পিএসজিকে কোয়ার্টার ফাইনালে তুললেন নেইমার
Back to Top

ঢাকা, বুধবার, ৮ জুলাই ২০২০ | ২৪ আষাঢ় ১৪২৭

পিএসজিকে কোয়ার্টার ফাইনালে তুললেন নেইমার

পরিবর্তন ডেস্ক ৯:২২ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ১২, ২০২০

পিএসজিকে কোয়ার্টার ফাইনালে তুললেন নেইমার
উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ‘শেষ ষোল’ পর্ব যেন পিএসজির জন্য বড় এক বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল। সর্বশেষ তিন মৌসুমেই এই শেষ ষোলতে আটকা পড়েছে নেইমার, এমবাপে, কাভানিদের তারকাখচিত পিএসজি। টানা চতুর্থ বারের মতো এবারও সেই শঙ্কার বাজছিল। কারণ, প্রথম লেগে বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের মাঠ থেকে পিএসজিকে ফিরতে হয়েছিল ২-১ গোলের হার নিয়ে। কিন্তু এবার সেই তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে দলকে রক্ষা করেছেন নেইমার। ব্রাজিলিয়ান তারকা শেষ ষোল’র বাধা ডিঙিয়ে পিএসজিকে টেনে তুললেন কোয়ার্টার ফাইনালে।

ডর্টমুন্ডের মাঠে প্রথম লেগে ২-১ গোলে হার। ফলে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠতে হলে কাল ফিরতি লেগে পিএসজির সামনে সমীকরণ ছিল এমন, নিজেদের ঘরের মাঠে তাদের অন্তত ১-০ গোলে জিততে হবে। করোনা আতঙ্কে দর্শকশূন্য মাঠে নেইমারের জাদুতে পিএসজি কাল সেই সমীকরণই শুধু মেলায়নি, জিতেছে ২-০ গোলে। দুই লেগ মিলিয়ে ৩-২ অগ্রগামিতায় শেষ আটে পিএসজি।

শঙ্কা ঠেলে দলকে শেষ আটে তুলতে একটি গোল করেছেন নেইমর। অন্যটি করেছেন ডিফেন্ডার হুয়ান বার্নাত। এই হিসেবে হুয়ান বার্নাত অন্যতম নায়ক। তবে পিএসজির শেষ ষোল’র বাধা টপকানোর মূল নায়ক নেইমারই। অবশ্যই জিততে হবে ম্যাচটিতে নেইমারই দলকে এগিয়ে দেন প্রথমে।

২৮ মিনিটে দুর্দান্ত ডাইভিং হেডে করা তার গোলটিই পিএসজিকে দেখায় শেষ আটের পথ। কারণ, সমীকরণ মতো কাল পিএসজির ১-০ গোলের জয় হলেই চলত। প্রথমার্ধের যোগ করা সময়ে বার্নাতের গোলটি পিএসজির জয়ের ব্যবধান বাড়িয়েছে শুধু।

শুধু শেষ আট নিশ্চিত করা গোল নয়, পুরো ম্যাচেই দুর্দান্ত খেলেছেন নেইমার। মাঠে কোনো দর্শক ছিল না বলেই কি এমন জাদুকরী ফুটবল উপহার দিলেন ব্রাজিল তারকা! পিএসজির সমর্থকদের সঙ্ড়েতার সম্পর্কটা তেমন ভালো নয়। দলটির উগ্রপন্থী সমর্থকগোষ্টির অনেকেই নেইমারকে দুয়ো দেন মাঠে।

কিন্তু করোনা ভাইরাস আতঙ্কে কালকের ম্যাচটি খেলা হয়েছে দর্শকশূন্য মাঠে। দুয়োহীন ধুধু গ্যালারিই যেন বাড়তি উজ্জীবিত করে তুলে নেইমারকে। যার ফল, অবিশ্বাস্য পারফরম্যান্সে দলকে শেষ আটে নিয়ে যাওয়ার পাশাপাশি ম্যাচসেরার পুরস্কারটিও নিজ পকেটে তুলেছেন ব্রাজিল তারকা।

কালকের ম্যাচটিকে পিএসজি কতটা গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছিল, সেটি একটি তথ্যেই স্পষ্ট। মরণঘাতী করোনা ভাইরাস সন্দেহে দুদিন আগে পরীক্ষাগারে যেতে হয় পিএসজির ফরাসি তারকা কিলিয়ান এমবাপে। পরীক্ষায় তিনি নেতিবাচক মানে সন্দেহমুক্ত প্রমাণিত হয়েছেন ঠিক। তবে, দলের সঙ্গে টানা দুদিন অনুশীলন না করায় তাকে কাল না খেলানোর কথাই শুনা যাচ্ছিল।

কিন্তু জয়ের নেশা পিএসজির জার্মান কোচকে এতটাই মরিয়া করে তুলে যে, এমবাপেকে খেলানোর ঝুঁকিও তিনি নিয়েছেন। অবশ্য শুরুর একাদশে নয়, ২০ বছর বয়সী এমবাপেকে কোচ কাল খেলিয়েছেন বদলি হিসেবে। তার মাঠে নামার আগেই দলের জয় নিশ্চিত করে ফেলেন নেইমার-বার্নাত!

প্রথম লেগে পিএসজিকে কাঁপিয়ে দিয়েছিলেন আর্লিং হালান্ড। ডর্টমুন্ডের হয়ে ২টি গোলই করেছিলেন দুর্দান্ত ফর্মে থাকা এই নরওয়েজিয়ান তরুণ। কালও তাই তার দিকেই তাকিয়ে ছিল ডর্টমুন্ড। কিন্তু পিএসজির ডিফেন্ডারদের সতর্ক পাহাড়ার সামনে তিনি কাল কিছুই করতে পারেননি। বরং তাকে হতাশাংয় ডুবিয়ে নায়ক বনে গেছেন নেইমার।

কেআর

 

: আরও পড়ুন

আরও