বিনা ভাড়ায় কেন্দ্রে যেতে পারবেন মাভাবিপ্রবি’র পরীক্ষার্থীরা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ জানুয়ারি ২০২০ | ১৬ মাঘ ১৪২৬

বিনা ভাড়ায় কেন্দ্রে যেতে পারবেন মাভাবিপ্রবি’র পরীক্ষার্থীরা

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ৫:৩৫ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ০৫, ২০১৯

বিনা ভাড়ায় কেন্দ্রে যেতে পারবেন মাভাবিপ্রবি’র পরীক্ষার্থীরা

টাঙ্গাইলের মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (মাভাবিপ্রবি) ভর্তি পরীক্ষা শুক্রবার ও শনিবার অনুষ্ঠিত হবে । পরীক্ষায় ভর্তিচ্ছুক ও তাদের অভিভাবকদের বিনা ভাড়ায় পরীক্ষার কেন্দ্রে পৌঁছে দেয়া হবে।

অভিনব এমন উদ্যোগ গ্রহণ করেছে টাঙ্গাইল জেলা অটোরিকশা, অটোটেম্পু ও সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়ন। ওই দুদিন দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নির্বিঘ্নে যাতায়াত নিশ্চিত করা হবে। শ্রমিক সংগঠনের পক্ষ থেকে এমন উদ্যোগ নেয়ার কথা জানিয়েছেন টাঙ্গাইল জেলা অটোরিকশা, অটোটেম্পু ও সিএনজি শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান আমিন।

তিনি বলেন, ইতোপূর্বে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছুক ছাত্র-ছাত্রীদের সময়মতো কেন্দ্রে পৌঁছাতে না পারাসহ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে না পারার সমস্যার কথা শোনা গেছে। পরীক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকদের জিম্মি করে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের ঘটনা ঘটেছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা পরীক্ষার্থী আর অভিভাবকদের এসব সমস্যা দূর করতে এ বছর ফ্রি পরিবহন সেবার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

এছাড়া বাস কোচ মিনিবাস মালিক সমিতির পক্ষ থেকে পরীক্ষার্থীদের জন্য ৬ টি বাস দেয়া হয়েছে। এই বাসে করে বিনামূল্য পরীক্ষার্থীরা যাতায়ারত করতে পারবেন বলে বাস কোচ মিনিবাস মালিক সমিতির মহাসচিব গোলাম কিবিরয়া বড়মনি জানান।

এ ছাড়া আবাসিক হোটেল ও খাবার হোটেলে নির্ধারিত মূল্যে, জেলার সকল মসজিদ, মন্দির, মিলনায়তন শিক্ষার্থীদের থাকার জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়েছে। শহরের বিভিন্ন স্থানে শিক্ষার্থীদের মোবাইল, ব্যাগ অন্যান্য জিনিসপত্র রাখার জন্য বিনামূল্যে বুথ থাকবে, শিক্ষার্থীদের জন্য পাঁচ শতাধিক সেবক নিয়োজিত থাকবে, শিক্ষার্থীদের জন্য মেডিকেল টিম প্রস্তুত করা হয়েছে। যানজট নিরসনে স্কাউট টিম থাকবে, শীত মোকাবিলায় কম্বল দেয়া হবে, শহরের সকল পাবলিক টয়লেট বিনামূল্যে ব্যবহার করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। এছাড়া পুলিশের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের প্রথমবর্ষ প্রথম সেমিস্টারের বিএসসি (ইঞ্জিনিয়ারিং), বিবিএ, বি.ফার্ম এবং বিএসসি (অনার্স) কোর্সের ভর্তি পরীক্ষায় চারটি ইউনিটের ১৬টি বিভাগে ৮১৫ টি আসনের জন্য মোট পরীক্ষার্থী ৬৫ হাজার ৩৬৬ জন। এমসিকিউ পদ্ধতিতে ৬ ডিসেম্বর শুক্রবার সকালে ‘এ’ ইউনিট মোট ২৬ টি কেন্দ্রে ও বিকালে ‘বি’ ইউনিট মোট ৩৪টি কেন্দ্রে এবং ৭ ডিসেম্বর শনিবার সকালে ‘সি’ ইউনিট মোট ১৪টি কেন্দ্রে ও বিকালে ‘ডি’ ইউনিট মোট ৯টি কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষার দিন পরীক্ষার্থীকে প্রবেশপত্রের রঙ্গিন দুইটি কপি ও এইচএসসি/ সমমানের মূল রেজিস্ট্রেশন কার্ড সঙ্গে আনতে হবে।

এবার প্রতি আসনে ৮০ জন শিক্ষার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে বলে বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে।

‘এ’ ইউনিটের তিনটি বিভাগে ১৭০ টি আসনের জন্য ২১ হাজার ৬১২ জন অর্থ্যাৎ প্রতি আসনে ১২৭ জন, ‘বি’ ইউনিটের ছয়টি বিভাগে ২৯৫ টি আসনের জন্য ২৫ হাজার ৯৫৫ জন অর্থাৎ প্রতি আসনে ৮৮ জন, ‘সি’ ইউনিটের চারটি বিভাগে ২৩০ টি আসনের জন্য ১০ হাজার ৭২৭ জন অর্থাৎ প্রতি আসনে ৪৭ জন এবং ‘ডি’ ইউনিটের তিনটি বিভাগে ১২০টি আসনের জন্য ৭ হাজার ৭২ জন অর্থাৎ প্রতি আসনে ৫৯ জন শিক্ষার্থী আবেদন করেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মো. আলাউদ্দিন বলেন, ভর্তি পরীক্ষাকে কেন্দ্র করে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতিসহ যেকোন ধরনের অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন সর্তক রয়েছে।

আসন বিন্যাসসহ ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ড ও ওয়েব সাইট থেকে জানা যাবে।

এ ব্যাপারে টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সঞ্জিত কুমার রায় বলেন, হোটেলগুলোতে জায়গা না পেয়ে যেসব শিক্ষার্থী ও অভিভাভকরা মসজিদ, মন্দির, মিলনায়তন থাকেবে এসব জায়গায় পুলিশের পক্ষ থেকে নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এএএন/জেডএস

 

ক্যাম্পাস: আরও পড়ুন

আরও