ম্যানসিটির সর্বনাশ করেছেন যে হ্যাকার
Back to Top

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২ এপ্রিল ২০২০ | ১৮ চৈত্র ১৪২৬

ম্যানসিটির সর্বনাশ করেছেন যে হ্যাকার

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

ম্যানসিটির সর্বনাশ করেছেন যে হ্যাকার

আর্থিক অনিয়মের কারণে দুই বছরের জন্য চ্যাম্পিয়ন্স লিগে নিষিদ্ধ হয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি। অর্থাৎ আগামী দুই মৌসুম চ্যাম্পিয়ন্স লিগে অংশ নিতে পারবে না ইংলিশ এই ক্লাবটি। উয়েফার ফিন্যান্সিয়াল ফেয়ার প্লে নীতি ভঙ্গ করার কারণে এ শাস্তি ভোগ করতে হচ্ছে সিটিকে।

এদিকে ইংলিশ জায়ান্টদের এ সর্বনাশের কোন গোয়েন্দা সংস্থা নয়। এক পর্তুগিজ হ্যাকারেই পা কেটেছে সিটির।

উয়েফার কাচে সিটির আর্থিক গড়মিলের তথ্য তুলে দিয়েছে রুই পিন্টো নামে এক হ্যাকার। এই তরুণ ২০১৫ সালে হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে ম্যানসিটির কর্মকর্তাদের প্রচুর ইমেইল চুরি করে নেন। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ‘সান’ জানিয়েছে, ম্যানসিটির প্রায় ৭০ মিলিয়ন গোপন নথি হস্তগত করেছেন এই হ্যাকার।

আর এই গোপন নথিই ধীরে ধীরে সংবাদমাধ্যমের হাতে তুলে দেন তিনি। অবশ্য পুরো কাজটাই করেন তিনি ‘জন’ ছদ্মনামে। হাঙ্গেরি থেকে তিনি ফুটবল দুনিয়ার গোপন তথ্য ছড়াতে থাকেন। যা ফুটবল বিশ্বে তোলপাড় ফেলে।

এদিকে এ ঘটনায় পুলিশও লেগে যায় তার পেছনে। অবশেষে ২০১৯ সালে জানুয়ারিতে ধরা পড়ে যান ৩১ বছর বয়সী এই হ্যাকার। হাঙ্গেরি থেকে গ্রেফতারের পর জানা যায় তার নাম পিন্টো। এবং তিনি পর্তুগালের নাগরিক।

জানা গেছে, ২০১৫ সাল থেকে বিভিন্ন নামীদামী ফুটবল ক্লাব ও বড় বড় সংস্থার গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংগ্রহ করে আসছিলেন পিন্টো। এর মধ্যে খেলোয়াড়দের যোগাযোগ মাধ্যমের তথ্য, টিম অফিসিয়ালদের অভ্যন্তরীণ ডকুমেন্ট, প্রয়োজনীয় ই-মেইল, খেলোয়াড়দের আয়-ব্যয় সংক্রান্ত তথ্য এবং ট্যাক্স প্রদানের তথ্যও ছিল।

গেল বছরের মার্চ থেকে পর্তুগালের জেলে আছেন পিন্টো। সারা বিশ্বে প্রশংসিত হলেও পর্তুগিজ কর্তৃপক্ষের কাছে তিনি একজন প্রতারক। হ্যাকিং, জালিয়াতিসহ মোট ৯০টি আলাদা অপরাধে তাঁর বিচার হবে।

পিএ

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও