৫ দফা দাবিতে ঢাবির ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ
Back to Top

ঢাকা, সোমবার, ২৫ মে ২০২০ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭

৫ দফা দাবিতে ঢাবির ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

পরিবর্তন প্রতিবেদক ১:০৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ২৩, ২০১৯

৫ দফা দাবিতে ঢাবির ৭ কলেজের শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

পাঁচ দফা দাবিতে সড়ক অবরোধ করেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সরকারি সাত কলেজের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার সকাল ১০টায় ঢাকা কলেজের সামনে মানববন্ধন শুরু করে শিক্ষার্থীরা, যা নীলক্ষেত ও সাইন্সল্যাব পর্যন্ত ছড়িয়ে যায়। পরে নীলক্ষেত মোড়ে সড়ক অবরুদ্ধ করে রাখে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।

এ সময় তারা ‘গণহারে আর ফেল নয়, যথাযথ রেজাল্ট চাই’, ‘শিক্ষা কোনো পণ্য নয়, শিক্ষা নিয়ে ব্যবসা নয়’, ‘গণহারে ফেল, ঢাবি তোমার খেল’, ‘বন্ধ করো অনাচার, সাত কলেজের আবদার’, ‘নিচ্ছো টাকা দিচ্ছ বাশ, সময় শেষে সর্বনাশ’ ইত্যাদি স্লোগান দিয়ে বিক্ষোভ করতে থাকে।

শিক্ষার্থীদের পাঁচ দফা দাবিগুলো হলো- পরীক্ষা শেষ হওয়ার ৯০ দিনের মধ্যে ত্রুটিমু্ক্ত ফল প্রকাশ, একই বর্ষের সব বিভাগের ফল একত্রে প্রকাশ, গণহারে অকৃতকার্য হওয়ার কারণ প্রকাশসহ খাতা পুনঃমূল্যায়ন, সাত কলেজ পরিচালনার জন্য স্বতন্ত্র প্রশাসনিক ভবন, প্রতিটি বিভাগে মাসে দুই দিন করে অধিভুক্ত সাত কলেজে মোট ১৪ দিন ঢাবি শিক্ষকদের ক্লাস নেওয়া ও সেশন জট নিরসনের লক্ষ্যে অ্যাকাডেমিক ক্যালেন্ডার প্রকাশসহ ক্রাশ প্রোগ্রাম চালু করা।

তাবিরুল নামে আন্দোলনরত এক শিক্ষার্থী জানান, ঢাবি আমাদের যে মান অনুযায়ী পরীক্ষার খাতা মূল্যায়ন করে সেই মান অনুযায়ী ক্লাসে পড়ানো হয় না। এমনও বিষয় আছে পাঁচটির বেশি ক্লাস হয় না। নানা অজুহাতে ক্লাস বন্ধ থাকে।

আনোয়ার হোসেন নামে আরেক শিক্ষার্থী জানান, আমাদের সমস্যাগুলো নিয়ে কলেজের শিক্ষকদের কাছে গেলে উনারা বলেন, ঢাবি তোমাদের সব কার্যক্রম করছে, আর ঢাবির প্রশাসনিক ভবনে গেলে বলে সাত কলেজের শিক্ষকরা সভা করে সকল সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে। এভাবেই শিক্ষাথীরা দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হয়।

উল্লেখ্য শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে ২০১৭ সালের ১৬ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর ঢাকা কলেজ, ইডেন কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর বাঙলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ- এই সাত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) অধিভুক্ত করা হয়।

এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বর্তমানে অধ্যয়নরত আছেন আড়াই লক্ষাধিক শিক্ষার্থী।

একই বছর পরীক্ষার রুটিনের দাবিতে আন্দোলনে গিয়ে পুলিশের টিয়ারসেলে দুই চোখ হারায় তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী সিদ্দিকুর রহমান৷

পিএসএস/এআরই

 

: আরও পড়ুন

আরও