হাজার পাসে অভিষেকেই রেকর্ড গড়লেন বার্সা কোচ
Back to Top

ঢাকা, মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল ২০২০ | ২৩ চৈত্র ১৪২৬

হাজার পাসে অভিষেকেই রেকর্ড গড়লেন বার্সা কোচ

পরিবর্তন ডেস্ক ১:১৭ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২০, ২০২০

হাজার পাসে অভিষেকেই রেকর্ড গড়লেন বার্সা কোচ

গত সোমবার আচমকাই বিশ্বসেরা বার্সেলোনার কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন ‘অখ্যাত’ কিকে সেতিয়েন। আর্নেস্তো ভালভার্দেকে বরখাস্ত করে বার্সা মেসিদের নতুন কোচ করেছে ৬১ বছর বয়সী এই স্প্যানিয়ার্ডকে। দায়িত্ব নিয়েই সেতিয়েন নিশ্চয়তা দিয়েছেন, তার অধীনে এখন থেকে বার্সেলোনা ভালো ফুটবল খেলবে। কাল ন্যু-ক্যাম্পে গ্রানাডার বিপক্ষে বার্সার কোচ হিসেবে নিজের প্রথম ম্যাচে সেতিয়েনের সেই গ্যারান্টি শতভাগ সত্য প্রমাণিত। কোচ সেতিয়েনের অভিষেক ম্যাচটিতে মেসি-গ্রিজমানরা দৃষ্টিনন্দন ফুটবল উপহার দিয়েছেন।

আরও একটু স্পষ্ট করে বললে, সেতিয়েন-মেসি জুটি বেঁধে প্রথম ম্যাচেই স্মরণ করালেন পেপ গার্দিওলার সময়কার সেই অপ্রতিরোধ্য বার্সেলোনাকে। পাসিং ফুটবলের প্রসরায় মেসি-সেতিয়েন জুটি বার্সাকে ফিরিয়ে নিলেন গার্দিওলার যুগে।

সেতিয়েনের অধীনে বার্সেলোনা কাল পাসিং ফুটবলের কেমন পসরা সাজিয়ে বসেছিল ন্যু-ক্যাম্পে, সেটি ম্যাচের পরিসংখ্যানেই স্পষ্ট। ম্যাচে ৮২.৬ শতাংশ বল পজেশন ছিল বার্সেলোনার। মেসি-গ্রিজমান-বুসকেটসদের পাসিং ফুটবলের সৌজন্যে বার্সার হয়ে অভিষেকেই অনন্য এক রেকর্ড গড়েছেন কোচ সেতিয়েন।

ম্যাচে বার্সেলোনার খেলোয়াড়েরা মোট পাস খেলেছে ১০০৫টি! এর মধ্যে নিখুঁত মানে কমপ্লিট পাস খেলেছে ৯২১টি। সেতিয়েনের ১৯ বছরের কোচিং ক্যারিয়ারে এক ম্যাচে এটাই সর্বোচ্চ পাস খেলার রেকর্ড। ২০০১ সালে কোচিং পেশাদায় নাম লেখানোর পর এর আগ পর্যন্ত ৭টি ক্লাবকে কোচিং করিয়েছেন তিনি। কিন্তু কখনোই তার অধীনস্ত দল লা লিগার ম্যাচে এত বেশি পাস খেলতে পারেনি।

এতদিন লা লিগার এক ম্যাচে তার দলের সর্বোচ্চ পাস খেলার রেকর্ডটি ছিল ৭৮৮ পাসের। যে রেকর্ডটা সেতিয়েন গড়েছিলেন রিয়াল বেটিসের হয়ে। ৭৮৮ পাসের মধ্যে নিখুঁত পাস ছিল ৭১৯টি। শুধু সেতিয়েনের এই ব্যক্তিগত রেকর্ড নয়, বার্সেলোনার সর্বোচ্চ পাস খেলা ম্যাচগুলোর তালিকাতেও ঢুকে পড়েছে কালকের ম্যাচটি।

সব মিলে যুগে এটা বার্সেলোনার তৃতীয় সর্বোচ্চ পাস খেলার রেকর্ড। পেপ গার্দিওলার পরবর্তী যুগে বার্সেলোনার সর্বোচ্চ পাস খেলার রেকর্ড। মানে গার্দিওলা চলে যাওয়ার পর পথে বার্সেলোনা কখনোই এক ম্যাচে এত বেশি পাস খেলতে পারেনি।

ফুটবলের পরিসংখ্যান বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ‘অপটা’ পাসের হিসাব রাখার প্রচলন শুরু করেছে ২০০৮/০৯ মৌসুম থেকে। সেই থেকে লা লিগায় এক বার্সেলোনার সর্বোচ্চ পাস খেলার রেকর্ডটি ১০৪৫ পাসের। ২০১১ সালের ১১ মে, গার্দিওলার অধীনে লেভান্তের বিপক্ষে যে ম্যাচটিতে বার্সেলোনা নিখুঁত মানে কমপ্লিট পাস খেলেছিল ৯৮৮টি!

ম্যাচে বার্সেলোনার দ্বিতীয় সর্বোচ্চ পাস খেলার রেকর্ডটিও এই লেভান্তের বিপক্ষেই। সেটাও গার্দিওলার অধীনেই, ২০১২ সালের ২৫ নভেম্বর। সেদিন মেসিরা সবাই মিলে মোট পাস খেলেছিলেন ১০৩৫টি। যার মধ্যে নিখুঁত অর্থাৎ কমপ্লিট পাস ছিল ৯৫০টি।

তৃতীয় নজিরটি গড়ল কাল। মানে সেতিয়েনের অভিষেক ম্যাচে তৃতীয় বারের মতো পাস খেলায় হাজারের মাইলফলক স্পর্শ করল বার্সেলোনা। উল্লেখ্য, বার্সেলোনা সর্বোচ্চ পাস খেলার প্রথম তিনটি কীর্তিই গড়েছেন নিজেদের মাঠ ন্যু-ক্যাম্পে।

কিন্তু বার্সেলোনা সমর্থকদের জন্য একটু হতাশার খবর হলো, এমন পাসিং ফুটবলের প্রসরার দিনটিতেও বার্সেলোনা কাল গোল পেয়েছে মোটে ১টি। ৭৬ মিনিটে সেই গোলটাও বার্সা পেয়েছে গ্রানাডা ১০ জনের দলে পরিণত হওয়ার পর। দলকে জয় এনে দেওয়া গোলটা করেছেন অধিনায়ক মেসি। অবশ্য একমাত্র এই গোলটা ছিল অবিশ্বাস্য দলীয় প্রচেষ্টার ফসল।

মোট ৫ জনের সমন্বিত প্রচেষ্টায় পরিকল্পনা আক্রমণ থেকেই এসেছে গোলটা। যার ফিনিশিংটাও মেসি দিয়েছেন দারুণ দক্ষতায়, ডান পায়ে।

কেআর

 

খেলাধুলা: আরও পড়ুন

আরও