ইবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, সম্পাদক গ্রেফতার

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৯ ফাল্গুন ১৪২৬

ইবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, সম্পাদক গ্রেফতার

ইবি প্রতিনিধি ৬:১৬ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২১, ২০২০

ইবি ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, সম্পাদক গ্রেফতার

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয় গ্রুপের প্রায় ৩০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

মঙ্গলবার শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব কর্মীদের নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশের চেষ্টা করলে পদবঞ্চিত গ্রুপের নেতাকর্মীদের সাথে এ সংঘর্ষ হয়।

এঘটনায় সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি রবিউল ইসলাম পলাশ ও সাধারণ সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিব তাদের নেতাকর্মী ও বহিরাগতদের নিয়ে ক্যাম্পাসে প্রবেশ করার চেষ্টা করেন। তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের থানা গেট এলাকা থেকে মিছিল নিয়ে সড়ক হয়ে প্রধান ফটকের দিকে এগুতে থাকেন। এসময় ক্যাম্পাসে অবস্থান করা পদবঞ্চিত গ্রুপের নেতাকর্মীরা মিছিল নিয়ে ফটকে আসলে উভয় গ্রুপের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে উভয় গ্রুপের নেতাকর্মীদের হাতে লাঠি, হকিস্টিকসহ দেশীয় অস্ত্র দেখা যায়। এসময় নেতাকর্মীরা তিনটি ককটেল বিস্ফোরণ করে। দুই গ্রুপের সংঘর্ষে রণক্ষেত্রে পরিণত হয় প্রধান ফটক এলাকা। সভাপতি ও সম্পাদকসহ উভয় গ্রুপের প্রায় ৩০ জন নেতাকর্মী আহত হয়। তাদের মধ্যে ৫ জনের অবস্থা গুরুতর। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসাকেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে কুষ্টিয়া মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে।

পরে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকে তালা দেয়। ফলে ক্যাম্পাস থেকে দুপুরের শিডিউলের কোনো বাস ছেড়ে যেতে পারেনি। একই সাথে কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করে। পরে বেলা আড়াইটায় অবরোধ তুলে নিলেও ফটক অবরোধ করে রাখে নেতাকর্মীরা।

এদিকে সংঘর্ষের ঘটনায় বেলা সাড়ে ৪টায় সম্পাদক রাকিবকে গ্রেফতার করে কুষ্টিয়া থানা পুলিশ।

পুলিশ সুপার তানভীর আরাফাত এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে সভাপতি-সম্পাদকের ক্যাম্পাসে আসার সংবাদ পেয়ে সকাল থেকে দলীয় টেন্টে অবস্থান নেয় পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা।

অন্যদিকে নেতাদেরকে গ্রহণ করতে ও নিরাপত্তা দিতে প্রধান ফটকে অবস্থান নেয় কয়েকজন নেতাকর্মী। বেলা ১১টার দিকে পদবঞ্চিত গ্রুপ মিছিল নিয়ে প্রধান ফটকে গিয়ে সভাপতি-সম্পাদক গ্রুপের নেতাকর্মীদের মারধর করে। এতে তিন জন আহত হয় ও বাকিরা পালিয়ে যায়।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রক্টর ড. আনিছুর রহমান বলেন, সকাল থেকেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টরিয়ার বডি তৎপর ছিল। এখন ক্যাম্পাসের পরিবেশ স্বাভাবিক রয়েছে। যে কোনো অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মাঠে রয়েছে।

এর আগে গত ১৪ এপ্রিল পলাশ-রাকিবকে সভাপতি সম্পাদক করে কমিটি দেয় কেন্দ্র। দেড়মাস না যেতেই ৪০ লাখ টাকায় কমিটিতে আসা নিয়ে সম্পাদক রাকিবের অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়। এরপর টাকা দিয়ে কমিটিতে আসাসহ বিভিন্ন অভিযোগে ক্যাম্পাসে সভাপতি ও সম্পাদককে অবাঞ্চিত ঘোষণা করে পদবঞ্চিত গ্রুপ। এরপর বিভিন্ন সময় ক্যাম্পাসে আসলে কর্মীদের ধাওয়ায় চার দফায় ক্যাম্পাস ছাড়ে সম্পাদক রাকিব।

এসবি

 

শিক্ষাঙ্গন: আরও পড়ুন

আরও