মেসিসহ লা লিগায় ভয়াবহ গোলখরা
Back to Top

ঢাকা, শুক্রবার, ৩ এপ্রিল ২০২০ | ২০ চৈত্র ১৪২৬

মেসিসহ লা লিগায় ভয়াবহ গোলখরা

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:৩৪ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০২০

মেসিসহ লা লিগায় ভয়াবহ গোলখরা

ইউরোপের শীর্ষ লিগগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি গোলপ্রসবা স্পেনের লা লিগা। বিশ্বসেরা ক্লাব, বিশ্বসেরা সব ফরোয়ার্ডরা খেলার সুবাদে লা লিগায় গোলের ফুল ফুটে সবচেয়ে বেশি। কিন্তু গোল বন্যার সেই লা লিগায় এবার ভয়াবহ গোলখরা। স্পেনের ঘরোয়া শীর্ষ লিগটিতে আসলে গোলখরা চলছে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো চলে যাওয়ার পর থেকেই। তবে গত মৌসুমের তুলনায় এবারের অবস্থা আরও বেশি শোচনীয়।

মৌসুমে লিগের ২৩ রাউন্ড শেষ হয়েছে। এ মৌসুমে লা লিগার ২০ দল মিলে মোট গোল করেছে মোটে ৫৮৩টি। যা ২০০৬-০৭ মৌসুমের পর গত ১৩ বছরে সবচেয়ে কম গোলের রেকর্ড। মানে গত ১৩ বছরে কখনোই মৌসুমের প্রথম ২৩ রাউন্ডে লা লিগায় এত কম গোল হয়নি।

ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো যতদিন রিয়াল মাদ্রিদে ছিলেন, বানের জলের মতো গোল হয়েছে লা লিগায়। পর্তুগিজ তারকা নিজে কাড়ি কাড়ি গোল করেছেন। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে লিওনেল মেসিও গোলের বান ডাকিয়েছেন। পাশাপাশি অন্য ফরোয়ার্ডরাও গোল করেছেন দেদারচ্ছে। কিন্তু ২০১৮ সালে রোনালদো রিয়াল ছেড়ে জুভেন্টাসে চলে যাওয়ার পর থেকেই লা লিগায় গোলে ভাটা পড়েছে।

তবে গত মৌসুমের চেয়েও এবার ৫টি গোল কম হয়েছে। লা লিগার এই গোলখরার মূর্ত প্রতীক ধরতে পারেন মেসিকে। বার্সেলোনার আর্জেন্টাইন তারকা ক্যারিয়ারে রেকর্ড ৬ বার জিতেছেন ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট। মানে মেসি ৬ বার ইউরোপের শীর্ষ লিগগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ গোলদাতা হয়েছেন। তার পাশাপাশি ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোও রিয়ালে থাকতে ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুট জিতেছেন ৩ বার। একবার জিতেছেন মেসির বার্সেলোনার সতীর্থ লুইস সুয়ারেজ। সব মিলে গত দশকে ইউরোপের সর্বোচ্চ গোলদাতার এই পুরস্কার লা লিগার খেলোয়াড়দের পকেটেই গেছে।

কিন্তু দৃশ্য এবার এতটাই পাল্টে গেছে যে, লা লিগার কোনো খেলোয়াড় গোল্ডেন বুটের দৌড়ে সেরা দশেও নেই! এমনকি মেসিও না। মৌসুমের এ পর্যন্ত লা লিগায় সর্বোচ্চ গোলদাতা অবশ্য মেসিই। তবে তিনি এ পর্যন্ত করেছেন মাত্র ১৪ গোল। গোল্ডেন বুটের দৌড়ে এবার সবচেয়ে এগিয়ে যিনি, সেই সিরো ইমোবাইল এ পর্যন্ত লিগে গোল করেছেন ২৫টি। মানে মেসির চেয়ে ১১ গোলে এগিয়ে তিনি। ভাবা যায়!

মাত্র ১৪ গোল করেই মেসি লা লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতা। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৩ গোল করেছেন রিয়াল মাদ্রিদের ফরাসি ফরোয়ার্ড করিম বেনজেমা। অথচ গত মৌসুমেও মেসি মৌসুমের এই পর্যায়ে করেছিলেন ২৫ গোল। ২০১৭-১৮ মৌসুমে করেছিলেন ১৮টি, ২০১৬-১৭ মৌসুমে করেছিলেন ২৩টি।

রিয়ালের হয়ে রোনালদো সর্বশেষ গোল্ডেন বুটে জিতেছিলেন ২০১৪-১৫ মৌসুমে, সেবার তিনি মৌসুমের এ পর্যায়ে করেছিলেন ২৪ গোল। ২০১৫-১৬ মৌসুমে গোল্ডেন বুট জেতার পথে বার্সেলোনার উরুগুইয়ান ফরোয়ার্ড লুইস সুয়ারেজও লিগের প্রথম ২৩ রাউন্ডে করেছিলেন ২৪ গোল।

সেখানে মেসি এবার করেছেন মাত্র ১৪টি। মানে লা লিগার খেলোয়াড়েরা নিজেদের সম্পত্তি বানিয়ে ফেলা ইউরোপিয়ান গোল্ডেন বুটটা যে পাচ্ছে এবার নিজেদের দথলে রাখতে পারছে না, সেটি স্পষ্টই। সেটি হয়তো এবার যাচ্ছে ইতালিয়ান সিরি আ’তে, লাৎসিও’র সিরো ইমোবাইলের হাতে। যিনি সর্বোচ্চ ২৫ গোল করে সবার শীর্ষে। কিংবা যেতে পারে জার্মান বুন্দেসলিদার দল বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্তো লেভান্ডভস্কির হাতে। যিনি এ পর্যন্ত মাত্র ২১ ম্যাচে করেছেন ২২ গোল। কিংবা পেতে পারেন জুভেন্টাসের ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোও। যিনি করেছেন ২০ গোল।

লা লিগার গোলখরার করুণ চিত্রটা ফুটিয়ে তুলছে আরও একটি চিত্রও। ইতালিয়ান সিরি আ, ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, জার্মান বুন্দেসলিগার মতো লিগগুলোতে লা লিগার চেয়ে বেশি গোল হয়েছে। মজার ব্যাপার হলো, বরাবর রক্ষণাত্মক ফুটবলের ধারক-বাহক যারা, সেই ইতালিতে এবার গোলবন্যা। ইউরোপের শীর্ষ ৫টি লিগের মধ্যে এ পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি গোল হয়েছে ইতালিয়ান সিরি আ’তে! সিরি আ’তে ঠিক ২৩ রাউন্ডে হয়েঠেছ মোট ৬৭১ গোল! তথ্যটা যেন বিশ্বাসের দরজায় বড় একটা ধাক্কাই মারে!

ইতালির তরুণ তুর্কি সিরো ইমোবাইল, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো, রোমেলু লুকাকুদের সৌজন্যেই এটা সম্ভব হয়েছে। তাদের গোল বন্যার সুবাদেই এই গোল বিল্পব চলছে সিরি আতে। গোল করায় ইতালিয়ান সিরি আ’র পরই আছে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ।

ইংল্যান্ডে এ পর্যন্ত গোল হয়েছে ৬৩৩টি। জার্মান বুন্দেসলিগায় ২১ রাউন্ডেই গোল হয়েছে ৬১০টি। ইউরোপের শীর্ষ লিগগুলোর মধ্যে লা লিগার চেয়ে কম গোল হয়েছে কেবল ফ্রেঞ্চ লিগ ওয়ানে। ফ্রান্সে ২৩ রাউন্ডে গোল হয়েছে মোটে ৫৭৩টি।

লা লিগার গোলখরার ভাটা স্রোত মেসির পায়েও লেগেছে ঠিক। তবে দলগতভাবে তোর ক্লাব বার্সেলোনায় তেমন ভাটা পড়েনি। অন্য অনেক গোলদাতার সমন্বয়ে লা লিগায় বার্সেলোনাই সবচেয়ে বেশি ৫৫টি গোল করেছে। পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে অবস্থান করা রিয়াল মাদ্রিদ করেছে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪৪টি। সবচেয়ে কম গোল করেছে পয়েন্ট তালিকার ১৯ নম্বরে থাকা লেগানেস, মাত্র ১৮টি।

কেআর

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও