লিভারপুলের সঙ্গে ‘যুদ্ধ’ শুরু করে দিয়েছেন কুতিনহো!

ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৭ | ৪ ভাদ্র ১৪২৪

লিভারপুলের সঙ্গে ‘যুদ্ধ’ শুরু করে দিয়েছেন কুতিনহো!

পরিবর্তন ডেস্ক ৪:১৩ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০১৭

print
লিভারপুলের সঙ্গে ‘যুদ্ধ’ শুরু করে দিয়েছেন কুতিনহো!

স্টিভেন জেরার্ড আগেই বলেছেন ফিলিপে কুতিনহোকে লিভারপুল সহজে ছাড়বে না। বার্সেলোনায় যেতে হলে তাকে ‘যুদ্ধ’ করতে হবে। আভাস পেয়ে বার্সেলোনাও কুতিনহোকে তাড়না দেন দল ছাড়ার জন্য লিভারপুলের চাপ প্রয়োগ করতে। তোতা পাখির মতো শেখানো বুলি আওড়ে এই কুতিনহোও হাঁটছেন সেই পথেই। বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার জন্য নিজ ক্লাব লিভারপুলের সঙ্গে সত্যি সত্যিই যুদ্ধ শুরু করে দিয়েছেন এই ব্রাজিলিয়ান!

মৌসুমের শুরুতেই কুতিনহোর দিকে নজর দেয় বার্সেলোনা। শুরুতে ৮০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাবও পাঠিয়ে দিল কাতালন ক্লাবঠি কিন্তু বার্সার সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দেয় লিভারপুল। প্রত্যাখ্যাত হয়ে বার্সা কিছু দম ধরে। কিন্তু রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ট্রান্সফার চুক্তিতে নেইমার পিএসজিতে চলে যাওয়ার পর আবার কুতিনহোর প্রতি বিশেষ আগ্রহী হয়ে ওঠে বার্সা। কুতিনহোই হবেন নেইমারের যোগ্য বিকল্প-এই যুক্তিতে ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গারের জন্য নতুন করে ১০০ মিলিয়ন ইউরোর প্রস্তাব পাঠায় বার্সেলোনা। কিন্তু ‘কোনো মূল্যেই কুতিনহো বিক্রির জন্য নয়’-এই দাবিতে লিভারপুল গত বৃস্পতিবার বার্সার নতুন এই প্রস্তাবও ফিরিয়ে দিয়েছে।

কিন্তু দুই দুইবার প্রত্যাখ্যাত হওয়ার পরও হাল ছাড়েনি বার্সেলোনা। ‘কুতিনহোকে তাদের চাই-ই চাই’ মনোভাব নিয়ে বার্সা এখন হাঁটছে ‘বিকল্প’ পথে। কুতিনহোকে শিখিয়ে দিচ্ছে লিভারপুলের উপর চাপ সৃষ্টি করতে! স্বদেশী নেইমারের জায়গা নিতে কুতিনহোও বার্সেলোনায় যেতে মরিয়া। লিভারপুল কর্তৃপক্ষ বার্সেলোনার দ্বিতীয় প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় ব্রাজিলিয়ান উইঙ্গার খুবই অসন্তুষ্ট।

শুক্রবার তাই লিভারপুলের ক্রীড়া পরিচালক মাইকেল অ্যাডওয়ার্ডের বরাবর ই-মেইল পাঠিয়েছেন কুতিনহো। ইমেইলে ব্রাজিলিয়ান তারকা স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, বার্সেলোনার সঙ্গে আলোচনা করে একটা সমঝোতায় পৌঁছাতে। তিনি নাকি সরাসরিই লিখেছেন লিভারপুলের হয়ে আর খেলতে চান না। লিভারপুল ছেড়ে যোগ দিতে চান বার্সেলোনায়।

শুধু তাই নয়, কুতিনহো নাকি নিজের সিদ্ধান্ত নিজেই নেওয়ার কথা ভাবছেন! ঠিক যেভাবে নিজের সিদ্ধান্ত নিজে নিয়ে বার্সেলোনা ছেড়ে পিএসজিতে পাড়িয়ে জমিয়েছেন তার স্বদেশী নেইমার!

এখন দেখার বিষয়, কুতিনহোর এই ইমেইল-চাপের পর লিভারপুল কোন পথে হাঁটে। যে পথেই হাঁটুক ইংলিশ ক্লাবটি কুতিনহোকে ধরে রাখতে পারবে বলে মনে হচ্ছে না। যিনি চলে যেতে চান, তাকে যে কোনো দাওয়াই দিয়েই ধরে রাখা যায় না, সেটা তো নেইমারই দেখিয়ে দিয়েছেন গত ৩ আগস্ট।

কেআর

print
 
nilsagor ad

আলোচিত সংবাদ

nilsagor ad