বেরোবির কর্মকর্তাকে বকেয়া বেতন পরিশোধ করতে রুল

ঢাকা, সোমবার, ১৬ জুলাই ২০১৮ | ১ শ্রাবণ ১৪২৫

বেরোবির কর্মকর্তাকে বকেয়া বেতন পরিশোধ করতে রুল

বেরোবি প্রতিনিধি ১:৪৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৮

print
বেরোবির কর্মকর্তাকে বকেয়া বেতন পরিশোধ করতে রুল

বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৪ মাসের বকেয়া বেতন বঞ্চিত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলামকে তার প্রাপ্ত সকল বকেয়া বেতনাদি পরিশোধ করতে এবং পদোন্নতি দিতে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। একই সাথে ২০১৭ সালের ১৮ এপ্রিল ইউজিসি কর্তৃক ইস্যুকৃত বেতন স্থগিত রাখার চিঠিটি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে নোটিস জারি করেছে হাইকোর্ট।

রায় হাতে পাওয়ার চার সপ্তাহের মধ্যে শিক্ষা সচিব, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান, বিশ্ববিদ্যালয়টির উপাচার্য এবং রেজিস্ট্রারকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

এ ছাড়া ২০১৭ সালের ৩১ জুলাই ৪৪ মাসের বকেয়া বেতনাদি চেয়ে রফিকুল ইসলাম রেজিস্ট্রার বরাবর একটি আবেদন করেন। এই আদেশ পাওয়ার এক মাসের মধ্যে রেজিস্ট্রারকে তার আবেদনটি নিষ্পত্তি করার জন্য নির্দেশ প্রদান করা হয়েছে।

গত ৪ ডিসেম্বর এ সংক্রান্ত এক রিট আবেদনের শুনানি শেষে বিচারপতি মো. আশফাকুল ইসলাম ও কে এম কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ৪ জানুয়ারি রায়ের কপি পেয়েছেন রিটকারীর আইনজীবী। গতকাল সাংবাদিকরা এর কপি পান।

আদালতে রিট আবেদনকারীর পক্ষে শুনানি করেন অ্যাডভোকেট আরেফিন জুন্নুন।

তিনি বলেন, রফিকুল ইসলাম ২০১৩ সালের জানুয়ারি মাসে বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগদান করে নিয়মিত বেতন-ভাতা পেলেও পরবর্তীতে ২০১৩ সালের মে মাস থেকে ২০১৬ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত মোট ৪৪ মাসের বেতন-ভাতা পায়নি।

এই কারণে রফিকুল ইসলাম হাইকোর্টে একটি রিট মামলা করেন। রিট নং-১৫৫৬৬। ওই রিটের শুনানি শেষে আদালত এই আদেশ দেন।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মো. ইব্রাহীম কবীর বলেন, ‘৪৪ মাসের বকেয়া বেতন বঞ্চিত যারা আছেন তাদেরকে বেতন দেয়ার জন্য আমাকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছিল। কিন্তু দুদকের মামলা দেখিয়ে ইউজিসি থেকে একটি চিঠি আসার পর আমরা আর কোনো কাজ করতে পারিনি। তবে বিষয়টি পুনর্বিবেচনা করার জন্য আমরা ইউজিসির কাছে আবেদন করব। আর হাইকোর্টের রুল জারির নোটিস এখনো পাইনি।’

এমএ/আরপি

 
.



আলোচিত সংবাদ