রিয়ালকে জেতালেন ‘অবহেলিত’ বেল-ব্রাহিম

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৪ ফাল্গুন ১৪২৬

রিয়ালকে জেতালেন ‘অবহেলিত’ বেল-ব্রাহিম

পরিবর্তন ডেস্ক ১২:১১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২৩, ২০২০

রিয়ালকে জেতালেন ‘অবহেলিত’ বেল-ব্রাহিম

কোপা ডেল রের শেষ ৩২ রাউন্ডের ম্যাচ খেলতে কাল প্রায় এক যুগে মাঠে নেমেছিল দুই স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদ। মানে কযেক ঘণ্টা আগে-পরে। দুই দলেরই প্রতিপক্ষ ছিল অপেক্ষাকৃত দুর্বল। ফলে বিলাসিতা দেখিয়ে দুই দলের কোচই দলের সেরাদের বিশ্রাম দিয়ে মাঠে নামিয়েছিলেন ‘রিজার্ভ বেঞ্চের’ খেলোয়াড়দের।

এই বিলাসিতার মাশুল হিসেবে দুই দলকেই পুড়তে হয়েছে শঙ্কার আগুনে।

বার্সেলোনাকে তো আরেকটি মহা বিপর্যয়ের শঙ্কাতেই কাঁপতে হয়েছে। রিয়ালের পরিস্থিতিটা ততটা ভয়ের ছিল না। তবে তৃতীয় বিভাগের দল ইউনিয়নিস্তা ডি সালামাঞ্চার বিপক্ষে জিততে রিয়ালকেও বেগ পেতে হয়েছে। যদিও শেষ পর্যন্ত রিয়াল জিতেছে ৩-১ গোলে।

জিনেদিন জিদানের রিয়ালকে কষ্টার্জিত এই জয়টা এনে দিয়েছেন তার দুই ‘অবহেলিত’ সৈনিক গ্যারেথ বেল ব্রাহিম দিয়াজ।

আসলে ব্রাহিম দিয়াজের নামটা আগে বলা উচিত। গ্যারেথ বেলের টা পরে। কারণ, দলকে জেতাতে ব্রাহিম করেছেন জোড়া গোল। সেটিও বদলি হিসেবে নেমে। ব্রাহিম দিয়াজের দুটি গোলেই আবার নিশ্চিত হয়েছে রিয়ালের জয়। দলের অন্য গোলটি করেছেন বেল।

রিয়ালের চেয়ে ৪ ঘণ্টা আগে মাঠে নেমেছিল বার্সেলোনা। কাতালন জায়ান্টদের প্রতিপক্ষও ছিল তৃতীয় বিভাগের পুঁচকে এক দল, ইউনিয়ন দেপোর্তিভো ইবিজা। বার্সেলোনা কোচ কিকে সেতিয়েন তাই ম্যাচটিতে মেসি-জেরার্ড পিকে সহ বেশ কয়েকজন সিনিয়র খেলোয়াড়কে বিশ্রাম দিয়েছিলেন। এর বিলাসিতার কড়া মাশুলই বার্সেলোনাকে দিতে হচ্ছিল প্রায়। ম্যাচের ৭১ মিনিট পর্যন্তও ইবিজা এগিয়ে ছিল ১-০ গোলে। হারলে সেটা হতো বার্সেলোনার জন্য মহা বিপর্যয়।

কারণ, কদিন আগেই স্প্যানিশ সুপার কাপের সেমিফাইনালে হেরে মৌসুমের প্রথম শিরোপা স্বপ্ন গুঁড়িয়ে গেছে বার্সার। কাল হারলে আরও একটি শিরোপা স্বপ্ন ভেঙে চরমার হতো তাদের। বার্সাকে সেই মহা বিপর্যয় থেকে রক্ষা করেছেন আতোইন গ্রিজমান। জোড়া গোল করে ফরাসি তারকা বার্সাকে এনে দিয়েছেন ২-১ গোলের জয়।

অন্য ম্যাচে পুঁচকে সালামাঞ্চা দৈত্য রিয়ালের ঘাম বের করেছে বটে। তবে রিয়ালের পরিস্থিতিটা ঠিক বার্সেলোনার ঠিক উল্টো। জিদানের দলকে এক সেকেণ্ডের জন্য হারের শঙ্কায় ভুগতে হয়নি। তবে পুঁচকে সালামাঞ্চার বিপক্ষে দৈত্য রিয়ালকে মিনিট পাঁচেক ড্র শঙ্কায় কাঁপতে হয়েছে, এটাই বা কম আশ্চার্যের কি!

