি থেকে বের হন সিতুল। বর্তমানে সার্ভিসেস টিম বাংলাদেশ নৌবাহিনীতে রয়েছেন তিনি। ২০১৩ সালে অভিষেকের পর জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ওয়ার্ল্ড হকি লিগ রাউন্ড-১, রাউন্ড-২, এশিয়ান গেম কোয়ালিফাইং, এশিয়ান কাপ, জুনিয়র এশিয়া কাপ এবং এবার দিয়ে দুটি এশিয়া কাপ।


টিএআর/ক্যাট

print
 
.

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad