কষ্টের জয়ে রিয়ালকে ছুল বার্সেলোনা
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০ | ২০ চৈত্র ১৪২৬

কষ্টের জয়ে রিয়ালকে ছুল বার্সেলোনা

পরিবর্তন ডেস্ক ১১:০৬ পূর্বাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২০

কষ্টের জয়ে রিয়ালকে ছুল বার্সেলোনা

চীন থেকে ছড়ানো করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বে। সমগ্র দুনিয়াই এখন এই ভয়ঙ্কর ভাইরাসের আতঙ্কে আতঙ্কিত। বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনও সেই শঙ্কার ছোবল থেকে মুক্ত নয়। গতকাল বার্সেলোনা ও গেটাফের মধ্যকার লা লিগার ম্যাচটিও হয়ে থাকল তার সাক্ষী। নিজেদের ঘরের মাঠ ন্যু-ক্যাম্পে বার্সেলোনার খেলোয়াড়েরা মাঠে নামেন বিশালাকৃতির এক ব্যানার নিয়ে। ভয়ঙ্কর এই ভাইরাসে আক্রান্ত মানুষদের সহমর্মিতা জানিয়ে লিওনেল মেসিদের ব্যানারে লেখা ছিল, ‘শক্ত থাকো, পাশেই আছি’ স্লোগান।

আরেকটু হলে সংক্রমিত মানুষদের সহমর্মিতা জানানোর ম্যাচে বার্সেলোনা নিজেরাই অন্য এক সংক্রমণের শিকার হতে চলেছিল! হারের শঙ্কা ছুঁতে না পারলেও বার্সেলোনাকে ড্র শঙ্কায় ভুগতে হয়েছে ম্যাচের শেষ পর্যন্ত। তবে সেই পর্যন্ত সেই শঙ্কা জয় করেছে বার্সেলোনা। ঘাম ঝরিয়ে জিতেছে ২-১ গোলে। কষ্টের এই জয়ে পয়েন্টে রিয়াল মাদ্রিদকে ধরে ফেলেছে বার্সা।

দুই দলেরই পয়েন্ট এখন সমান, ৫২ করে। তবে বার্সেলোনা ম্যাচ খেলেছে একটি বেশি, ২৪টি। রিয়ালের ২৩ ম্যাচেই পয়েন্ট ৫২। তাছাড়া পয়েন্ট সমান হলেও গোল ব্যবধানে এগিয়ে থাকায় রিয়ালই শীর্ষে। নিজেদের ঘরের মাঠ বার্নাব্যুতে পুঁচকে সেল্টা ভিগোর সঙ্গে জিততে পারলে জিনেদিন জিদানের দেল আবার এগিয়ে যেতে পারবে পয়েন্টেও।

যাই হোক, নিজেদের ঘরের মাঠে বার্সেলোনা শুরুটা করেছিল বার্সেলোনার মতোই। পাসিং ফুটবলে মাঠে বল দখলের লড়াইয়ে একচ্ছত্র আধিপত্যই ছিল বার্সার। কিন্তু সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে ম্যাচের চিত্রটা পাল্টে যায়। শুরুর জড়তা কাটিয়ে সফরকারী গেটাফেও সমান তালেই লড়তে থাকে।

তারপরও প্রথমার্ধেই ২-০ গোলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। ৩৩ মিনিটে দলকে প্রথম এগিয়ে দেন ফরাসি ফরোয়ার্ড আতোইন গ্রিজমান। অধিনায়ক মেসির দারুণ এক পাস থেকে গোলটি করেছেন তিনি। ৩৯ মিনিটে ব্যবধান ২-০ করেন ডিফেন্ডার সের্গি রবার্তো।

ম্যাচের বাকি সময়টুকুতে গেটাফের লড়াই করে যাওয়ার গল্প। সেই লড়াইয়ে ৬৬ মিনিটে একটা গোলও পেয়ে যায় গেটাফে। বার্সেলোনারই টার্গেট অ্যাঙ্গেল রদ্রিগেজ। জরুরী ভিত্তিতে একজন স্ট্রাইকার কেনার জন্য মরিয়া চেষ্টা করছে বার্সেলোনা। এই ইচ্ছা পূরণে বার্সা যে কয়জনকে পছন্দ করেছে, অ্যাঙ্গেল রদ্রিগেজ তাদের একজন। কাল ন্যু-ক্যাম্পে গোল করে তিনি বার্সা কর্তাদের আরও ভালো করে বুঝিয়ে দিলেন, তাকে কিনলে ভালোই করবে বার্সেলোনা!

ব্যবধান ২-১-এ নামিয়ে আনার পর গেটাফে চেষ্টা করেছে সমতা ফেরানোর। সুযোগও পেয়েছে তারা। গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে তের স্টেগান কিছু অবিশ্বাস্য সেভ না করলে বিপদই হতো বার্সেলোনার। এই জয়ের জন্য বার্সেলোনা ভাগ্যকেও ধন্যবাদ দিতে পারে। কারণ, গেটাফের একটা গোল বাতিল না হলেও ম্যাচের ফল অন্য রকম হতে পারত।

ন্যু-ক্যাম্পে সফরকারী গেটাফেই গোল পায় প্রথমে। ম্যাচের ২৩ মিনিটে কর্নারের বলে হেড করেন গেটাফের এক খেলোয়াড়। কিন্তু তার হেডটি অবিশ্বাস্য দক্ষতায় রুখে দেন বার্সেলোনার গোলরক্ষক তের স্টেগান। তবে স্টেগানের পাঞ্চ করার পর বল চলে আসে গেটাফের অ্যালান নিয়োমের পায়ে।

তিনি আলতো টোকায় বল জড়িয়ে দেন জালে। কিন্তু ভিএআরের সহায়তায় রেফারি গোলটি বাতিল করে দিয়েছেন! ভিডিওতে দেখা যায়, শট নেওয়ার সময় অ্যালান নিয়োম বার্সেলোনার ফরাসি ডিফেন্ডার স্যামুয়েল উমতিতির মুখে আঘাত করেছেন। রেফারি গোলটা বাতিল না করলে মেসিদের হয়তো হার নিয়েই ছাড়তে হতো মাঠ!

কেআর

 

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও