ঢাবিতে শিবির সন্দেহে ৪ ছাত্রকে রাতভর নির্যাতন
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল ২০২০ | ২৬ চৈত্র ১৪২৬

ঢাবিতে শিবির সন্দেহে ৪ ছাত্রকে রাতভর নির্যাতন

পরিবর্তন প্রতিবেদক ৪:১২ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২২, ২০২০

ঢাবিতে শিবির সন্দেহে ৪ ছাত্রকে রাতভর নির্যাতন

ছাত্রশিবির সন্দেহে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের চার ছাত্রকে রাতভর নির্যাতন করে পুলিশে দিয়েছে ছাত্রলীগ।

মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হলের ‘গেস্টরুমে’ ওই শিক্ষার্থীদের নির্যাতন করা হয়।

নির্যাতিত চার ছাত্র হলেন— বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সানওয়ার হোসেন, টুরিজম অ্যান্ড হসপিটালিটি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী মো. মুকিম চৌধুরী, একই বর্ষের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষার্থী মিনহাজ উদ্দীন ও আরবি বিভাগের শিক্ষার্থী আফসার উদ্দীন।

জানা গেছে, রাত ১১টার দিকে শিবির সন্দেহে মুকিমকে ‘গেস্টরুমে’ নিয়ে ডেকে আনা হয়। এ সময় শহীদ সার্জেন্ট জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগ ও হল সংসদের সহসভাপতি (ভিপি) সাইফুল্লাহ আব্বাসী অনন্ত, হল শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আনোয়ার হোসাইন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমির হামজাসহ বেশ কয়েকজন নেতা মুকিমকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে থাকেন। মুকিমের সঙ্গে যোগাযোগ থাকায় আফসার, সানওয়ার ও মিনহাজকে গেস্টরুমে ডেকে আনা হয়।

জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে ছাত্রলীগের নেতারা তাদের চড়-থাপ্পড় মারতে থাকেন। একপর্যায়ে লাঠি, রড ও হাতুড়ি নিয়ে তাদের মারধর করা হয়। রাত দুইটা পর্যন্ত এই নির্যাতন চলে।

পরে হলের একজন আবাসিক শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল টিমের মাধ্যমে চার ছাত্রকে শাহবাগ থানায় সোপর্দ করেন ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা।

হল সংসদের ভিপি সাইফুল্লাহ আব্বাসী অনন্ত, হল শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি আনোয়ার হোসাইন ও যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমির হামজা সাংবাদিকদের বলেন, আমরা তাদের মারধর করেনি। শুধুমাত্র জিজ্ঞাসা করেছি। তাদের কাছ থেকে শিবিরের দুটি বই উদ্ধার করেছি।

এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, ওই শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে শৃঙ্খলাবিরোধী কাজে জড়িত থাকার বিষয়টি প্রমাণিত হয়, তাহলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অভিযোগের কোনো প্রমাণ না পাওয়া গেলে তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল হাসান সাংবাদিকদের বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোনো অভিযোগ না পাওয়ায় ওই চার ছাত্রকে জিজ্ঞাসাবাদের পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

ওএস/এসবি

 

শিক্ষাঙ্গন: আরও পড়ুন

আরও