কোপা ডেল রের ম্যাচটিকে অগুরুত্বপূর্ণ ভেবে জিদান নিয়তিম একাদশের বেশ কয়েকজনকে বিশ্রাম দিয়ে মাঠে নামান তার ‘অবহেলিত’ তিন সৈনিক গ্যারেথ বেল, হামেশ রদ্রিগেজ ও ব্রাহিম দিয়াজকে। এর মধ্যে স্প্যানিশ ফরোয়ার্ড ব্রাহিমকে মাঠে নামান বেলের বদলি হিসেবে।

তিনজনকেই ম্যাচের পর ম্যাচ অবহেলা করে যাচ্ছেন জিদান। বসিয়ে রাখছেন বেঞ্চে। কাল এই তিন অবহেলিতের দুই অবহেলিতই উজ্জ্বল করেছেন জিদানের মুখ। গ্যারেথ বেল ও ব্রাহিম দিয়াজ মিলে এনে দিয়েছেন জয়।

সালামাঞ্চার মাঠ দ্য এস্তাদিও পিসতাস ডেল হেলমানতিকো স্টেডিয়ামে ম্যাচের ১৮ মিনিটেই রিয়ালকে এগিয়ে দেন বদলি হিসেবে নামা গ্যারেথ বেল। ওয়েলস তারকা করেন গত সেপ্টেম্বরের পর নিজের প্রথম গোল। দীর্ঘ গোল খড়ার জন্য অবশ্য বেলকে এককভঅবে কাটগড়ায় তোলা যায় না! মাঠে নামার সুযোগই তেমন পান না তিনি। কোচ জিদান তাকে বেঞ্চে বসিয়ে রাখাটাকেই পছন্দ করেন বেশি! তবে কাল অগুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ ভেবে জিদান সুযোগ দিয়েছিলেন তাকে। বেল সুযোগটা কাজেও লাগিয়েছেন।

বেলের এনে দেওয়া এই লিড ৫৭ মিনিট পর্যন্ত ধরে রেখেছিল রিয়াল। কিন্তু ৫৭ মিনিটে সালামাঞ্চাকে সমতা ফেরায় সামালাঞ্চা। রিয়াল শিবিরে এঁকে দেয় ড্র শঙ্কা। তবে এই শঙ্কা ৬২ মিনিটেই দূর করেন ব্রাহিম দিয়াজ। প্রথম গোলদাতা গ্যারেথ বেলকে তুলে নিয়ে তার পরিবর্তে ৫৩ মিনিটে আরেক অবহেলিত ব্রাহিম দিয়াজকে মাঠে নামান জিদান।

স্প্যানিশ ফরোয়ার্ডই ৬২ মিনিটে আবার এগিয়ে দেন রিয়ালকে। এই ২-১ গোলের ব্যবধানটাকেই মনে হচ্ছিল ম্যাচের নিয়তি। কিন্তু ইনজুরি সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে নিজের দ্বিতীয় এবং দলের তৃতীয় গোলটি করে সেই ধারণা মিথ্যে প্রমাণ করেন ব্রাহিম দিয়াজ। পাশাপাশি কোচ জিদানকে বুঝিয়ে দেন, তাকে ‘অবহেলা’ করে, ম্যাচের পর ম্যাচ বেঞ্চে বসিয়ে রেখে বড় ভুল করছেন?

আসলেই ভুল করছেন জিদান? কালকের এই দলকে জয় এনে দেওয়া জোড়া গোলের পর ব্রাহিম দিয়াজের ভাগ্যের কি পরিবর্তন হবে? কোচ জিদান কি এখন থেকে নিয়মিতই আস্থা রাখবেন তার উপর? ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে এসব প্রশ্নেই জল ঢেলেছেন জিদান। বুঝিয়ে দিয়েছেন ব্রাহিম দিয়াজকে ম্যাচ না খেলিয়ে তিনি কোনো ভুল করছেন না।

কালকের জোড়া গোলের পর জিদানের নীতি-কৌশল-পরিকল্পনারও কোনো পরিবর্তন হবে না। মানে জোড়া গোলেও খুলবে না স্পেনের তরুণ ফরোয়ার্ডের ভাগ্য।

জিদান স্পষ্টই বলেছেন, ‘ব্রাহিমের পরিস্থিতির কথা বলছেন? এই ম্যাচের ফলে কোনো কিছুই পরিবর্তন হবে না। তবে সে আজ যা করেছে, তাতে আমি খুব খুশি। আমরা সবাই এখানে ভালো করতে এসেছিলাম। এর বেশি কিছু না।’

কেআর 

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও