লজ্জাও পান মেসি!

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৭ | ৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৪

লজ্জাও পান মেসি!

পরিবর্তন ডেস্ক ৭:৪১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৪, ২০১৭

print
লজ্জাও পান মেসি!

অন্য গ্রহের ফুটবলার লিওনেল মেসি কাঁদতেও পারেন! এটা ফুটবল দুনিয়া প্রথম দেখেছে ২০১৬ সালে। কোপা আমেরিকার শতবর্ষী আসরের ফাইনালে টাইব্রেকারে চিলির কাছে আর্জেন্টিনা হেরে যাওয়ার পর কেঁদে ফেলেন মেসি। এবার জানা গেল তিনি লজ্জাও পান!

.

 

মেসির এই লজ্জা-পর্বের ঘটনার পেছনের পটভূমিও ওই ২০১৬ সালের কোপার শতবর্ষী আসরের ফাইনালে চিলির কাছে হার। যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির মেটলাইফ স্টেডিয়ামের ওই ফাইনালে হারের হতাশায় এতোটাই ভেঙে পড়েছিলেন যে, ক্ষোভে-দুঃখে অবসরের ঘোষণাই দিয়ে ফেলেন লিওনেল মেসি।

মাত্র ২৯ বছর বয়সেই মেসির মতো বিশ্বসেরা ফুটবলারের আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে বিদায়ের ঘোষণায় স্তম্ভিত হয়ে যায় ফুটবল দুনিয়া। পরে আর্জেন্টিনার প্রেসিডেন্ট থেকে শুরু করে ডিয়েগো ম্যারাডোনা, আর্জেন্টিনার মানুষসহ বিশ্বের ফুটবলবোদ্ধারা আহ্বান জানান মেসিকে সিদ্ধান্ত বদলানোর। ‘ভুল’ বুঝতে পেরে মেসিও ফেরার জন্য অস্থির হয়ে ওঠেন। কিন্তু অবসর থেকে ফেরার ইচ্ছার কথাটাই মুখে ফুটে বলতে পারছিলেন না। লজ্জা পাচ্ছিলেন!

৫ বারের ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলার মেসি নিজেই বলেছেন এই কথা। অবশ্য আর্জেন্টিনার তৎকালীন কোচ এদগার্দো বাউজা ও সতীর্থদের সহযোগিতায় সেই লজ্জা কেটেও যায় দ্রুত। ‘হুট’ করে নেওয়া অবসর থেকে তাই দ্রুতই ফিরে আসেন মেসি। বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীরা পেয়ে যায় আন্তর্জাতিক ফুটবলে মেসি-জাদু দেখার নতুন সুযোগ।

মেসি ফেরায় আর্জেন্টিনার কতটা লাভ হয়েছে, তার সবচেয়ে বড় প্রমাণ হতে পারে গত ১০ অক্টোবরের ইকুয়েডরের বিপক্ষে বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচটিই। সেদিন অসাধারণ এক হ্যাটট্রিক করে মেসি একাই আর্জেন্টিনাকে তুলে দিয়েছেন সরাসরি বিশ্বকাপে।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অবসর থেকে ফেরার সেই গিল্পের কথাই শুনিয়েছেন মেসি। ডিরেক্ট টিভি স্পোর্টসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ৩০ বছর বয়সী মেসি বলেছেন, ‘অবসরের সিদ্ধান্ত হুট করেই নিয়ে ফেলেছিলাম। কিন্তু সিদ্ধান্ত বদলে আবার ফিরতে চাই, এটা বলতে পারছিলাম না। লজ্জা লাগছিল। তবে সেই সময়ের কোচ বাউজা ও সতীর্থদের আমার জন্য কাজটা সহজ করে দিয়েছে।’

সেই বাউজা নেই। তার জায়গায় আর্জেন্টিনার কোচের দায়িত্বে এখন হোর্হে সাম্পাওলি। তবে সতীর্থদের সবাই আছেন। তাদের নিয়েই আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারটা মেসি আবার শুরু করেছেন নতুনভাবে। মেসির ভাষায়, এটা আন্তর্জাতিক ফুটবলে তার জন্য সম্পূর্ণ নতুন আরেকটা অধ্যায়। যে অধ্যায়ে তিনি আগের চেয়ে অনেক বেশী অভিজ্ঞ। অনেক বেশী দায়িত্বশীল। শুধু মাঠ নয়, বাইরের বিতর্ক-সমালোচনা সামলাতেও অনেক বেশী দক্ষ।

মেসির দাবি অবসর নেওয়া এবং অবসর থেকে ফিরে আসার ব্যাপাটার তার দৃষ্টিভঙ্গিতেও এনেছে আমুল পরিবর্তন, ‘আমার বয়স এখন ৩০। জাতীয় দলের হয়ে এই অধ্যায়টা আমি উপভোগ করছি। আগের চেয়ে এখন আমি অনেক বেশী নির্ভার। সমালোচনাটাকেও আমি এখন ভিন্ন দৃষ্টিতে দেখি। প্রতিক্রিয়া না জানিয়ে চুপ থাকারই চেষ্টা করি।’

কেআর

 

 

print
 

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad